বাদল ফরাজি। ছবি: সংগৃহীত

কোন পথে বাদল ফরাজির মুক্তি?

ভারতের সমাজকর্মীদের আন্দোলনের প্রেক্ষিতে খুনের অভিযোগে যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত বাদল ফরাজিকে পাঠানো হয়েছে বাংলাদেশের কারাগারে। বন্দিবিনিময় চুক্তির ফলে বাদল রয়েছেন এখন ঢাকার কেরানীগঞ্জের কারাগারে। কিন্তু কোন পথে রয়েছে বাদল ফরাজির কারামুক্তি?

আমিনুল ইসলাম মল্লিক
নিজস্ব প্রতিবেদক
১২ জুলাই ২০১৮, সময় - ০৮:২০


বাদল ফরাজি। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) ভারতের সমাজকর্মীদের আন্দোলনের প্রেক্ষিতে খুনের অভিযোগে যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত বাদল ফরাজিকে পাঠানো হয়েছে বাংলাদেশের কারাগারে। বন্দিবিনিময় চুক্তির ফলে বাদল রয়েছেন এখন ঢাকার কেরানীগঞ্জের কারাগারে। কিন্তু কোন পথে রয়েছে বাদল ফরাজির কারামুক্তি?

বাংলাদেশ সংবিধানের ১০২ অনুচ্ছেদ অনুযায়ী বাদলের কারামুক্তি চেয়ে হাইকোর্টে দায়ের করা রিট আবেদনটিও খারিজ করে দেওয়া হয়েছে। এখন খুলনার ছেলে বাদলের কারামুক্তিতে কী পদক্ষেপ বাকি, সে বিষয়ে প্রিয়.কমের সঙ্গে কথা হয় বিশিষ্টি আইনজ্ঞদের সঙ্গে।

আইনজ্ঞদের মতে, ভারতের সুপ্রিম কোর্টের দেওয়া রায় পুনর্বিবেচনা চেয়ে আবেদন করতে হবে। অথবা বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতির কাছে বাদলের অনুকম্পা চেয়ে আবেদন করতে হবে। বন্দিবিনিময় চুক্তি অনুযায়ী এ রকম নজির নেই যে রাষ্ট্রপতি কাউকে দয়া করে কারামুক্তির অনুমতি দিয়েছেন।

জানতে চাইলে সাবেক আইনমন্ত্রী ও সুপ্রিম কোর্টের সিনিয়র আইনজীবী ব্যারিস্টার শফিক আহমেদ প্রিয়.কমকে বলেন, ‘বন্দিবিনিময় চুক্তিতেই যদি বাদল এ দেশে এসেই থাকে তাহলেও সে ছাড়া পাবে। কারণ আমরা তাদের বন্দী ছেড়ে দিলাম, তারা আমাদের বন্দী ছেড়ে দেবে—এটাই নিয়ম। যেহেতু শর্তসাপেক্ষে বন্দিবিনিময় হয়েছে।’

শফিক আহমেদ আরও বলেন, ‘আমরা পত্রিকায় দেখেছি যে বাদল ফরাজি আর বাদল সিং দুই ব্যক্তি। বাদল ফরাজিকে বর্ডার থেকে ধরে নেওয়া হয়েছিল। সে গিয়েছিল তাজমহল দেখতে। বাদল সিংকে ধরা হয়নি। সে দেশের সব আদালত বাদলকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছে। যেটা দেখলাম খবরের কাগজে।

বাদল ফরাজির একটি ট্র্যাভেল ভিসা ছিল। তার পাসপোর্ট ছিল। সেটাকে তারা কীভাবে (ডিসভেলিপ) মিথ্যা প্রমাণ করল। ভারতের আদালত কীভাবে সিদ্ধান্ত নিল যে বাদলের পাসপোর্ট সাজানো? এখানে আমাদের দুর্বলতা আছে। ভারতের হাইকমিশনে বাদলের পাসপোর্ট পাঠিয়ে ভেরিফাই করা উচিত ছিল। মামলাতে দুর্বলতা আছে।

আমরা যদি বিশ্বস করি বাদল নির্দোষ, তাহলে বাংলাদেশ সরকার ভারেতর আদালতে রিভিউ আবেদন করতে পারবে। রিভিউটা যদি সঠিকভাবে তুলে ধরতে পারে সরকার, তাহলে সেখান থেকে খালাস পাবে বাদল। এ ছাড়া বাদলের কারামুক্তি হবে না। ভারতের আদালত রিভিউ আবেদন গ্রহণ না করলে কিছু করার নাই। দেখতে হবে বাদল কত বছর জেল খেটেছে। দেখতে হবে সে তখন ক্লাস এইটের ছাত্র ছিল। সে ওই সময় হিন্দি বা ইংলিশ বলতে পারে নাই। এখন তো সে পুরো ইংলিশ  বলতে পারে। সে অনেক শিক্ষিত হয়েছে। এ বিষয়গুলো বিবেচনা করে ভারতীয় আদালত বাদলকে খালাস দিতে পারে।’

ভারতীয় আদালত বাদলের বিষয়টি বিবেচনা না করলে বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি বাদলকে কারামুক্তি দিতে পারবেন বলে মনে করেন শফিক আহমেদ। আর এই পদ্ধতি অবলম্বন করতে হবে, অনেক পথ পাড়ি দিতে বাদলকে। তাহলে আইন মন্ত্রণালয়ের পর, প্রধানমন্ত্রী হয়ে রাষ্ট্রপতির কাছে আবেদন করতে হবে। তবে বন্দিবিনিময় চুক্তিতে এমন কোনো নজির নেই যেকোনো আসামিকে দেশের বাইরে আনা হলে তাকে বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি মুক্তি দিতে পারে।

মানবাধিকার কর্মী ও সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী মনজিল মোরসেদ প্রিয়.কমকে বলেন, ‘ভারত থেকে বাদলকে বন্দীর বিনিময়ে আনা হয়েছে। সে ভারতের আদালতের দৃষ্টিতে সাজাপ্রাপ্ত। তার কারামুক্তির জন্য এখন দুটি পথ বাকি। প্রথমত সাজা থেকে খালাস পেতে ভারতের আদালতে রিভিউ আবেদন করতে হবে। আর দ্বিতীয়ত যেহেতু বাদল এখন বাংলাদেশের কারাগারে রয়েছে, সে ক্ষেত্রে তাকে রাষ্ট্রপতির কাছে ক্ষমা চেয়ে আবেদন করতে হবে। রাষ্ট্রপতি তার আবেদন গ্রহণ করে মুক্তি দিতে পারবেন।’

বাদলের কারামুক্তি চেয়ে হাইকোর্টে রিট আবেদনকারী আইনজীবী হুমায়ুন কবির প্রিয়.কমকে বলেন, ‘রাষ্ট্রপক্ষ আদালতে বাদলের বিষয়ে কাগজপত্র দাখিল করেছে। সেগুলো পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে আদালত আমাদের রিট খারিজ করে দিয়েছে।

ভারতের আদালত বাদলকে একটি হত্যা মামলায় সাজা দিয়েছে। বন্দিবিনিময় চুক্তির আলোকেই বাদল ফরাজিকে হস্তান্তর করা হয়েছে। বাদল ফরাজি ভারতের সেই হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে সম্পৃক্ত নয়—এমন বোঝা যায়নি ভারতের আদালতের রায়ের কাগজ দেখে। তার নাম-পরিচয় নিয়ে যে ভুল বোঝাবুঝি ছিল সেটি পরিষ্কার হওয়া গেছে।’

বাদল ফরাজি খুলনার বাসিন্দা। ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যে বন্দিবিনিময় চুক্তিকে সামনে রেখে বাদল ফরাজিকে দেশে আনা হয়েছে জানিয়ে হুমায়ুন কবির বলেন, ‘কারামুক্ত হতে বাদল ফরাজির একটি মাত্র পথ খোলা আছে, সেটি হলো একটি মার্জি পিটিশন দায়ের করা। আমরা পত্রপত্রিকার রিপোর্ট অনুযায়ী আদালতে রিট করেছি।

কিন্তু ভারতীয় আদালতের রায় যেভাবে উত্থাপন করেছে রাষ্ট্রপক্ষ, সেখান থেকে দেখা যায়, পরিচয়ের প্রশ্নটা ভারতীয় হাইকোর্ট আমলে নিয়েছে। ভারতীয় আদালত সুস্পষ্টভাবে বলেছে যে এটা প্রমাণিত বিষয় বাদল ফরাজি খুন হওয়া মহিলার চাকর ছিলেন। সেই বিষয় বিবেচনা করেই তাকে সাজা দেওয়া হয়েছে। একইসঙ্গে আদালত অভিমত দিয়েছে, বাদলের পাসপোর্টটি ছিল বানানো। এ কারণে তাকে সাজা দেওয়া হয়েছে।’

গত শুক্রবার বিকেলে দিল্লি থেকে বাদল ফরাজিকে বাংলাদেশ পুলিশের একটি দল বাংলাদেশ নিয়ে আসে। এরপর কেরানীগঞ্জে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে তাকে রাখা হয়। তাকে বন্দিবিনিময় চুক্তির অধীনে ফেরত আনা হয়েছে বলে জানায় কারা কর্তৃপক্ষ।

জানা যায়, ২০০৮ সালের ৬ মে দিল্লির অমর কলোনিতে এক বৃদ্ধাকে খুনের অভিযোগে বাদল সিং নামে এক ব্যক্তিকে খুঁজছিল পুলিশ। তাকে গ্রেফতার করতে সীমান্তেও সতর্কতা জারি করে। দুজনের নামের মিল থাকায়  ২০০৮ সালের জুলাই মাসে ভারতে যাওয়ার পথে বাংলাদেশি নাগরিক বাদল ফরাজিকে আটক করে বিএসএফ। পরে ওই খুনের মামলায় ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩০২ ধারা অনুযায়ী বাদলকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

বাদল ফরাজি বাগেরহাটের আবদুল খালেক ফরাজি ও শেফালি বেগমের ছেলে। তখন টিএ ফারুক স্কুলের অষ্টম শ্রেণির ছাত্র ছিল বাদল। তার ইচ্ছা ছিল ভারতের তাজমহল দেখার৷ সেই ইচ্ছা পূরণের জন্যই ভারতে যাওয়ার সময় ২০০৮ সালে বেনাপোল ইমিগ্রেশন কার্যালয়ে সব প্রক্রিয়া শেষ করে ভারতের হরিদাসপুর সীমান্তে  প্রবেশ করে। এরপরই বাদল ফরাজিকে আটক করে বিএসএফ। হিন্দি বা ইংরেজি ভাষায় কথা বলতে না পারার কারণে বিএসএফের কর্মকর্তাদের বোঝাতে পারেননি যে তিনি খুনের সঙ্গে জড়িত।

প্রিয় সংবাদ/আজাদ চৌধুরী

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন
রাতে ডেকে নিয়ে সকালে গুলিবিদ্ধ মরদেহ ফেরত
আয়েশা সিদ্দিকা শিরিন ২১ জুলাই ২০১৮
কুমিল্লায় বাস উল্টে ২ যাত্রী নিহত
আয়েশা সিদ্দিকা শিরিন ২১ জুলাই ২০১৮
রাজধানীতে প্রতি মাসে বেড়েছে ১৫০০ ব্যক্তিগত গাড়ি
আয়েশা সিদ্দিকা শিরিন ২১ জুলাই ২০১৮
‘নারীদের জন্য নিরাপদ নয় ভারত’
সৌরভ মাহমুদ ২১ জুলাই ২০১৮
নারায়ণগঞ্জে দুই নৈশ প্রহরীকে হত্যা করে ডাকাতি
ইমামুল হাসান স্বপন ২১ জুলাই ২০১৮
রিটার্নিং কর্মকর্তার দপ্তরে ৫৩ অভিযোগ
রিটার্নিং কর্মকর্তার দপ্তরে ৫৩ অভিযোগ
বণিক বার্তা - ১ দিন, ১৩ ঘণ্টা আগে
মওদুদের এক মামলায় আদালত বদলির নির্দেশ
মওদুদের এক মামলায় আদালত বদলির নির্দেশ
ইনকিলাব - ২ দিন, ১১ ঘণ্টা আগে
ট্রেন্ডিং