ছবি সংগৃহীত

দেশের সবচেয়ে প্রশ্নবিদ্ধ নির্বাচন: ড. শাহদীন মালিক

আসন্ন দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচন সম্ভবত দেশ স্বাধীন হওয়ার পরে সবচেয়ে প্রশ্নবিদ্ধ নির্বাচন বলে মন্তব্য করেছেন বিশিষ্ট আইনজীবী এবং সংবিধান বিশেষজ্ঞ ড. শাহদীন মালিক। বেসরকারি টেলিভিশন 'সময়' আয়োজিত একটি টকশো'তে তিনি এ মন্তব্য করেন।

priyo.com
লেখক
প্রকাশিত: ১৬ ডিসেম্বর ২০১৩, ০৯:১১ আপডেট: ২৪ মার্চ ২০১৮, ১৭:১৭
প্রকাশিত: ১৬ ডিসেম্বর ২০১৩, ০৯:১১ আপডেট: ২৪ মার্চ ২০১৮, ১৭:১৭


ছবি সংগৃহীত
আসন্ন দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচন সম্ভবত দেশ স্বাধীন হওয়ার পরে সবচেয়ে প্রশ্নবিদ্ধ নির্বাচন বলে মন্তব্য করেছেন বিশিষ্ট আইনজীবী এবং সংবিধান বিশেষজ্ঞ ড. শাহদীন মালিক। বেসরকারি টেলিভিশন 'সময়' আয়োজিত একটি টকশো'তে তিনি এ মন্তব্য করেন। শাহদীন মালিক বলেন, এই নির্বাচনকে অনেকে নজীরবিহীন বলছেন। কিন্তু নজীরবিহীন শব্দটি আসলে পজিটিভ অর্থে ব্যবহ্নত হয়ে থাকে। কিন্তু এই নির্বাচনের ক্ষেত্রে তা অনেকটা স্যাটেয়ার বা খারাপ অর্থে ব্যবহার হচ্ছে। তিনি আরও বলেন, ১৯৭২ সালের আগে যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচনের সেদেশের জনগণের অংশগ্রহণ ছিল খুবই কম কারণ তাদের মধ্যে ছিল নানা মতভেদ এবং বর্ণ বৈষম্য। সেদিক তুলনা করলে বাঙালির নির্বাচনী ঐতিহ্য বহু যুগের। স্বাধীনতার আগে যেসব নির্বাচন হয়েছে তার বেশির ভাগই স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অধীনে, সেসব নির্বাচনে জনগণের অংশগ্রহণ এবং ব্যবস্থাপনা নিয়ে তেমন প্রশ্ন উঠেনি। কিন্তু ধীরে ধীরে সে ঐতিহ্য হারিয়ে গেছে এবং বর্তমান পরিস্থিতি খুবই লজ্জার। সংবিধান এবং নির্বাচন বিষয়ে তিনি বলেন, সংবিধানে নির্বাচনের জন্য যেসব বাধ্যবাধকতা রয়েছে তা আসলে করা হয়েছে সুষ্ঠু নির্বাচনের স্বার্থে। কিন্তু সংবিধানের দাড়ি-কমা মানতে গিয়ে যদি একটি সহিংস পরিস্থিতি এবং প্রশ্নবিদ্ধ নির্বাচন হয় এক্ষেত্রে দাড়ি-কমা একটু উহ্য করে সংকট-সহিংসতা এড়িয়ে গ্রহণযোগ্য নির্বাচন করা যেতে পারে। উপরোক্ত বিষয়ে তিনি উদাহরণ হিসেবে ১৯৯০ সালের এরশাদ বিরোধী আন্দোলন পরবর্তী সরকারের উদাহরণ দেন। সেসময় বিচারপতি সাহাবুদ্দিনকে রাষ্ট্রপতি করা হয় যদিও তা সংবিধান সম্মত ছিল না। কিন্তু বৃহত্তর কল্যাণে তা করা হয়েছিল এবং পরবর্তীতে সংবিধান সংশোধন করে বিষয়টি বৈধ করা হয়। বৃহত্তর স্বার্থে আবারও বিষয়টি মাথায় রেখে সরকার কার্যকর পদক্ষেপ নেবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

ভোট শেষে চলছে গণনা

প্রিয় ১৮ ঘণ্টা, ৪৩ মিনিট আগে

‘আমরা জয়ী হবই’

প্রিয় ১ দিন, ২০ ঘণ্টা আগে

loading ...