(প্রিয় টেক) ক্রমবর্ধমান চাহিদার প্রেক্ষিতে দেশের বাজারে হরেক রকমের স্মার্টফোনের দেখা মিললেও সাশ্রয়ী বাজেটে হাই-এন্ডের ফোনের দেখা মেলা বেশ দুষ্কর! বিশেষ করে অধিক র‍্যাম ও ভালো ক্যামেরার স্মার্টফোন খুঁজতে গেলে বাজেট মেলাতে ক্রেতাদের বেশ হিমশিম খেতে হয়। ক্রেতাদের সাধ ও সাধ্য – দুইই বিবেচনা করে দেশীয় স্মার্টফোন বাজারজাতকরণ প্রতিষ্ঠান ওয়ালটন সম্প্রতি বাজারে এনেছে Primo X4 মাত্র ২২,৯৯০ টাকা মূল্যের এই ফোনের আকর্ষণীয় নানা ফিচারের মধ্যে ৪ গিগাবাইট র‍্যাম, ১.৮ গিগাহার্টজ গতির অক্টাকোর প্রসেসর, ফেজ ডিটেকশন অটো ফোকাস সুবিধাসম্পন্ন ১৬ মেগাপিক্সেলের রেয়ার ক্যামেরা, ১৩ মেগাপিক্সেলের ফ্রন্ট ক্যামেরা প্রভৃতি উল্লেখযোগ্য। অ্যান্ড্রয়েড ৬.০ মার্শম্যালো অপারেটিং সিস্টেমের এই ফোনে ৩২ গিগাবাইট ইন্টারনাল মেমোরীর পাশাপাশি আছে ১২৮ গিগাবাইট পর্যন্ত এক্সটারনাল মেমোরী কার্ড ব্যবহারের সুবিধা। গরিলা গ্লাস ৪ সমৃদ্ধ ৫.৫ ইঞ্চি ডিসপ্লেবিশিষ্ট Primo X4 এ ৩১৩০ মিলিঅ্যাম্পিয়ারের লিথিয়াম-পলিমার ব্যাটারি ব্যবহৃত হয়েছে। এছাড়া ইউএসবি টাইপ-সি, ফোরজি সুবিধা, ডিটিএস সাউন্ড সিস্টেম, ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর - কী নেই প্রিমিয়াম মেটাল বডি ডিজাইনের এই ফোনে!

বাজারে আসা নিত্যনতুন সব স্মার্টফোনের হ্যান্ডস-অন রিভিউ পাঠকদের সামনে তুলে ধরার ধারাবাহিকতায় প্রিয়টেকের এবারের আয়োজনে থাকছে ওয়ালটনের হাই-এন্ড স্মার্টফোন Primo X4 এর Exclusive Hands-on Review
Primo X4 review
একনজরে ওয়ালটন Primo X4 এর উল্লেখযোগ্য ফিচারসমূহঃ

  • অ্যান্ড্রয়েড ৬.০ মার্শম্যালো নির্ভর অপারেটিং সিস্টেম
  • গরিলা গ্লাস ৪ সমৃদ্ধ ৫.৫ ইঞ্চি ডিসপ্লে
  • ১.৮ গিগাহার্টজ অক্টাকোর প্রসেসর
  • ৪ গিগাবাইট র‍্যাম
  • Mali T860 জিপিউ
  • ১৬ মেগাপিক্সেলের রেয়ার ক্যামেরা
  • ১৩ মেগাপিক্সেলের ফ্রন্ট ক্যামেরা
  • ৩২ গিগাবাইটের ইন্টারনাল মেমোরী
  • ডুয়েল সিম (মাইক্রো+ন্যানো)
  • ইউএসবি টাইপ-সি
  • ৩১৩০ মিলিঅ্যাম্পিয়ারের নন-রিমুভ্যাবল লিথিয়াম-পলিমার ব্যাটারি


Primo X4 review
আর কথা নয়, এবার তাহলে বিস্তারিত রিভিউ শুরু করা যাক- আনবক্সিং: Primo X4 কেনার পর আপনি এর সাথে যা যা পাবেন –

  • চার্জার অ্যাডাপ্টার
  • ডাটা ক্যাবল
  • দারুণ একটি ইয়ারফোন
  • ইউজার ম্যানুয়াল
  • ওয়ারেন্টি কার্ড

অপারেটিং সিস্টেমঃ Primo X4 এর অপারেটিং সিস্টেমে ভিন্নতা এনেছে ওয়ালটন, অ্যান্ড্রয়েড ৬.০ মার্শম্যালো ওএস নির্ভর এই ফোনে স্টক অ্যান্ড্রয়েড ইউজার ইন্টারফেস ব্যবহার না করে কাস্টোমাইজড ইউজার ইন্টারফেস ব্যবহার করা হয়েছে।

Primo X4 review OS

বিল্ড কোয়ালিটি ও ডিজাইনঃ হাই-এন্ডের অধিকাংশ ফোনই চমৎকার ডিজাইন ও ভালো বিল্ড কোয়ালিটিসম্পন্ন হয়, Primo X4 ও এর ব্যতিক্রম নয়। প্রিমিয়াম মেটাল বডি ও হালকা গড়নের কারণে এই ফোন প্রথম দেখাতেই আপনাকে মুগ্ধ করবে - এমনটা নির্দ্বিধায় বলা যায়। এবার আসি গাঠনিক বৈশিষ্ট্যের কথায় – Primo X4 এর নিচের অংশে রয়েছে ইউএসবি টাইপ-সি পোর্ট ও স্পিকার আর উপরের অংশে রয়েছে ৩.৫ মিলিমিটার অডিও পোর্ট; ফোনটির ভলিউম কী, পাওয়ার কী ও সিম ট্রে একই পার্শ্বে।  Primo X4 hands-on review
এর সামনের অংশে আছে ফ্রন্ট ক্যামেরা আর পেছনের অংশে আছে রেয়ার ক্যামেরার লেন্স, এলইডি ফ্ল্যাশ ও ওয়ালটনের লোগো।
Primo X4 hands-on review
এর হোম বাটনটি ফিঙ্গারপ্রিন্ট স্ক্যানার হিসেবে কাজ করে।
 Primo X4 hands-on review
১৫৩ মিলিমিটার উচ্চতা, ৭৫.৩ মিলিমিটার প্রস্থ ও ৭.৬ মিলিমিটার পুরুত্ববিশিষ্ট এই ফোনটির ব্যাটারিসহ ওজন মাত্র ১৫৯ গ্রাম।
Primo X4 hands-on review

ডিসপ্লেঃ ৫.৫ ইঞ্চি এই ফোনের ডিসপ্লের রেজ্যুলেশন ১৯২০x১০৮০ পিক্সেল। এই ডিভাইসের ডিসপ্লের নিরাপত্তায় চতুর্থ প্রজন্মের গরিলা গ্লাস সমৃদ্ধ ২.৫ডি কার্ভ গ্লাস ব্যবহৃত হয়েছে।
Primo X4 Display

ইউজার ইন্টারফেসঃ Primo X4 ফোনটিতে কাস্টোমাইজড ইউজার ইন্টারফেস ব্যবহৃত হওয়ায় এটি সচরাচর অ্যান্ড্রয়েড ফোনের ইউজার ইন্টারফেস থেকে ভিন্ন; আর হ্যাঁ, এতে কিন্তু কোন আলাদা অ্যাপ ড্রয়ার নেই।
Primo X4 UI
এই ফোনে বিভিন্ন ধরণের ডাউনলোডেড থিম ব্যবহার করে আপনি এর ইউজার ইন্টারফেসে ভিন্নতা আনতে পারবেন- Primo X4 Theme

সিপিউ ও চিপসেটঃ ১.৮ গিগাহার্টজ গতির অক্টাকোর প্রসেসরসমৃদ্ধ এই ফোনে মিডিয়াটেকের ৬৪ বিট চিপসেট MT6755 ব্যবহৃত হয়েছে।

জিপিউ: সিপিইউর সাথে সামঞ্জস্য রেখে এই ফোনে মালি টি-৮৬০ জিপিউ ব্যবহৃত হয়েছে। এতে মাল্টিটাস্কিং, এইচডি গেমিং প্রভৃতি বেশ স্মুথলি করা যায়।
Primo X4 CPU GPU

স্টোরেজ সুবিধা: Primo X4 এ ৩২ গিগাবাইট ইন্টারনাল মেমোরীর পাশাপাশি আছে ১২৮ গিগাবাইট পর্যন্ত এক্সটারনাল মাইক্রো-এসডি কার্ড ব্যবহার করা যায়। আর OTG ব্যবহার করে স্তোরেজ বাড়িয়ে নেওয়ার সুবিধা তো আছেই!

র‍্যাম: স্মার্টফোনের স্মুথ পারফরম্যান্সের ক্ষেত্রে র‍্যামের ভূমিকা বেশ গুরুত্বপূর্ণ। এদিক থেকে Primo X4 অনন্য, কেনোনা এতে রয়েছে ৪ গিগাবাইট র‍্যাম, যার মধ্যে বুটআপের পর প্রায় ২.৬ গিগাবাইট ফাঁকা থাকে।
Primo X4 review Memory

ক্যামেরা পারফরম্যান্সঃ Primo X4 এর অন্যতম আকর্ষণীয় দিক হলো এর ক্যামেরা! ১৬ মেগাপিক্সেল রেয়ার ক্যামেরার এই ফোনের ক্যামেরায় আছে ফেস ডিটেকশন, প্রফেশনাল ক্যামেরা মুড ও আলট্রা পিক্সেল মুড। সুন্দর ছবি তুলতে এর ক্যামেরায় BSI সেন্সর ব্যবহার করা হয়েছে, এর পাশাপাশি আছে অটোফোকাস, এলইডি ফ্ল্যাশ প্রভৃতি সুবিধা। Primo X4 এর ক্যামেরা ইন্টারফেস ও সেটিংসঃ
 Primo X4 review Camera Settings
চলুন, এবারে Primo X4 এর রেয়ার ক্যামেরায় তোলা কিছু ছবি দেখে নেওয়া যাক-
 Primo X4 review Camera Sample


 Primo X4 review Camera Sample 2


 Primo X4 review Camera Sample 3
রাতের বেলা তোলা ছবি-
 Primo X4 review Camera Sample at night


 Primo X4 review Camera Sample 2 at night
১৩ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরার কারণে এই ফোন সেলফি-প্রেমীদের মাঝে আলাদা ক্রেজ তৈরিতে সক্ষম। Primo X4 দিয়ে তোলা সেলফি-
 Primo X4 review Front Camera Sample
মাল্টিমিডিয়াঃ Primo X4 এর অডিও ইন্টারফেস যেমন দারুণ, তেমনি চমৎকার এর অডিও আউটপুটও । এতে DTS মিউজিক সিস্টেম থাকার কারণে এর অডিও সাউন্ড কোয়ালিটি দারুণ আর ৩.৫ মিলিমিটারের অডিও জ্যাকসম্পন্ন এই ফোনের সাথে যে হেডফোনটি দেওয়া হয় সেটি দেখতে যেমন দারুণ তেমন চমৎকার তার সাউন্ডও।
Primo X4 audio review
সুপার অ্যামোলেড ডিসপ্লে সংবলিত এই ফোনে আপনার ভিডিও এক্সপেরিয়েন্সটাও হবে বেশ উপভোগ্য।
Primo X4 video review
আর হ্যাঁ, এই ফোনে রয়েছে ইন-বিল্ট ভিডিও এডিটর-
Primo X4 audio review

গেমিং পারফরম্যান্সঃ ১.৮ গিগাহার্টজ গতির প্রসেসর, ৬৪ বিট চিপসেট ও ৪ গিগাবাইট র‍্যাম থাকায় Primo X4 এর গেমিং পারফরম্যান্স নিয়ে বিশেষ কিছু আশা করি বলতে হবেনা। এই ফোনে ফিফা ১৬, গ্র্যান্ড থেফট অটো, নিড ফর স্পিড, ফুটবল ম্যানেজার, অ্যাসফাল্ট ৮ জনপ্রিয় প্রভৃতি হাই-গ্রাফিক্সের গেম বেশ স্মুথলি যাবে এটা অনেকটা অনুমিতই ছিল। এসব গেম Primo X4 এ কোন ধরণের ল্যাগিং ছাড়াই খেলা গেছে।
Primo X4 Gaming Review
Primo X4 Gaming Review 2 />
<p>
<strong>ব্যাটারি লাইফ: </strong>
অ্যান্ড্রয়েড ফোনের রিভিউয়ের ক্ষেত্রে অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ হলো ব্যাটারি লাইফ। অক্টাকোর প্রসেসর ও ৫.৫ ইঞ্চি ডিসপ্লের এই ফোনে ৩১৩০ মিলিঅ্যাম্পিয়ারের লিথিয়াম-পলিমার ব্যাটারি ব্যবহৃত হয়েছে। একবার ফুল চার্জে আপনি টানা প্রায় ৮ ঘন্টারও অধিক সময় ওয়েব ব্রাউজ কিংবা প্রায় ৭ ঘন্টা এইচডি ভিডিও উপভোগ করতে পারবেন; আর সাধারণ ব্যবহারে অনায়াসেই ১  দিন চলে যায়। আর এই ফোনে থাকা Extreme Power Saving Mode ব্যবহার করে আপনি মাত্র ১০% চার্জ নিয়েও কয়েকঘন্টা ফোনটি চালাতে পারবেন।
<br>
<img src=

কানেক্টিভিটিঃ ফোরজি সুবিধাসম্পন্ন Primo X4 এ ইউএসবি টাইপ-সি, ব্লুটুথ ৪.০, ওয়াইফাই, ওয়্যারলেস হটস্পট প্রভৃতি কানেক্টিভিটি সুবিধা রয়েছে। সেইসাথে আরও আছে ওটিজি সুবিধা। ডুয়েল সিম সুবিধাসম্পন্ন এই ফোনের একটি স্লট মাইক্রো সিম আর অন্যটি ন্যানো সিম সাপোর্টেড।

বেঞ্চমার্কঃ উন্নত স্পেসিফিকেশনের Primo X4 এর বেঞ্চমার্ক স্কোর যাচাইয়ের জন্য বেঞ্চমার্ক যাচাইয়ের জনপ্রিয় অ্যাপ AnTuTu বেছে নেওয়া হয়েছিলো, যেখানে এর স্কোর এসেছে ৪৬৮৬৬; অন্যদিকে GFXBench এ সিঙ্গেলকোর ও মাল্টিকোর এ এর স্কোর যথাক্রমে ৭৪৫ ও ২৯২০
Primo X4 review AnTuTu Benchmark GFXBench Score
বেঞ্চমার্ক যাচাইয়ের আরেক অ্যাপ Nenamark এ Primo X4 এর স্কোর এসেছে ৬১.৬
Primo X4 hands-on review NenaMark Score

সেন্সর: Primo X4 ফোনটিতে ফিঙ্গারপ্রিন্ট, প্রক্সিমিটি, লাইট, গাইরোস্কোপ, অ্যাক্সিলেরোমিটার প্রভৃতি সেন্সর বিদ্যমান। এছাড়া স্মার্ট ফ্লিপ কভারের জন্য আছে হল সেন্সর।
Primo X4 hands-on review Fingerprint Sensor

স্পেশাল ফিচারঃ এই ফোনে স্পেশাল ফিচার হিসেবে রয়েছে এজ বার, চাইল্ড মুড, স্মার্ট জেশ্চার, এয়ার জেশ্চার, সাসপেন্ড বাটন, সিস্টেম ম্যানেজার প্রভৃতি।
Primo X4 Special Features

মূল্যঃ ক্রেতাসাধারণের হাতে অপেক্ষাকৃত স্বল্পমূল্যে উন্নত স্মার্টফোন তুলে দিতে ওয়ালটন কর্তৃপক্ষ বরাবরই সচেষ্ট, আর তাইতো অত্যাধুনিক সব ফিচার ও স্পেসিফিকেশনের স্মার্টফোন Primo X4 এর দাম তারা নির্ধারণ করেছে মাত্র ২২৯৯০ টাকা! ৪ গিগাবাইট র‍্যাম, ১৬ মেগাপিক্সেলের রেয়ার ক্যামেরা, ১৩ মেগাপিক্সেলের ফ্রন্ট ক্যামেরা, ৩২ গিগাবাইট ইন্টারনাল স্টোরেজ, ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর প্রভৃতি বিষয়কে বিবেচনায় নিলে এই মূল্যকে যথেষ্ট সাশ্রয়ী বলতে হবে।
Primo X4 Price
Primo X4 এর ভালো লাগার দিকসমূহঃ

  • ৪ গিগাবাইট র‍্যাম
  • ১৬+১৩ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা
  • ইউএসবি টাইপ-সি
  • ফোরজি সুবিধা
  • নান্দনিক ডিজাইন
  • ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর
  • আলট্রা পিক্সেল ও প্রফেশনাল ক্যামেরা মুড

Primo X4 এর সীমাবদ্ধতাঃ দারুণ সব ফিচারসম্পন্ন Primo X4 এ উল্লেখযোগ্য কোন সীমাবদ্ধতা পরিলক্ষিত না হলেও অক্টাকোর প্রসেসর ও ৪ গিগাবাইট র‍্যামের এই ফোনের ব্যাটারি আরেকটু বেশি মিলিঅ্যাম্পিয়ারের হলে ভালো হতো বলে আমি মনে করি।
Primo X4 Hands-on Review Limitations

চূড়ান্ত সিদ্ধান্তঃ অধিক র‍্যাম, চমৎকার ক্যামেরা, আপডেটেড অপারেটিং সিস্টেম ও কাঙ্খিত সব ফিচারের পাশাপাশি যারা স্লিম ও আকর্ষণীয় ডিজাইনের স্মার্টফোনের খোঁজ করেন তাদের জন্য Walton Primo X4 হতে পারে আদর্শ পছন্দ। বিশেষ করে ৪ গিগাবাইট র‍্যামের কারণে এই ফোন সহজেই ক্রেতার মনে অন্যদের থেকে আলাদা জায়গা করে নিতে সক্ষম। সেইসাথে যারা মোবাইল দিয়েই করতে চান মনের মতো ফটোগ্রাফি তাদের নিকটও বেশ গ্রহণযোগ্যতা পেতে পারে প্রফেশনাল ক্যামেরা মুড সংবলিত ১৬ মেগাপিক্সেল রেয়ার ক্যামেরার এই ফোন। আর এর ১৩ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরার কথা তো আরও একবার বিশেষভাবে না বললেই নয়!
Primo X4 hands-on review
প্রিয় পাঠক, কী ভাবছেন? Primo X4 কিনবেন নাকি অন্য কোন ফোনের জন্য অপেক্ষা করবেন? হাই-এন্ডের কোন স্মার্টফোন কেনার পূর্বে একবার প্রিমো এক্স ৪ দেখে নিতে পারেন। বিশেষ করে মাত্র ২২,৯৯০ টাকার ফোনে ৪ গিগাবাইট র‍্যাম! অনেকটাই অবিশ্বাস্য! Primo X4 এর রিভিউ সম্পর্কে আপনাদের মূল্যবান মন্তব্য লিখুন কমেন্টে, আর এই ফোন সম্পর্কে কোন জিজ্ঞাসা থাকলেও কমেন্টে জানাতে পারেন। নতুন কোন স্মার্টফোনের হ্যান্ডস-অন রিভিউ নিয়ে আবারও দেখা হবে আপনাদের সাথে। সবাই ভালো থাকুন আর চোখ রাখুন প্রিয় টেকে।