ছবি সংগৃহীত

যা থাকছে আইফোন ৬এস ও আইফোন ৬এস প্লাসে

বাংলাদেশ সময় আজ রাত ১২.৩০ মিনিটের দিকে যুক্তরাষ্ট্রের সানফ্রানসিসকোতে অনুষ্ঠিত অ্যাপলের লাইভ ইভেন্টে অ্যাপল উন্মোচন করে আইফোন ৬এস এবং ৬এস প্লাস। ইভেন্টে অ্যাপলের বর্তমান সিইও টিম কুক বলেন, এবারের আইফোন এ যাবৎকালের সব থেকে উন্নত প্রযুক্তির আইফোন।

SadikHKhan
লেখক
প্রকাশিত: ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৫, ১২:৪৬ আপডেট: ১৮ জুন ২০১৮, ০০:২৩


ছবি সংগৃহীত
(প্রিয়.কম) বাংলাদেশ সময় আজ রাত ১২.৩০ মিনিটের দিকে যুক্তরাষ্ট্রের সানফ্রানসিসকোতে অনুষ্ঠিত অ্যাপলের লাইভ ইভেন্টে অ্যাপল উন্মোচন করে আইফোন ৬ এস এবং ৬এস প্লাস। ইভেন্টে অ্যাপলের বর্তমান সিইও টিম কুক বলেন এবারের আইফোন যাবৎকালের ইতিহাসের সব থেকে উন্নত প্রযুক্তির আইফোন। এরপর তিনি একে একে নতুন আইফোনের উল্লেখযোগ্য ফিচারগুলো তুলে ধরেন। আপনি যদি ইভেন্টটি না দেখে থাকেন তাহলে চিন্তার কোন কারণ নেই, এই লেখায় আমরা তুলে ধরছি নতুন আইফোনের উল্লেখযোগ্য পাঁচটি ফিচার।

১. থ্রিডি টাচ

আগে থেকেই ধারণা করা হচ্ছিল অ্যাপল নতুন আইফোনে যুক্ত করতে যাচ্ছে 'ফোর্সড টাচ' নামের নতুন প্রযুক্তি। ধারণা ভুল ছিল না, কিন্তু ভুল ছিল নামকরণটা। ইভেন্টে উপস্থিত সবাইকে কিছুটা হতবাক করে দিয়ে অ্যাপল উন্মোচন করল থ্রিডি টাচ প্রযুক্তি যা আসলে এক ধরণের 'ফোর্সড টাচ' প্রযুক্তি। নতুন এই প্রযুক্তির মাধ্যমে স্ক্রিনের উপর কতটা জোরে প্রেস করা হচ্ছে তা বোঝা যাবে। ফলে নতুন এই সেন্সর ব্যবহার করে বাড়তি কিছু সুবিধাও যোগ করা যাবে। আর ঠিক এমনটাই করেছে অ্যাপল। aa aa থ্রিডি টাচ প্রযুক্তির উদাহরণ দিতে গিয়ে তারা দেখায়, মেইলের উপর খানিকটা জোরে প্রেস করলেই অ্যাপটি একটা পপ-আপ মেন্যু তুলে ধরে যাতে করে মেইলে না ঢুকেই মেইল পড়ে নেয়া যায়। এ ছাড়াও ইনস্টাগ্রাম এবং অ্যাপলের লাইভ ইমেজ ফিচারেও থ্রিডি টাচ ব্যবহার করা হয়েছে। তবে সবথেকে বড় চমক ছিল যখন আইফোনের গেমগুলোতেও অ্যাপলের ফোর্সড টাচ প্রযুক্তির ব্যবহার দেখানো হচ্ছিল। আর ডেভেলপাররা যাতে নতুন এই প্রযুক্তির পূর্ণ সুবিধা নিতে পারে সেজন্য অ্যাপল থ্রিডি টাচের এপিআইও উন্মুক্ত করে দিয়েছে।

২. ১২ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা

বর্তমান সময়ের প্রেক্ষিতে সাধারণত ১২ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা অতটা হাই-এন্ড ফিচার না হলেও স্মার্টফোন ক্যামেরার দিক থেকে অ্যাপলের অবস্থান বেশ পোক্ত। বাজারে থাকা সবথেকে ভালো স্মার্টফোন ক্যামেরাগুলোর মধ্যে আইফোন ৬ এবং ৬প্লাস এর ক্যামেরা অন্যতম। আর এবার নতুন আইফোনে যুক্ত করা হয়েছে ১২ মেগাপিক্সেল সেন্সর যা কিনা আগের থেকে ৫০% বেশি পিক্সেল প্রসেস করতে সক্ষম। ১২ মেগাপিক্সেল রিয়ার ক্যামেরার পাশাপাশি থাকছে ৫ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরাও। aa আশা করা হচ্ছে বাজারে থাকা অন্যান্য স্মার্টফোন ক্যামেরাগুলোর সাথে অ্যাপলের প্রতিযোগিতা বেশ ভালোভাবেই জমে উঠবে। ইভেন্টে অ্যাপলের নতুন ক্যামেরার কিছু ঝলক দেখানো হয়। প্রাথমিক দৃষ্টিতে ছবিগুলোকে বেশ ভালো বলেই মনে হয়েছে উপস্থিত বেশির ভাগ মানুষের কাছে। আর নতুন ফিচার হিসেবে স্মার্টফোনটিতে যুক্ত করা হয়েছে ৪কে ভিডিও রেকর্ডিং সুবিধা এবং লাইভ ফটো ফিচারটি।

৩. লাইভ ফটো ফিচার

এ ধরণের ফিচার এর আগে এইচটিসি এবং নকিয়ার লুমিয়া ক্যামেরাতেও যুক্ত করা হয়েছিল। প্রায় একইরকম সুবিধা এবার আইফোনেও যুক্ত করা হয়েছে। ফিচারটা কাজ করে কিছুটা এভাবে: aa যখন কোন ফটো তোলা হবে তখন ঠিক ১.৫ সেকেন্ড আগে থেকে শুরু করে ফটো তোলার ১.৫ সেকেন্ড পর পর্যন্ত একটা শট ক্যাপচার হয়ে যাবে। পরবর্তীতে ফটো দেখার সময় খুব ছোট একটা নড়াচড়া লক্ষ করা যাবে। অ্যাপলের নতুন থ্রিডি টাচ প্রযুক্তি ব্যবহার করে ফটোটির উপর কিছুটা জোরে প্রেস করলেই ৩ সেকেন্ডের একটি ভিডিও প্লে-ব্যাক হবে। আর এ ফিচারটিকেই অ্যাপল বলছে 'লাইভ ফটো ফিচার'। aa সত্যি করে বলতে গেলে, ফিচারটির মাধ্যমে যখন কোন লাইভ ফটো ক্যাপচার করা হবে তখন ঐ সময়টার একটা ইমেজ ক্যাপচার হয়ে যাবে এতে করে যখনই ফটোটি দেখা হবে তখন ছোট্ট একটা মুহূর্ত চোখের সামনে ভেসে উঠবে। যদিও এ ফিচার নতুন নয় তারপরও সবাই মুখিয়ে আছে অ্যাপল কিভাবে এবং কতো ভালোভাবে ফিচারটি ফুটিয়ে তুলতে পারে।

৪. ২৩ এলটিই ব্যান্ড

আইফোন ৬এস এবং আইফোন ৬এস প্লাসে যুক্ত করা হয়েছে ২৩ টি এলটিই ব্যান্ড। এর মাধ্যমে পৃথিবীর প্রায় সবগুলো জনপ্রিয় এলটিই ব্যান্ডই নতুন আইফোনে সাপোর্ট করবে বলে ধারণা প্রযুক্তি সংশ্লিষ্টদের। তাই পৃথিবী জুড়ে ঘুরে বেড়ালেও, সাপোর্ট করবে না এমন নেটওয়ার্ক ব্যান্ড খুঁজে পাওয়া মুশকিল হয়ে যাবে। এর মাধ্যমে অন্যান্য মার্কেটেও ডাটা নেটওয়ার্কের পূর্ণ সুবিধা নেওয়া যাবে। aa এখন নতুন কোন দেশে গেলে নেটওয়ার্ক নিয়ে চিন্তা করতে হবে না আইফোন স্বয়ংক্রিয় ভাবে নেটওয়ার্ক ড্রপ করে সাপোর্টেড নেটওয়ার্কের সাথে কানেক্ট হয়ে যাবে। আর যদি আপনি এমন কোন যায়গায় যান যেখানে এলটিই সাপোর্ট নেই সেখানে আপনি সেকেন্ডে সর্বোচ্চ ৮৬৬ মেগাবিট গতির ওয়াইফাই ব্যবহার করতে পারবেন। যাকিনা আগের আইফোন থেকে দ্বিগুণ দ্রুত।

৫. নতুন A9 প্রসেসর

এবারের নতুন আইফোনে যুক্ত করা হয়েছে অ্যাপলের ৬৪ বিট A9 প্রসেসর। বলা হচ্ছে অ্যাপলের আগের A8 চিপ থেকে নতুন এই চিপটি ৭০% দ্রুত এবং গ্রাফিক্সের দিক থেকে ৯০% দ্রুত। এতে করে বোঝা যাচ্ছে নতুন আইওএস ৯ এর দ্রুত ন্যাভিগেশন, মাল্টিটাস্ক, ৩ডি টাচ, ৪কে ভিডিও রেকর্ডিং এবং লাইভ ফটো ফিচারগুলো আরও দ্রুত এক্সেস করা যাবে। আর এই প্রথমবারের মত অ্যাপল উন্মুক্ত করল M9 চিপ। এর মাধ্যমে A9 চিপের পাশাপাশি M9 একই সাথে কাজ করবে এবং সবসময় চালু থাকার পরও কম পাওয়ার ব্যবহার করবে। aa এই ছিল অ্যাপলের উল্লেখযোগ্য পাঁচটি ফিচার। এছাড়াও অন্যান্য ফিচারের মধ্যে অ্যাপলে যুক্ত করা হয়েছে রেটিনা ফ্ল্যাশ, ২য় প্রজন্মের ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর এবং অ্যালুমিনিয়াম ৭০০০ সিরিজ যা কিনা আরও বেশি মজবুত। এতে করে আর বেন্ডগেটের ভয় থাকবে না বলে নিশ্চয়তা দিয়েছে অ্যাপল।

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন
সিম্ফনিকে হটিয়ে একে স্যামসাং
প্রিয় ডেস্ক ০৯ ডিসেম্বর ২০১৮
পাঠাওকে নিয়ে আশাবাদী মাশরাফি
প্রিয় ডেস্ক ০৬ ডিসেম্বর ২০১৮
স্পন্সরড কনটেন্ট
অ্যাপল এগুলোও বানাত!
অ্যাপল এগুলোও বানাত!
https://www.prothomalo.com/ - ১ week আগে
জাপানে আইফোন Xআর-এ ছাড় দিচ্ছে অ্যাপল
জাপানে আইফোন Xআর-এ ছাড় দিচ্ছে অ্যাপল
বিডি নিউজ ২৪ - ২ সপ্তাহ আগে