ছবি সংগৃহীত

দেশে থেকে শকুন বিলুপ্তির পথে

বাংলাদেশে অ্যানথ্রাক্স, জলাতঙ্কসহ অন্যান্য জুনোটিক (পশু হতে সংক্রমিত) রোগের জন্য বিষাক্ত ওষুধ ডাইক্লোফেনাক ও কিটোপ্রোফেন পশু-চিকিৎসায় ব্যবহার করাই শকুন মৃত্যুর প্রধান কারণ।

priyo.com
লেখক
প্রকাশিত: ২৩ জুন ২০১৪, ১৯:৩৫ আপডেট: ১৭ আগস্ট ২০১৮, ১২:০০
প্রকাশিত: ২৩ জুন ২০১৪, ১৯:৩৫ আপডেট: ১৭ আগস্ট ২০১৮, ১২:০০


ছবি সংগৃহীত
(প্রিয়.কম) বাংলাদেশে অ্যানথ্রাক্স, জলাতঙ্কসহ অন্যান্য জুনোটিক (পশু হতে সংক্রমিত) রোগের জন্য বিষাক্ত ওষুধ ডাইক্লোফেনাক ও কিটোপ্রোফেন পশু-চিকিৎসায় ব্যবহার করাই শকুন মৃত্যুর প্রধান কারণ। সোমবার বিকেলে জাতীয় প্রেসক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে আইইউসিএন বাংলাদেশের আয়োজনে পরিবেশ ও জনস্বাস্থ্যের ওপর ‘আসন্ন শকুন বিলুপ্তির প্রভাব’ শীর্ষক গোলটেবিল অনুষ্ঠানে বক্তারা এসব কথা বলেন। বক্তরা বলেন, বাংলাদেশে রাজ ও সরুছুঁটি এ দুই প্রজাতির স্থায়ীভাবে বসবাসকারী শকুন সম্প্রতি বিলুপ্ত হয়েছে। সবশেষে বাংলা-শকুনও বিলুপ্তের পথে। শকুন বিলুপ্তির ফলে বাংলাদেশে অ্যানথ্রাক্স, জলাতঙ্কসহ অন্যান্য জুনোটিক (পশু হতে সংক্রমিত) রোগ ক্রমবর্ধমানভাবে বেড়ে চলেছে বলে আশঙ্কা করেছেন বিশিষ্ট চিকিৎসকরা। তারা বলেন, বাংলাদেশ ও প্রতিবেশী দেশের পশু চিকিৎসায় ডাইক্লোফেনাক নিষিদ্ধ হলেও কিটোপ্রোফেন এখনো নিষিদ্ধ করা হয়নি। গোলটেবিল বৈঠকে আইইউসিএন’র বাংলাদেশ কান্ট্রি রিপ্রেজেন্টেটিভ ইশতিয়াক উদ্দীন আহমেদ এর সভাপতিত্ত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন পরিবেশ ও বন মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব এমএ মান্নান। এছাড়া আলোচক হিসিবে ক্রিস বাউডেন, ইনাম আল হক, ড. মনিরুল খান, ড. তপন দে প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

loading ...