ছবি সংগৃহীত

লতিফ সিদ্দিকীর বিরুদ্ধে চার্জ গঠনের শুনানি ৭ ডিসেম্বর

সাবেক টেলি যোগাযোগমন্ত্রী আবদুল লতিফ সিদ্দিকীর বিরুদ্ধে একটি মামলার বিচার শুরুর জন্য চার্জ গঠনের শুনানির দিন ধার্য করা হয়েছে আগামী ৭ ডিসেম্বর। <ul> <li><a href="http://www.priyo.com/2014/11/27/120856.html">বই আর পত্রিকা পড়েই সময় কাটছে লতিফ সিদ্দিকীর</a></li> <li><a href="http://www.priyo.com/2014/11/25/120487.html">কেন্দ্রীয় কারাগারে লতিফ সিদ্দিকী (ভিডিও)</a></li> <li><a href="http://www.priyo.com/2014/11/25/120478.html">লতিফ সিদ্দিকীকে কারাগারে প্রেরণ</a></li> </ul>

priyo.com
লেখক
প্রকাশিত: ৩০ নভেম্বর ২০১৪, ০৬:৪৩ আপডেট: ১৬ এপ্রিল ২০১৮, ০০:৫৩
প্রকাশিত: ৩০ নভেম্বর ২০১৪, ০৬:৪৩ আপডেট: ১৬ এপ্রিল ২০১৮, ০০:৫৩


ছবি সংগৃহীত
(প্রিয়.কম) - তাবলীগ জামায়াত ও মহানবী (সাঃ)কে কটূক্তি করে বিতর্কে পড়া সাবেক টেলি যোগাযোগমন্ত্রী আবদুল লতিফ সিদ্দিকীর বিরুদ্ধে একটি মামলার বিচার শুরুর জন্য চার্জ গঠনের শুনানির দিন ধার্য করা হয়েছে আগামী ৭ ডিসেম্বর। রোববার (৩০ নভেম্বর) অ্যাডভোকেট এ এম এম আবেদ রাজার দায়ের করা মামলাটির বিচার শুরুর জন্য মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আসাদুজ্জামান নূরের আদালতে বদলির আদেশ দেন ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট (সিএমএম) বিকাশ কুমার সাহা। আগামী ৭ ডিসেম্বর অভিযোগ (চার্জ) গঠনের শুনানির জন্য দিন ধার্য করেন তিনি। মামলার বাদী অ্যাডভোকেট এ এম এম আবেদ রাজা। বর্তমানে আবদুল লতিফ সিদ্দিকীকে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের ২৬ নম্বর ডিভিশন সেলে রাখা হয়েছে। প্রসঙ্গত, প্রধানমন্ত্রীর সাথে জাতিসংঘ অধিবেশনে যোগ দিতে নিউইর্য়ক সফরকালে গত ২৮ সেপ্টেম্বর একটি অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী লতিফ সিদ্দিকী বলেন, আমি কিন্তু হজ আর তাবলিগ জামাতের ঘোরতর বিরোধী। আমি জামায়াতে ইসলামীরও বিরোধী। তবে তার চেয়েও হজ ও তাবলিগ জামাতের বেশি বিরোধী। এ হজে যে কত ম্যানপাওয়ার নষ্ট হয়। হজের জন্য ২০ লাখ লোক আজ সৌদি আরবে গিয়েছে। এদের কোনও কাম নাই। এদের কোনও প্রডাকশন নাই। শুধু রিডাকশন দিচ্ছে। তিনি আরো বলেন, তাবলিগ জামাত প্রতি বছর ২০ লাখ লোকের জমায়েত করে। নিজেদেরতো কোনও কাজ নেই। সারা দেশের গাড়িঘোড়া তারা বন্ধ করে দেয়। তিনি তার বক্তৃতায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার তনয় সজীব ওয়াজেদ জয়ের বিষয়েও বিরূপ মন্তব্য করেন। তিনি প্রবাসী বাংলাদেশীদের উদ্দেশ্যে বলেন, কথায় কথায় আপনারা জয়কে টানেন কেন। ‘জয় ভাই’ কে। জয় বাংলাদেশ সরকারের কেউ নয়। তিনি কোন সিদ্ধান্ত নেয়ারও কেউ নন। প্রবাসীদের সম্পর্কে এসময় তিনি মন্তব্য করেন, বিদেশে এসেছেন কামলা দিতে। রাজনীতি করার দরকার কী? মঞ্চে বসা টাঙ্গাইলের মুক্তিযোদ্ধা ও যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী ড. নুরুন্নবীকে উদ্দেশ করে মন্ত্রী বলেন, নির্বাচনের জন্য একবার তাঁর (নুরুন্নবী) কাছে চাঁদা চেয়েছিলাম। তিনি ৫০ হাজার টাকা দিয়েছিলেন। আবদুল লতিফ সিদ্দিকী এক লাখের কম কারও কাছ থেকে চাঁদা নেয় না। এঘটনার পর প্রায় দু’মাস দেশের বাইরে অবস্থান করে শেষে তিনি গত ২৩ নভেম্বর রাত ৮.৪০ মিনিটে ভারতের এইটি ফ্লাইটে ঢাকার শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছান তিনি। বিমানবন্দরে তিনি ইমিগ্রেশন পুলিশের নজরদারিতে ছিলেন দীর্ঘ সময়। এরপর বিমানবন্দর থেকে বেরিয়ে সোজা ধানমন্ডির বাসায় চলে যান। এরপর গত ২৪ নভেম্বর গ্রেফতার এড়াতে আগাম জামিন চাইতে হাইকোর্টে যান আবদুল লতিফ সিদ্দিকী। এর পরদিন দুপুরে আত্মসমর্পণের পর তাকে গ্রেফতার দেখিয়ে ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট (সিএমএম) আদালতে হাজির করে পুলিশ। হাকিম আতিকুর রহমান তাকে কারাগারে প্রেরণের আদেশ দেন। ওইদিন ধানমন্ডি থানার ডিউটি অফিসার জাহাঙ্গীর আলম বলেন, লতিফ সিদ্দিকী নিজেই মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ধানমন্ডি থানায় ফোন করে ওসিকে জানান, তিনি আত্মসমর্পণ করতে আসছেন। এ খবরের পর বেলা পৌনে একটার দিকে এডিসি ইব্রাহীম হোসেন এসে ওসি আবু বকর সিদ্দিকের কক্ষে অবস্থান নেন। বেলা দেড়টার দিকে লতিফ সিদ্দিকী এলে তাকে ওসির গাড়িতে করেই আদালতের পথে রওয়ানা হয় থানা পুলিশ।

এসংক্রান্ত পুরনো সংবাদ-

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

loading ...