(এম.মুস্তাফিজ রাসেল, পাবনা প্রতিনিধি) শারীরিক প্রতিবন্ধীদের জীবনকে আরো একটু সহজ করতে নতুন প্রযুক্তি উদ্ভাবন করেছেন এক তরুণ। পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র তরুণ দেবনাথের উদ্ভাবিত এ স্মার্ট হুইল চেয়ার শারীরিক প্রতিবন্ধী এবং পক্ষাঘাতগ্রস্থ ব্যক্তিদের জীবন পাল্টে দেবে। গত ১১ জুন অনুষ্ঠিত দেশের প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের উদ্ভাবন মেলায় প্রথম স্থান অর্জন করে তরুণ দেবনাথের উদ্ভাবিত হুইল চেয়ার । ‘ইন্টারন্যাশনাল রোবটস গট ফ্রিডোম’ ক্যাটাগরিতে প্রথম স্থান অধিকার করে প্রজেক্টটি। এই হুইল চেয়ারটি মূলত শারীরিক প্রতিবন্ধী এবং পক্ষাঘাতগ্রস্থ ব্যক্তিদের জন্য সহায়ক হবে। চালানো যাবে স্মার্টফোনের মাধ্যমে। চেয়ারে বসে থাকা অবস্থায় প্রতিবন্ধী ব্যক্তিটি হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়লে বার্তা পৌছে যাবে স্বজনদের কাছে। ইনফরমেশন এন্ড কমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের চতুর্থ বর্ষের ছাত্র তরুণ দেবনাথ জানান, বাংলাদেশের সাধারণ মানুষের কথা ভেবেই এ চেয়ার উদ্ভাবন করেছেন তিনি। তিনি বলেন ‘বিদেশ থেকে এই ধরনের চেয়ার আমদানি করতে গেলে তিন থেকে চার লক্ষ টাকা খরচ হবে। সেখানে আমাদের খরচ হয়েছে মাত্র ৪০ থেকে ৫০ হাজার টাকা। দেশীয় প্রযুক্তি ব্যবহার করে এই প্রজেক্টটি দেশের সাধারণ মানুষের ক্রয়সীমার মধ্যে নিয়ে আসা সম্ভব। আমি সরকারের সহযোগিতা প্রত্যাশা করছি। আমাকে সহযোগিতা করলে আরও অল্প ব্যায়ে এই স্মার্ট হুইল চেয়াটি বানানো সম্ভব হবে।’ গত ১১ জুন রাজধানীর খামারবাড়িতে কৃষিবিদ ইনষ্টিটিউটের মিলনায়তনে এই প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়। এখানে ৫০ টি বিশ্ববিদ্যালয় ২০ টি স্কুল ও কলেজের ২০০টি দল তাদের নতুন উদ্ভাবন নিয়ে অংশ নিয়েছিল।