ছবি সংগৃহীত

হার্ভার্ড থেকে ১০ বার প্রত্যাখ্যাত হয়েছিলাম: জ্যাক মা

চীনের শীর্ষ ধনী আলিবাবা'র প্রতিষ্ঠাতা জ্যাক মা। বর্তমান অবস্থানে আসতে তাকে অনেক ধাক্কা সামলাতে হয়েছিল জীবনে। কিন্তু তারপরও থেমে যাননি, বরং দ্বিগুণ উদ্যমে সামনে এগিয়ে গিয়েছেন।

শাহাদাত হোসেন
লেখক
প্রকাশিত: ০২ মে ২০১৫, ১৬:৩৯
আপডেট: ১৭ এপ্রিল ২০১৮, ১৭:৫৪


ছবি সংগৃহীত
(প্রিয় টেক) চীনের শীর্ষ ধনী আলিবাবা'র প্রতিষ্ঠাতা জ্যাক মা। বর্তমান অবস্থানে আসতে তাকে অনেক ধাক্কা সামলাতে হয়েছিল জীবনে। কিন্তু তারপরও থেমে যাননি, বরং দ্বিগুণ উদ্যমে সামনে এগিয়ে গিয়েছেন। চলতি বছরের শুরুর দিকে ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরামে অংশ নিতে গিয়ে মুখোমুখি হয়েছিলেন সাংবাদিক চার্লি রোজের। বিশেষ এই সাক্ষাৎকারে তিনি তার সফলতার গল্প তুলে ধরেন। সাক্ষাৎকারে তিনি ভবিষ্যৎ উদ্যোক্তাদের জন্য বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ পরামর্শও দিয়েছেন। প্রিয় টেক পাঠকদের জন্য তার গুরুত্বপূর্ণ পরামর্শগুলো তুলে ধরা হল: ১. আত্মবিশ্বাস: জ্যাক মা যখন প্রথম আলিবাবা প্রতিষ্ঠার সিদ্ধান্ত নেন, তখন তিনি তার ১৭ জন বন্ধুকে বাসায় ডেকে আনেন। তাদের সাথে তিনি তার আইডিয়ার কথা শেয়ার করেন। কিন্তু সবাই তার এই আইডিয়াকে 'স্টুপিড আইডিয়া' বলে চলে যায়। পুরো রাত জুড়ে জ্যাক মা তার উদ্যোগের ব্যাপারে চিন্তা ভাবনা করেন এবং পরের দিন তিনি সিদ্ধান্ত নেন যে অন্যরা যাই বলুক, তিনি এই কাজটি করবেনই। ২. অভ্যাসে পরিণত করতে হবে: ইংরেজি কিছুটা দুর্বল ছিলেন তিনি। আর তাই তিনি তার স্বল্প ইংরেজি জ্ঞান নিয়ে প্রতিদিন সকালে সাংরি লা হোটেলে চলে যেতেন। সেখানে আসা পশ্চিমা পর্যটকদের গাইড হিসেবে তাদের নিয়ে যেতেন নিজ গ্রামে। আর এর ফলে তাদের সাথে কথা বলার ছলে নিজের ইংরেজি শেখার অনুশীলনও হয়ে যেতো। টানা ৯ বছর ধরেই কাজটি করেন তিনি। ৩. হাল ছাড়লে চলবে না: কোন কিছু চেয়ে প্রত্যাখ্যাত হওয়া, এই ঘটনার সাথে জ্যাক মা'র ছিল ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক। বিশ্ববিদ্যালয়ে ৩ বার ভর্তি পরীক্ষা দিয়ে ব্যর্থ হয়েছেন। ৩০টি চাকরির জন্য চেষ্টা করেও হয়েছিলেন ব্যর্থ। এমনকি কেএফসি'তে তার সাথে আবেদন করা ২৪ জন চাকরি পেলেও একমাত্র তাকেই নেওয়া হয়নি। হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির জন্য ১০ বার আবেদন করেছিলেন, কিন্তু সে ভাগ্যও হয়নি তার। আর এ বিষয়ে তাকে প্রশ্ন করেছিলেন চার্লি রোজ। উত্তরে তিনি বলেন, "হয়তো কোন একদিন আমি হার্ভার্ডে শিক্ষকতা করতে যাব।" ৪. উদ্যোগ নিয়ে সেটি বাস্তবায়ন করতে হবে: ৯০'র দশকে জ্যাক মা ইন্টারনেটে প্রথম যে কীওয়ার্ড লিখে সার্চ দিয়েছিলেন, সেটি ছিল 'beer'। আর এরপর তিনি এরসাথে 'china' লিখে আবার সার্চ দেন এবং কিছু খুঁজে পাননি। আর এরপরই তার মাথায় ইন্টারনেট ভিত্তিক ব্যবসার ধারণা আসে। ৫. ভয় করলে চলবে না: সেই ধারণা নিয়েই তিনি এবং তার স্ত্রী মিলে শুরু করেন 'China Pages' নামক একটি ব্যবসা। আর এর জন্য তারা ২ লাখ ডলার ধারও করেন। এই ব্যাপারে তাকে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি বলেন, "আমি তখন পারসোনাল কম্পিউটার কিংবা ইমেইল সম্পর্কে কিছু জানতাম না। এর আগে আমি কখনও কীবোর্ডও ধরে দেখিনি। আর তাই আমি নিজেকে 'অন্ধ বাঘের পিঠে চড়ে বসা অন্ধ ব্যক্তি' বলে অভিহিত করি।" ৬. শত্রু থাকা চলবে না: প্রতিদ্বন্দ্বীদের কখনোই শত্রু মনে করেন না জ্যাক মা। বরং তিনি তাদের এভাবেই গন্য করেন যাদের কাছ থেকে কিছু শেখা যাবে। "একজন সত্যিকারের ব্যবসায়ী কিংবা উদ্যোক্তার কখনও শত্রু থাকে না।" বস হান্টিং অবলম্বনে

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন
স্পন্সরড কনটেন্ট