বর্তমানের যুগটিকে নির্দ্বিধায় স্মার্টফোনের যুগ বলে চালিয়ে দেয়া যায়। প্রায় প্রতি মাসেই স্মার্টফোন নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠানগুলো নিত্য নতুন সব চোখ ধাঁধানো চমৎকার সব স্মার্টফোন প্রযুক্তি বাজারে এনে ব্যবহারকারীদের অবাক করে দিতেই ব্যস্ত যেন। প্রতিষ্ঠানগুলোর এই ঠাণ্ডা যুদ্ধে অবশ্য আমরা যারা ব্যবহারকারীরা আছি তাদেরই লাভ হচ্ছে, কেননা এই প্রতিযোগিতার ফলে সবার নাগালের মধ্যেই বর্তমানে বেশ কিছু স্মার্টফোন চলে এসেছে। কিন্তু মজার বিষয় হচ্ছে, স্মার্টফোনের রাজত্ব চললেও, চারদিকে স্মার্টফোনের জয়জয়কার হলেও অনেক ব্যবহারীরাই আছেন যারা সেকেন্ডারি ফোন হিসেবে ফিচার ফোন ব্যবহার করে থাকেন। এর পেছনে অনেক কারণ থাকতে পারে তবে সবচাইতে প্রধান কারণ যেটা কাজ করে বলে আমি মনে করি তা হচ্ছে 'ব্যাটারি ব্যাক-আপ!' স্মার্টফোনগুলোতে সব কিছু ঠিক ঠাক থাকলেও এখন পর্যন্ত ব্যাটারি অপটিমাইজেশনের জায়গাটা কেন যেন খুব ভালো করে রপ্ত করতে পারছেনা স্মার্টফোন নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠানগুলো। ফলে, ব্যবহারকারীদের হাতে শক্তিশালী প্রযুক্তির স্মার্টফোনের পাশাপাশি ফিচার ফোনগুলোও জায়গা করে নিচ্ছে। 

প্রযুক্তি বাজার ঘুরলে আপনি এখনও ফিচার ফোনের বেশ আধিপত্য লক্ষ্য করবেন। কেননা, বাজারে স্মার্টফোন রাজত্ব করলেও ফিচার ফোন গুলোর চাহিদা খুব একটা কমে যায়নি। সেকেন্ডারি ফোন হিসেবেই হোক না কেন, ব্যবহারকারীদের হাতে ঠিকই থেকে যাচ্ছে এই সিম্পল ফোনগুলো। আর যেহেতু ফিচার ফোন ব্যবহারকারীরা ব্যবহার করছেনই তাই আজ চমৎকার এই  ফিচার ফোনটি আপনাদের জন্য রিভিউ করছি। চলুন, শুরু করা যাক। 

 

আন-বক্সিং 

ফোনটির বক্স খুললে আপনি যা যা পাচ্ছেন, 

  • হ্যান্ড সেটটি
  • একটি হেডফোন
  • একটি ব্যাটারি
  • একটি ট্র্যাভেল চার্জার 
  • একটি ডাটা ক্যাবল
  • একটি ইউজার ম্যানুয়াল 
  • এবং, একটি ওয়ারেন্টি কার্ড 

 

স্পেসিফিকেশন 

DiGo ব্র্যান্ডের N241 মডেলের ফিচার ফোনটিতে রয়েছে একটি ২.৫ ইঞ্চি আকারের কিউভিজিএ (৩২০x২৪০ পিক্সেল) ডিসপ্লে প্যানেল। একটি রিয়ার ভিজিএ ক্যামেরা, ৬৪ মেগাবাইট র‍্যাম এবং রম। এই ফোনটিতে আপনি প্রায় ১৬ গিগাবাইট পর্যন্ত মাইক্রো এসডি কার্ড ব্যবহার করতে পারবেন। ২জি সাপোর্টেড এই ফোনটিতে ২টি রেগুলার সিম স্লট রয়েছে। এই ফিচার ফোনটিতে বক্স স্পিকার যুক্ত করা হয়েছে বলেই দাবী করে প্রতিষ্ঠানটি। N421 মডেলের এই ফোনটিতে রয়েছে একটি ৩০০০ মিলি অ্যাম্পিয়ারের একটি রিমুভাল ব্যাটারি ইউনিট। পাশাপাশি, ফোনটিতে টর্চ এবং ব্লুটুথ সুবিধাও রয়েছে। 

 

পারফর্মেন্স 

ফিচার ফোন হিসেবে ডিভাইসটির পারফর্মেন্স যথেষ্ট ভালো। যেহেতু এটি একটি সিম্পল ফিচার ফোন তাই আশা করি আপনি অ্যামোলেড ক্রিপ্স ডিসপ্লে আশা করবেন না? তাই ডিসপ্লে ইউনিট নিয়ে না হয় আলোচনা নাই করা যাক। তবে হ্যাঁ, ডিভাইসটির ডিসপ্লে যথেষ্ট উজ্জ্বল এবং এতে ব্যবহারকারীদের জন্য কাস্টম কনট্রাস্ট সেটিংস-এর ব্যবস্থা রয়েছে। ডিভাইসটির ক্যামেরা ইউনিট আমার মতে ব্যবহারযোগ্য নয়, তবে আবারো মনে করিয়ে দিতে চাই, এই মূল্যের ডিভাইস থেকে আপনি নিশ্চয়ই চমৎকার কোন আউটপুট আশাই করবেন না! এপর্যায়ে আপনি বলতে পারেন, কিছুই যদি আশা না করা যায় তবে কেনই বা এটা কেনা উচিৎ আর কেনইবা এই সেটটি আমি রিভিউ করতে বসেছি। বলছি! 

 

(একদম সিলড! পানি ঢোকার কোন কারণই নেই!) 

 

রিভিউটির টাইটেলটি লক্ষ্য করুন, আমি লিখেছি 'এডভেঞ্চারের সঙ্গী!' আপনি যদি এডভেঞ্চার প্রিয় হয়ে থাকেন বা আপনাকে যদি আপনার অফিসের বা ব্যক্তিগত কোন কাজে প্রায়ই দূরে কোথাও যেতে হয় তবে আপনার স্মার্টফোনের চাইতে এই ফিচার ফোনটি আপনাকে বেশি সাপোর্ট দিবে বলেই আমি আশাবাদী। ডিভাইসটিকে তৈরি করা হয়েছে সম্পূর্ণ পানি নিরোধক করেই, তাই ঝড় বৃষ্টিতে কোন রকম ঝামেলা ছাড়াই এই ফোনটি আপনি ব্যবহার করতে পারবেন। এক কথায়, যে কোন রাফ কন্ডিশনে যেখানে আপনাকে আপনার স্মার্টফোনের সুরক্ষা নিয়ে চিন্তিত থাকতে হবে তখন আপনাকে সবার সাথে নিরবিচ্ছিন্ন ভাবে সংযুক্ত রাখবে এই ফোনটি। ফোনটিতে রয়েছে ৩০০০ মিলি অ্যাম্পিয়ার ব্যাটারি যা এক কথায় অসাধারণ সাপোর্ট দিয়ে থাকে। আমি আজ থেকে ঠিক ৭ দিন আগে ডিভাইসটি ফুল চার্জড করেছিলাম, আজ ৭ দিনের মাথায় এসে যখন আমি এর পাওয়ার ম্যানেজমেন্ট চেক করলাম তখনও ডিভাইসটি আমাকে ৫৬ শতাংশ চার্জ বাকী আছে বলেই দেখাচ্ছে!! ভেবে দেখুন তাহলে একবার? সহজভাবে বললে বলতে হয়, 'চার্জ দিন আর ভুলে যান চার্জের কথা!' ছোট খাটো নয় বরং এক দেড় সপ্তাহের ট্যুর এই ফিচার ফোনটি এক চার্জেই পরিপূর্ণ সাপোর্ট দিতে সক্ষম। 

 

পাশাপাশি, আপনি যদি এফএম রেডিও ভালোবাসেন  তবে এই ফিচার ফোনটি আপনার বেশ পছন্দ হওয়ার কথা। কেননা, এতে রয়েছে ওয়্যারলেস এফএম সুবিধা। ডিভাইসটির স্পিকার বেশ লাউড হওয়ায় ডিভাইসটির মাধ্যমে ভালোই উপভোগ করতে পারবেন এফএম রেডিও। মিউজিক শুনতে চাইলেও বেশ ভালো সময় ধরে শুনতে পারবেন এর বিশাল ব্যাটারি ইউনিটের কারণে! সময় কাটানোর জন্য ইন্টারনেট ব্রাউজার এবং একটি পাজল গেমসও দেয়া হয়েছে এই ফিচার ফোনটিতে। 

(ডিভাইসটিকে পানি নিরোধক করার জন্য এর ব্যাটারির উপর বাড়তি প্ল্যাস্টিক ব্যাবহার করা হয়েছে। এর মধ্যে দিয়ে পানি কোনভাবেই ভিতরে প্রবেশ করতে পারেনা) 

 

ভালো এবং মন্দ দিকগুলো 

প্রতিটি ইলেক্ট্রনিকস ডিভাইসেরই ভালো এবং মন্দ দিক থাকে। যদিও, স্বল্প মূল্যের এই ফিচার ফোনটির ভালো এবং মন্দ দিক বিবেচনা করতে যাওয়া বোকামির মধ্যে পড়ে তবে যেহেতু রিভিউ করতে বসেছি তাই লিখেই দিচ্ছি। 

 

ভালো দিক সমূহ 

  • পানি নিরোধক - এটি একটি পানি নিরোধক ডিভাইস। তাই ঝড়বৃষ্টিতেও কোন রকম সমস্যা ছাড়া ব্যবহার করতে পারবেন এই ডিভাইসটি। আমি ছোট্ট করে এর পানি নিরোধকতা পরীক্ষা করতে চেষ্টা করেছি, চাইলে দেখে নিতে পারেন। 

[video:https://youtu.be/_Ig6MRkwJKE]

  • শক্তিশালী ব্যাটারি - এক চার্জেই ডিভাইসটি অনায়াসের দেড় সপ্তাহ বা তারও বেশি ব্যাকআপ দিতে সক্ষম। আপনি যদি ফোনে খুব বেশিও কথা বলে থাকেন আমি আশা করছি অন্তত এক সপ্তাহ ব্যাটারি ব্যাক-আপ আপনি ফোনটি থেকে পাবেন। 
  • লাউড স্পীকার - প্রতিষ্ঠানটির মতে এতে রয়েছে বক্স স্পীকার। আসলে বক্স স্পীকার বলতে মূলত কী বোঝায় তা আমার জানা নেই তবে হ্যাঁ, ফোনটির স্পীকার বেশ জোড়াল! 
  • ওয়্যারলেস এফএম - এফএম প্রেমীদের জন্য এটি একটি চমৎকার ফিচার। আপনি যখন খুশি, যেখানে খুশি ইচ্ছেমত কোন রকম হেডফোনের ঝামেলা ছাড়াই এফএম রেডিও উপভোগ করতে পারবেন। 

(জোড়াল স্পীকার) 

 

খারাপ দিক সমূহ -

ভারী! - স্লিম সব আকর্ষণীয় স্মার্টফোন ব্যবহার করতে করতে যারা অভ্যস্ত তাদের কিছুটা ঝামেলা হতে পারে প্রথম প্রথম। কেননা, ডিভাইসটির থিকনেস  ১৭.৫ মিলিমিটার! তবে হ্যাঁ, এর পেছনে অবশ্যই কারণ আছে। ফোনটিকে সম্পূর্ণ ভাবে পানি নিরোধক করে তৈরি করতে এবং বড় আকারের ব্যাটারি সহযোজনে প্রতিষ্ঠানটি কিছুটা বলা চলে বাধ্য হয়েছে ডিভাইসটিকে এই আদলে তৈরি করতে। 

চার্জার - ফোনটির সাথে দেয়া হয়েছে একটি ৫০০ এমএএইচ ক্ষমতার ট্র্যাভেল চার্জার। ফলে, বেশ কিছুটা সময় লাগে এই ডিভাইসটির চার্জ ০ থেকে ১০০ শতাংশে নিয়ে যেতে। 

 

সিদ্ধান্ত 

আপনার যদি সেকেন্ডারি ফোন হিসেবে একটি ফিচার ফোন দরকার হয় বা আপনি যদি সত্যিই একজন এডভেঞ্চার প্রিয় মানুষ হয়ে থাকেন তবে নিঃসন্দেহে মাত্র ১৫০০ টাকার (কিছুটা কম বা বেশি হতে পারে) এই ডিভাইসটি একটি আদর্শ ডিভাইস। ফোনটির গড়ন বাদ দিলে সত্যিই একটি ফিচার ফোনের 'চমৎকার ডিভাইস' হওয়ার জন্য যেসব যোগ্যতার দরকার হয় সেসব গুণই এর মধ্যে রয়েছে।