(প্রিয়.কম) "আইকন"সহ বাংলালিংকের আরো কয়েকটি সেবা বন্ধ করে দিচ্ছে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসি। ইতিমধ্যে তাদের একটি সেবা প্যাকেজ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। ‘আইকন’ বন্ধ করার জন্যে বিটিআরসি মৌখিকভাবে বলেছে। সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে এসব খবর। এসব নিয়ে দেশের দ্বিতীয় গ্রাহক সেরা মোবাইল ফোন অপারেটর বাংলালিংক বেশ চাপের মধ্যে আছে বলেও জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।
বেশ কিছুদিন আগে বাংলালিংক তার প্রিপেইড গ্রাহকদের জন্যে একটি অফার দিয়েছিল যেখানে দিনে দুই টাকা দিলে যে কোন বাংলালিংকে ৪৫ পয়সা মিনিটে কথা বলতে পারত। তখন বাংলালিংক টু বাংলালিংক প্রতি মিনিট কল রেট ছিল ৯৮ পয়সা। দিনে দুই টাকা খরচে সেটি ৪৫ পয়সায় নামিয়ে আনায় গ্রাহকের সাড়াও অনেক বেশী ছিল। বাংলালিংকের বেশ কয়েকজন শীর্ষ পর্যায়ের কর্মকর্তা জানিয়েছেন, সাম্প্রতিক সময়ে এটিই ছিল তাদের সাড়া জাগানো অফার। মাত্র দুই মাসে ১৮ লাখ গ্রাহক ওই অফার গ্রহনও করেছিল। কিন্তু কোনো কারণ না দেখিয়েই বিটিআরসি এটি বন্ধ করে দিয়েছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বাংলালিংকের এক কর্মকর্তা জানান, বিটিআরসি থেকে লিখিত অনুমোদন না নিলেও মৌখিক অনুমোদনের ভিত্তিকেই অফারটি দিয়েছিলেন তারা। কিন্তু আবার গ্রাহকদেরকে কোনো ঘোষণা না দিয়ে মৌখিক নির্দেশেই বন্ধ করে দিতে হয়েছে এটি। তবে ওই কর্মকর্তার প্রশ্ন, বিটিআরসি গ্রাহক স্বার্থের কথা একবারের জন্যেও ভাবল না, এটিই তাদের দুঃখ। এদিকে বাংলালিংক তাদের আইকনকে ব্যতিক্রমী এক ব্র্যান্ড হিসেবে উপস্থাপনের চেষ্টা করছে। এখানে মাসে কোনো গ্রাহক তিন হাজার টাকার ওপরে বিল তুললে তিনি রাজধানী ঢাকা, বন্দর নগরী চট্টগ্রাম এবং পর্যটন নগরী কক্সবাজারের বেশ কিছু হোটেল ও রেষ্টুরেন্টে বড় ধরণের ডিসকাউন্ট পেতে পারেন। একই সঙ্গে আরো বেশ কিছু সেবার ক্ষেত্রেও আইকন ডিসকাউন্ট পাওয়ার ঘোষণা দেওয়া হয়। কিন্তু এখন এতো সব অফারকে অবৈধ বলেই মনে করছে বিটিআরসি। বিটিআরসি’র এক মহাপরিচালক এ বিষয়ে বলেন, গ্রাহকদের দিয়ে বেশী কথা বলিয়ে অনেকে বিল তোলার বিনিময়ে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের বিলে ডিসকাউন্ট দেওয়া টেলিকম সেবার সঙ্গে সাজুজ্য নয়। সে কারণে এটি বন্ধ করা প্রয়োজন বলে মনে করছে বিটিআরসি।