ছবি সংগৃহীত

জয়পুরহাটে বিচারক ও আইনজীবীদের হত্যার হুমকি দিয়ে চিঠি

জয়পুরহাট জেলা ও দায়রা জজসহ সব বিচারক এবং ৪০ জন আইনজীবীকে হত্যার হুমকি দেওয়ার অভিযোগে জয়পুরহাট সদর থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করা হয়েছে।

priyo.com
লেখক
প্রকাশিত: ১১ আগস্ট ২০১৬, ১৩:৩১ আপডেট: ১১ জুন ২০১৮, ২২:৩০
প্রকাশিত: ১১ আগস্ট ২০১৬, ১৩:৩১ আপডেট: ১১ জুন ২০১৮, ২২:৩০


ছবি সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) জয়পুরহাট জেলা ও দায়রা জজসহ সব বিচারক এবং ৪০ জন আইনজীবীকে হত্যার হুমকি দেওয়ার অভিযোগে জয়পুরহাট সদর থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করা হয়েছে। জয়পুরহাট জেলা ও দায়রা জজ মো. আবদুর রহিম আজ বৃহস্পতিবার জিডি করেন।

জিডি ও আদালতের একটি সূত্রে জানা গেছে, গত বুধবার ডাকযোগে জেলা ও দায়রা জজ আবদুর রহিমের নামে একটি চিঠি আসে। চিঠির ভেতরে কাফনের সাদা এক টুকরা কাপড়ও রয়েছে। হাতে লেখা ওই চিঠিতে কাফনের কাপড় পাঠানোর কথা উল্লেখ করা হয়েছে। চিঠিতে জয়পুরহাট জেলা জজসহ বিচারকদের হত্যা, আদালত ভবন, সোনালী ব্যাংক, জেলা আইনজীবী সমিতি ভবন, মন্দিরসহ শহরের গুরুত্বপূর্ণ ১৮টি স্থাপনা বোমা মেরে উড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দেওয়া হয়েছে। ওই চিঠিতে কোনো আইনজীবীর নাম উল্লেখ না করে ৪০ জন আইনজীবীকেও হত্যা করার হুমকি দেওয়া হয়। 

চিঠিতে জঙ্গি হামলা অব্যাহত থাকার কথা উল্লেখ করে লেখা হয়েছে, ঢাকার কল্যাণপুরে তাদের নয়জন সদস্য নিহত হয়েছে। এ জন্য কাউকে ছাড়া হবে না। 

চিঠির অপর পৃষ্ঠার শেষে উল্লেখ করা হয়েছে, নতুনভাবে সংসদ নির্বাচন দিতে হবে, অচিরেই তা না দিলে দেশে জঙ্গি হামলা চলতেই থাকবে।

এ ঘটনায় জয়পুরহাট জেলা ও দায়রা জজ মো. আবদুর রহিম আজ জজ আদালত, মুখ্য বিচারিক হাকিম, আদালত ভবন ও বিচারকদের নিরাপত্তা চেয়ে থানায় জিডি করেছেন। জিডিতে তিনি গত মাসের ১৪ তারিখে অনুরূপ হুমকি পাওয়া চিঠির কথাও উল্লেখ করেছেন।

জয়পুরহাট জজ আদালতের সরকারি কৌঁসুলি (পিপি) নৃপেন্দ্রনাথ মণ্ডল চিঠির বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, জয়পুরহাটের কালাইয়ের বেগুনগ্রামে পীরের আস্তানায় পাঁচজনকে জবাই করে হত্যা মামলার সাক্ষ্য গ্রহণ করা হয় গত বুধবার ও আজ বৃহস্পতিবার। এ মামলার অন্যতম আসামি সাতক্ষীরার শফিউল্লাহ ওরফে তারেক ওরফে আবদুর রহমানকে কাশিমপুর কারাগার থেকে জয়পুরহাটে আনা হয়েছে। জঙ্গিদের মামলার সাক্ষ্য গ্রহণের সময় এ চিঠি আসায় কিছুটা হলেও আদালত পাড়ায় আতঙ্ক রয়েছে। 

জয়পুরহাট সহকারী পুলিশ সুপার (সার্কেল) অশোক কুমার পাল জানান, ওই চিঠির বিষয়টি পুলিশ গুরুত্ব সহকারে খতিয়ে দেখছে।

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

loading ...