ছবি সংগৃহীত

ইবিতে ছাত্রলীগের জঙ্গি বিরোধী মিছিল, শিবির সন্দেহে দুই ছাত্রকে মারধর

মিছিলটি প্রশাসন ভবন চত্বর ঘুরে ক্যাম্পাসের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে বিভিন্ন অনুষদে গিয়ে শোডাউন দিতে থাকে।

priyo.com
লেখক
প্রকাশিত: ২০ জুলাই ২০১৬, ১২:৩৮ আপডেট: ০৫ জুন ২০১৮, ১৪:৫৭
প্রকাশিত: ২০ জুলাই ২০১৬, ১২:৩৮ আপডেট: ০৫ জুন ২০১৮, ১৪:৫৭


ছবি সংগৃহীত


ইলিয়াস মেহেদী, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি
(প্রিয় ক্যাম্পাস) দেশে সম্প্রতি ঘটে যাওয়া জঙ্গি হামলার প্রতিবাদে জঙ্গি বিরোধী মিছিল করেছে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ। মিছিল শেষে শিবির সন্দেহে দুই শিক্ষার্থীকে মারধর করে ছাত্রলীগের কর্মীরা।

বুধবার বেলা সাড়ে ১১টার টায় ছাত্রলীগের সভাপতি সাইফুল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক অমিত কুমার দাশের নেতৃত্বে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটক থেকে জঙ্গি বিরোধী মিছিল বের হয়। মিছিলটি প্রশাসন ভবন চত্বর ঘুরে ক্যাম্পাসের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে বিভিন্ন অনুষদে গিয়ে শোডাউন দিতে থাকে।

সেসময় শিবির কর্মী সন্দেহে বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুষদ ভবনের নীচ তলা থেকে ইংরেজি বিভাগের ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের ছাত্র আবু সালেহকে মারধর করে ছাত্রলীগের কর্মীরা। এছাড়া আইন বিভাগের ২০১১-১২ শিক্ষাবর্ষের সাহেদ হোসেন নামের এক ছাত্রকে মারধর করে ছাত্রলীগের কর্মীরা। ওই দুই ছাত্রকে শিবির সন্দেহে মারধর করা হয়েছে বলে জানা গেছে।

তবে আহত শিক্ষার্থী আবু সালেহ বলেন ‘আমি কোন রাজনীতি করি না। ছাত্রলীগের মিছিল থেকে আকস্মিক ভাবে আমার উপর হামলা করে।’ এদিকে আইন বিভাগের সাহেদ হোসেন বলেন ‘শিবিরের সাথে আমার কোন সম্পর্ক নেই। আমি কোন রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত নয়। ব্যক্তিগত আক্রোশের বশঃবর্তি হয়ে তারা আমাকে মারধর করে।’

এব্যাপারে ছাত্রলীগের সভাপতি সাইফুল ইসলাম বলেন ‘জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসীদেরকে রুখে দিতে ছাত্রলীগের বিকল্প নেই। কুচক্রি, কূপমন্ডুক সন্ত্রাসীদের প্রতিহত করতে ছাত্রলীগ সোচ্চার রয়েছে। যে দুজনকে মারধর করা হয়েছে তারা শিবির সক্রিয় সদস্য। ক্যাম্পাস ও সরকার বিরোধী নানা কর্মকান্ডে তারা জড়িত।’

এব্যাপারে প্রক্টর ড. মাহবুবর রহমান বলেন‘ছাত্রলীগের জঙ্গি বিরোধী মিছিল থেকে শিবির সন্দেহে দুই শিক্ষার্থীকে মারধর করা হয়েছে বলে শুনেছি। খোঁজ খবর নিয়ে এব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।