ছবি সংগৃহীত

জঙ্গিবাদ প্রতিরোধের ডাক পশ্চিমবঙ্গের ইমামদের

এক সভায় ভারতের পশ্চিমবঙ্গের ইমাম ও মোয়াজ্জিনরা জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসের নিন্দা করে সাধারন মানুষকে তার প্রতিরোধে এগিয়ে আসার ডাক দিয়েছেন। মানুষকে সচেতন করতে এটাই সেখানকার আলেমদের প্রথম আহ্বান নয়।

priyo.com
লেখক
প্রকাশিত: ২০ অক্টোবর ২০১৪, ০৩:২২ আপডেট: ২৬ মার্চ ২০১৮, ১৬:০৮
প্রকাশিত: ২০ অক্টোবর ২০১৪, ০৩:২২ আপডেট: ২৬ মার্চ ২০১৮, ১৬:০৮


ছবি সংগৃহীত
(প্রিয়.কম) এক সভায় ভারতের পশ্চিমবঙ্গের ইমাম ও মোয়াজ্জিনরা জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসের নিন্দা করে সাধারন মানুষকে তার প্রতিরোধে এগিয়ে আসার ডাক দিয়েছেন। মানুষকে সচেতন করতে এটাই সেখানকার আলেমদের প্রথম আহ্বান নয়। এর আগে বাল্যবিবাহ রোধ বা পোলিও নিয়ে সচেতন করতে একাধিক বার সভা করেছেন ইমামরা। রোববার বিকেলে মুর্শিদাবাদের জঙ্গিপুর মুনিরিয়া হাই মাদ্রাসায় ওই সভা আয়োজিত হয়। সভায় বক্তারা বলেন, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ সভ্যতার শত্রু। ইসলাম কখনো মানুষ মারার কথা বলে না। সভায় মাওলানা রফিকুল হাসান বলেন, ইমামরা গ্রামের নেতা। তাদের শুধু মসজিদে আটকে থাকলে হবে না। দিনের মধ্যে পাঁচ ওয়াক্তে বড় জোর ৬০ মিনিট নামাজে ব্যস্ত থাকেন তারা। বাকি ২৩ ঘণ্টা গ্রামের দায়িত্ব নিতে হবে ইমাম ও মোয়াজ্জিনদেরই। তার কথায়, ইমামরা গ্রামের মাথা। মসজিদের পাশের বাড়িতে যে শিশু রয়েছে, তার শিক্ষার দায়িত্বও নিতে হবে ইমামকে। গ্রামের সম্প্রীতি রক্ষায় ইমামকেই এগিয়ে যেতে হবে। ইমাম যদি সচেতন থাকেন, গ্রামের মধ্যে দুষ্কৃতীরা সন্ত্রাস চালাতে পারবে না। উদ্যোক্তাদের অন্যতম আব্দুল ওয়াহেদ বলেন, গ্রামের সব মানুষ সাধারণত ইমামের পরিচিত হন। সে ক্ষেত্রে বাইরে থেকে কেউ গ্রামে এলে ইমামদের চোখে তা পড়বেই। ইমামরা সজাগ ও সতর্ক রয়েছেন। তবে তার কথায়, সীমান্ত পেরিয়ে কোন দিক দিয়ে কী ভাবে কারা আসে, তা জানার কথা পুলিশ ও বিএসএফের। জঙ্গিপুরের বিধায়ক মুহম্মদ সোহরাব জানান, কিছু মানুষ বিভ্রান্ত হয়ে সন্ত্রাসের সৃষ্টি করছে। ইমামদের দায়িত্ব তাদের সেই বিভ্রান্তির পথ থেকে মুক্ত করা। স্বাস্থ্য, শিক্ষা ও ওয়াকফ বোর্ড নিয়ে সচেতন করতে ওই সভা আয়োজিত হলেও রাজ্যে সাম্প্রতিক সন্ত্রাসবাদী কার্যকলাপের উল্লেখ করে বক্তারা সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে সকলে রুখে দাঁড়াতে আহ্বান জানান। ওই সভায় রাজ্য ওয়াকফ বোর্ডের সভাপতি প্রাক্তন বিচারপতি আব্দুল গনি, ওয়াকফ বোর্ডের সদস্য মাওলানা রফিকুল হাসান, শিক্ষাবিদ এম এ হান্নান, মাওলানা আব্দুল খালেক, ইমাম সংগঠনের রাজ্য সভাপতি আব্দুল তৈয়ব, রঘুনাথগঞ্জ থানার আইসি সৈয়দ রেজাউল কবির, কংগ্রেসের তিন বিধায়ক-সহ উপস্থিত ছিলেন এলাকার কয়েকশো ইমাম ও মোয়াজ্জিন। মাওলানা আব্দুল তৈয়ব তাদের উদ্দেশে বলেন, “প্রত্যেকে ভাবুন আমাদের দেশ ভারত। এই দেশকে ব্রিটিশদের হাত থেকে মুক্ত করতে প্রাণ দিয়েছেন শত শত মুসলিমও।”- ওয়েবসাইট।