ছবি সংগৃহীত

অনুদান কমিটিতে ‘হরিজন’

সমাজের সুবিধাবঞ্চিত হরিজন সম্প্রদায় কেন্দ্র করে নির্মিত হয়েছে সরকারি অনুদানের ছবি হরিজন। ছবিটি বর্তমানে মন্ত্রণালয় অনুদান কমিটিতে জমা রয়েছে।

priyo.com
লেখক
প্রকাশিত: ১৮ এপ্রিল ২০১৩, ০৬:২৪
আপডেট: ১৬ আগস্ট ২০১৮, ২০:০০


ছবি সংগৃহীত
সমাজের সুবিধাবঞ্চিত হরিজন সম্প্রদায় কেন্দ্র করে নির্মিত হয়েছে সরকারি অনুদানের ছবি হরিজন। ‘হরিজন’ এর শুটিংয়ের কাজ শেষ হয়েছে গত বছরের শেষদিকে। ছবিটি বর্তমানে মন্ত্রণালয় অনুদান কমিটিতে জমা রয়েছে। ছবিটির কাহিনী, সংলাপ, গীত, চিত্রনাট্য ও পরিচালনা করেছেন মির্জা সাখাওয়াৎ হোসেন। ছবিটি খুব শিগগিরই সেন্সরে যাবে বলে জানিয়েছেন পরিচালক। ছবিটির কাহিনীতে দেখা যাবে, দরিদ্র মঙ্গল হরিজন মিউনিসিপ্যালটির একটি চাকরির জন্য চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়। তার স্ত্রী ভাগ্যলক্ষী একটি বাজার ঝাড়ু দিয়ে যা রোজগার করে তাতেই কোনোমতো সংসার চলে। তাদের কিশোরী মেয়ে রাণীকে পনের টাকা দিতে পারে না বলে তার স্বামী রঘু তাকে তাড়িয়ে দেয়। তখন গর্ভবতী কিশোরী রাণী বাবার কাছে ফিরে আসে। তারপর সন্তান জন্ম দিতে গিয়ে মারা যায় রাণী। তারপর কাহিনী মোড় নেয় অন্যদিকে। আর একটি পরিবার রবিডোমের হরিজন পল্লীর সংসার জীবনেরও আরেকটি চিত্র তুলে ধরেছেন পরিচালক। হরিজন সম্প্রদায়ের আর্থ-সামাজিক, কৃষ্টি, সংস্কৃতি কিছুটা ভিন্ন ধারার। জীবনের অনেকগুলো বছর তাদের জীবনগাঁথা, সুখ-দুঃখ দেখে ছবি নির্মাণ করছেন মির্জা সাখাওয়াৎ হোসেন।
ছবিটিতে অভিনয় করেছেন- জয়ন্ত চট্টোপাধ্যায়, রোকেয়া প্রাচী, মামুনুর রশীদ, শুভরাজ, মির্জা আফরিন, আব্দুর রহমান কিনা, নির্জনা, আরজুমান্দ আরা বকুলসহ আরো অনেকে। ঝংকারের সঙ্গীত পরিচালনায় এই ছবিতে গান গেয়েছেন রুনা লায়লা, এণ্ড্রু কিশোর, কনকচাঁপা, মমতাজ, বাঁধন ও ঝংকার। ছবিটির শুটিং হয়েছে টাঙ্গাইল ও ঢাকার হরিজন পল্লীসহ বিভিন্ন স্থানে। পরাবৃত্ত, ঘরে ফেরা, একজন মফিজউদ্দিনসহ আরো অনেক নাটক নির্মাণ করে এবারই প্রথম ছবি নির্মাণে হাত দিয়েছেন মঞ্চ ও বেতারের শিল্পী মির্জা সাখাওয়াৎ হোসেন। ‘হরিজন’ ছবিটি নিয়ে পরিচালক মির্জা সাখাওয়াৎ হোসেন জানান, ‘আমি ডিজিটালভাবে ছবিটির মুক্তি দিতে চাওয়ায় আমাদের বাজেটের চেয়েও অনেক বেশি খরচ হয়েছে। তারপরও সুবিধাবঞ্চিত হরিজন সম্প্রদায়কে ঘিরে কাজ করার ইচ্ছে ছিল। সেই ইচ্ছে পূরণ হয়েছে। ছবিটি বর্তমানে সরকারী অনুদান কমিটিতে জমা রয়েছে। খুব শিগগিরই সেন্সরে যাবে বলে আশা করছি। আশা করি, দর্শকরা এই ছবিটি দেখে অনেক কিছু জানতে পারবে।` উল্লেখ্য, ২০১০-২০১১ অর্থবছরে সরকারি অনুদানের ছবি হরিজনের নির্মাণকাজ শুরু হয়েছে ২০১১ সালের আগষ্ট মাসে।

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন
বৃদ্ধাশ্রমের আনন্দের ভাগীদার পাপী মনা
তাশফিন ত্রপা ১৩ ডিসেম্বর ২০১৮
ভালো মানুষ হয়ে, ভালো নির্মাতা হতে চাই : ইউসুফ
তাশফিন ত্রপা ১৩ ডিসেম্বর ২০১৮
প্রিয় অবসর: ১৩ ডিসেম্বর ২০১৮
প্রিয় ডেস্ক ১৩ ডিসেম্বর ২০১৮
দেশে ফিরেছেন ‘মিস বাংলাদেশ’ ঐশী
তাশফিন ত্রপা ১২ ডিসেম্বর ২০১৮
বিজয় দিবসের গানে আবদুল হাদী
নিজস্ব প্রতিবেদক ১২ ডিসেম্বর ২০১৮
স্পন্সরড কনটেন্ট