ছবি সংগৃহীত

এসিএম-আইসিপিসি ঢাকা রিজিওনাল ২০১২ : সাংহাই জিয়াও তুং বিশ্ববিদ্যালয় চ্যাম্পিয়ন ও বুয়েট রানার্স আপ

<strong>(প্রিয় টেক) </strong> রেডিসন ব্ল– হোটেলে হল রুমের এক পাশে মনোযোগ দিয়ে কাগজে কিছু একটা লেখার চেষ্টা করছে বুয়েটের এক প্রতিযোগী। আরেক পাশেই একটি সমস্যার সমাধান নিয়ে ব্যস্ত সময় পার করছে আরো কয়েক জন প্রতিযোগী। শুধু এপাশ, ওপাশেই না পুরো হল জুড়েই একটি উৎসব আমেজ বিরাজ করছিলো। দিনটি ৮ ডিসেম্বর। আনন্দ-উৎসব মুখর পরিবেশের মধ্যে দিয়ে অনুষ্ঠিত হয় এশিয়ার সবচেয়ে বৃহৎ প্রোগ্রামিং কনটেস্ট এসোসিয়েশন অব কম্পিউটিং মেশিনারিজ-ইন্টারন্যাশনাল কলেজিয়েট প্রোগ্রামিং কনটেস্ট (এসিএম -আইসিপিসি)। এশিয়া অঞ্চলের ঢাকা সাইটের এবারের প্রতিযোগিতাটির আয়োজন করে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি। <a href="http://tech.priyo.com/news/business/2012/12/11/7366.html"><img src="http://img.priyo.com/files/201212/DiU.640.jpg" alt= /></a>

techadmin
লেখক
প্রকাশিত: ১১ ডিসেম্বর ২০১২, ১৭:২২
আপডেট: ১৮ এপ্রিল ২০১৮, ০৬:২৩


ছবি সংগৃহীত
(প্রিয় টেক) রেডিসন ব্ল– হোটেলে হল রুমের এক পাশে মনোযোগ দিয়ে কাগজে কিছু একটা লেখার চেষ্টা করছে বুয়েটের এক প্রতিযোগী। আরেক পাশেই একটি সমস্যার সমাধান নিয়ে ব্যস্ত সময় পার করছে আরো কয়েক জন প্রতিযোগী। শুধু এপাশ, ওপাশেই না পুরো হল জুড়েই একটি উৎসব আমেজ বিরাজ করছিলো। দিনটি ৮ ডিসেম্বর। আনন্দ-উৎসব মুখর পরিবেশের মধ্যে দিয়ে অনুষ্ঠিত হয় এশিয়ার সবচেয়ে বৃহৎ প্রোগ্রামিং কনটেস্ট এসোসিয়েশন অব কম্পিউটিং মেশিনারিজ-ইন্টারন্যাশনাল কলেজিয়েট প্রোগ্রামিং কনটেস্ট (এসিএম -আইসিপিসি)। এশিয়া অঞ্চলের ঢাকা সাইটের এবারের প্রতিযোগিতাটির আয়োজন করে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি। / আয়োজনে প্রতিযোগিতার পাশাপাশি দিনব্যাপী চলে তথ্যপ্রযুক্তির নানা আয়োজন। অংশগ্রহণকারী দেশি বিদেশি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ৩ জন করে সদস্যের ১৫০টি দল এতে অংশগ্রহণ করে। যার মধ্যে বাংলাদেশের ৬৪ টি সরকারি ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় এবং আইটি ইন্সটিটিউটের শিক্ষার্থীরা ছিল। চীনের ২টি এবং ভারতের ১টি দল অংশগ্রহন করে এই প্রতিযোগিতায়। ৮ ডিসেম্বর সকালে প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তফা ফারুক মোহাম্মদ। এ সময় উপস্থিত ছিলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি সচিব মো. নজরুল ইসলাম খান, বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রাষ্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান মো. সবুর খান, উপাচার্য অধ্যাপক ড. এম লুৎফর রহমান, কনটেষ্ট ডিরেক্টর অধ্যাপক ডঃ সৈয়দ আকতার হোসেন প্রমুখ। / উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের পরপরই শুরু হয় মূল প্রতিযোগিতা। সকাল সাড়ে দশটা থেকে বিকাল সাড়ে চারটা পর্যন্ত চলে একটানা প্রতিযোগিতা। প্রতিযোগীদের মোট ১১ টি প্রোগামিং সমাধান করতে দেওয়া হয় । আর যার ফলাফল তাৎক্ষণিকভাবে বড় পর্দায় প্রদির্শিত হয়। প্রতিযোগিতায় চীনের সাংহাই জিয়াতুং বিশ্ববিদ্যালয়ের মিথরিল দল সাতটি প্রোগ্রামিং সমস্যার সমাধান করে চ্যাম্পিয়ন হয়। সমান সংখ্যক সমাধান দিয়ে সময়ের ব্যবধানে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের চোকার দল দল রানার্স আপ এবং চীনের ফুদান ইউনিভার্সিটি এর সিয়ারপিন্সকী দল তৃতীয় স্থান অধিকার করে। চ্যাম্পিয়ন দলের সদস্যরা হলেন, সাং জিংবো, জিন বিন, ও গাউ জিয়াংজু এবং রানার্স আপ দলের সদস্যরা হলেন, মো. হাফিজ উদ্দিন, মো. নাজমুল হাসান, প্রসেনজিৎ বড়–য়া। তৃতীয় স্থান অধিকারী ফুদান ইউনিভার্সিটিয়ের সিয়ারপিন্সকী দল এর সদস্যরা হলেন, ইউ রংঘুই, লিউ রেনইউ ও ঝাউ জুন।এ প্রতিযোগিতার সেরা তিনটি দল আগামী জুনের ৩০ থেকে জুলাইয়ের ৪ তারিখে রাশিয়ার সেইন্ট পিটার্সবার্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বাগতিকতায় অনুষ্ঠিত ওয়ার্ল্ড ফাইনালস ২০১৩ এর মূলপর্বে অংশগ্রহণের সুযোগ পাবে। / প্রতিযোগীতায় বেশিরভাগ দল ৬ টি থেকে ৫ টি সমস্যার সমাধান করে। শাহাজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অংশ নেয় মোট ৮ টি দল। যাদের মধ্যে প্রায় ৩ টি দল ৬ টির সমাধান করতে সক্ষম হয়। প্রশ্নের ধরণ সম্পর্কে জানতে চাইলে তারা বলে, যেহেতু আন্তর্জাতিক কনটেস্ট একটু কঠিন হবেই। তবে, প্রথম দিকের ৫ টি মোটামুটি প্রচলিত ধারারই ছিল, ৬ নম্বরটাও সমাধানযোগ্য ছিল। কিন্তু পরেরগুলো জটিল ছিল। তারা আরো বলেন, দেশে এই রকম আন্তজার্তিক মানের আরো বেশী প্রতিযোগীতার আয়োজন করা উচিত। এসিএম-আইসিপিসির এটা ১৬তম আয়োজন। আর বাংলাদেশেও এতো বড় পরিসরে প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতার আসর এই প্রথম। সন্ধ্যায় কনটেস্টের সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন তথ্য মন্ত্রী হাসানুল হক ইনু। বিশেষ অতিথি ছিলেন সাবের হোসেন চৌধুরী, অ্যামেরিকান চেম্বার অব কমার্স বাংলাদেশের সভাপতি আফতাবুল ইসলাম এবং সার্ক চেম্বারের প্রাক্তন সভাপতি আনিসুল হক। এ সময় বিজয়ীদের মাঝে সম্মাননা চেক এবং ক্রেস্ট তুলে দেওয়া হয়। / অনুষ্ঠানে বিশিষ্ট সংগীত শিল্পী মাহমুদুজ্জামান বাবু একটি দেশাÍকবোধক গান পরিবেশন করেন। এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষার্থীরা ডিজিটাল ভাবনায় তাদের পরিবেশনা উপস্থাপন করেন। সবশেষে আলিফ আলাউদ্দিনের সংগীত পরিবেশনার মধ্যে দিয়ে শেষ হয় এসিএম-আইসিপিসির অনুষ্ঠান। এ আয়োজনের প্লাটিনাম পার্টনার ছিল আমেরিকার ক্লাউড স্পোকস্ ডট কম, সিলভার থেরাপ (বিডি) লিমিটেড., নেটওয়ার্ক পার্টনার গাজী কমিউনিকেশন লিমিটেড এবং হার্ডওয়্যার সাপোর্ট পার্টনার গ্লোবাল ব্র্যান্ড লিমিটেড ।

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন
স্পন্সরড কনটেন্ট
ইবি শিক্ষক সমিতিতে আওয়ামীপন্থীদের জয়
ইবি শিক্ষক সমিতিতে আওয়ামীপন্থীদের জয়
এনটিভি - ২ দিন, ৫ ঘণ্টা আগে
শহীদ বুদ্ধিজীবী স্মৃতিসৌধ | কালের কণ্ঠ
শহীদ বুদ্ধিজীবী স্মৃতিসৌধ | কালের কণ্ঠ
কালের কণ্ঠ - ২ দিন, ৭ ঘণ্টা আগে
লেনদেন | কালের কণ্ঠ
লেনদেন | কালের কণ্ঠ
কালের কণ্ঠ - ২ দিন, ৭ ঘণ্টা আগে
ফিন্যান্স ও ব্যাংকিং | কালের কণ্ঠ
ফিন্যান্স ও ব্যাংকিং | কালের কণ্ঠ
কালের কণ্ঠ - ২ দিন, ৭ ঘণ্টা আগে
জীববিজ্ঞান প্রথম পত্র | কালের কণ্ঠ
জীববিজ্ঞান প্রথম পত্র | কালের কণ্ঠ
কালের কণ্ঠ - ২ দিন, ৭ ঘণ্টা আগে
বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় | কালের কণ্ঠ
বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় | কালের কণ্ঠ
কালের কণ্ঠ - ২ দিন, ৭ ঘণ্টা আগে