ছবি সংগৃহীত

নাজিরপুরে উম্মুক্ত পরীক্ষায় নকলের মহোৎসব!

শিক্ষকদের সহায়তায় এই নকল সুবিধা পেতে পরীক্ষার্থীদের কাছ থেকে বিষয়প্রতি ৫শ’ টাকা আদায় করা হচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

priyo.com
লেখক
প্রকাশিত: ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৬, ১০:২৯ আপডেট: ১৮ জুন ২০১৮, ০৫:৩৮
প্রকাশিত: ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৬, ১০:২৯ আপডেট: ১৮ জুন ২০১৮, ০৫:৩৮


ছবি সংগৃহীত

পরীক্ষা কেন্দ্রে পরীক্ষার্থীদের একাংশের ছবি। ছবি: প্রিয়.কম

(মশিউর রহমান রাহাত, পিরোজপুর) পিরোজপুরের নাজিরপুরে উম্মুক্ত পরীক্ষার কেন্দ্রে চলছে নকলের মহোৎসব। শিক্ষকদের সহায়তায় এই নকল সুবিধা পেতে পরীক্ষার্থীদের কাছ থেকে বিষয়প্রতি ৫শ’ টাকা আদায় করা হচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

উপজেলা সদরের নাজিরপুর ডিগ্রি কলেজ কেন্দ্র সূত্রে জানা গেছে, উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে চলতি বছরের এইচএসসিতে ১৩০ জন ও ডিগ্রিতে প্রায় ১৬০ জন পরীক্ষার্থী রয়েছেন।

অভিযোগে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, প্রতি পরীক্ষায় প্রায় দেড় লাখ টাকা করে আদায় হচ্ছে। ওই কলেজের সমাজকল্যাণ বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মুজিবুর রহমান বালী, ইংরেজি বিভাগের ইব্রাহীম শেখ ও রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের মাধব চন্দ্র মন্ডল এবং অফিস সহকারী মো. এনামুল করিম মিলনের নেতৃত্বে এ টাকা আদায় করা হচ্ছে।

তাদের মধ্যে দুই শিক্ষক টাকা আদায়ের কথা অস্বীকার করলেও মাধব চন্দ্র মন্ডল জানান, কর্তৃপক্ষের নির্দেশে বকেয়া টাকা আদায় করা হচ্ছে।

শুক্রবার সকালে অনুষ্ঠিত স্নাতক শ্রেণির ইসলামিক স্টাডিজ প্রথম বিষয়ের পরীক্ষার্থী উপজেলার  দীর্ঘা এলাকার আব্দুল্লাহ জানান, তিনি ৫শ’ টাকা দিয়েছেন।

এইচএসসি’র পৌরনীতি বিষয়ের পরীক্ষার্থী লাবনী আক্তার জানান, তিনি ৫শ’ টাকা দিয়েছেন। টাকা না দিয়ে কোনো উপায় নেই, হলে সুবিধা পাওয়া যায় না। একই ধরনের বক্তব্য দেন ওই দিন বিকালের পরীক্ষায় অংশ নেওয়া ডিগ্রি ষষ্ঠ সেমিস্টারের মিনারা আক্তার ও এইচএসসি’র সীমা রানী।  

সরেজমিনে ওই দিন কলেজ কেন্দ্রের পুরাতন টিনসেট ভবনে অনুষ্ঠিত ডিগ্রি কেন্দ্রে গিয়ে দেখা যায়, শিক্ষকদের উপস্থিতিতে নকল করছে পরীক্ষার্থীরা।

নকলের খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. রেজাউল করিম পরীক্ষা কেন্দ্রে গিয়ে পরিদর্শন করেন।

উম্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী পরিচালক মো. এনায়েতুল্লাহ ও অধ্যক্ষ আফজাল হোসেন খান এ নিয়ে কিছু বলেননি।

প্রিয় সংবাদ/জাইজ/টিআর