ছবি সংগৃহীত

১০ হাজার জনবল নিতে চায় সৌদি আরব

সৌদি আরবের কাছে থেকে ১০ হাজার জনবল নিয়োগের প্রস্তাব পেয়েছে বাংলাদেশ। সৌদি সরকারের তরফ থেকে সেদেশের বাংলাদেশ দূতাবাসকে এই প্রস্তাব দেয়া হয়েছে। বুধবার আরব নিউজকে বিষয়টি জানিয়েছেন বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত গোলাম মসিহ। বৃহস্পতিবার খবরটি প্রকাশ করা হয়েছে।

priyo.com
লেখক
প্রকাশিত: ২৩ এপ্রিল ২০১৫, ০৬:০৩ আপডেট: ১৮ আগস্ট ২০১৮, ০৭:০০
প্রকাশিত: ২৩ এপ্রিল ২০১৫, ০৬:০৩ আপডেট: ১৮ আগস্ট ২০১৮, ০৭:০০


ছবি সংগৃহীত
(প্রিয়.কম) সৌদি আরবের কাছে থেকে ১০ হাজার জনবল নিয়োগের প্রস্তাব পেয়েছে বাংলাদেশ। সৌদি সরকারের তরফ থেকে সেদেশের বাংলাদেশ দূতাবাসকে এই প্রস্তাব দেয়া হয়েছে। বুধবার আরব নিউজকে বিষয়টি জানিয়েছেন বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত গোলাম মসিহ। বৃহস্পতিবার খবরটি প্রকাশ করা হয়েছে। গোলাম মসিহের বরাতে আরব নিউজ জানায়, সোমবার বাংলাদেশি কর্মীদের ভিসা দেওয়ার ঘোষণা দেয় সৌদি কর্তৃপক্ষ, এরপরই এই অর্ডার আসে। নতুন জনবল নিয়োগ করা হবে চালক, গৃহকর্মী ও মালী (গার্ডেনার) পদে। মসিহ জানান, পেশাদারি চাহিদা মেটাতে সৌদি আরবে প্রশিক্ষিত ও দক্ষ জনবল পাঠানোর ব্যাপারে বাংলাদেশ সরকার বিশেষ মনোযোগী। আরব নিউজকে মসিহ জানান, বাংলাদেশের শ্রমিকরা তাঁদের আন্তরিকতা, আনুগত্য, সততা, বিশ্বস্ততার সুপরিচিত। ‘আমরা আশা করছি, গৃহস্থালি ও কৃষিকাজের জন্য প্রতি মাসে আমরা ৩০ হাজার শ্রমিক পাঠাতে পারব,’ যোগ করেন তিনি। রাষ্ট্রদূত বলেন, ‘কৃষি খাতে আমাদের শ্রমিকরা প্রশিক্ষিত। তাঁরা মরুভূমিকে সবুজ বাগানে রূপান্তর করতে পারেন।’ তিনি জানান, সৌদি আরবে বাংলাদেশের প্রায় ১২ লাখ লোক কাজ করেন। গত মাসে বাংলাদেশ ও সৌদি আরব সরকারের মধ্যে চুক্তি হয়। চুক্তিতে সই করেন সৌদি আরবের উপশ্রম ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী আহমেদ আল-ফাহাইদ এবং বাংলাদেশের প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থানমন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেন। রাষ্ট্রদূত জানান, এই চুক্তিতে শ্রমিকদের চাকরিদাতা (মালিক) ও শ্রমিকদের অধিকার রক্ষা করা হয়েছে। শ্রমিকদের স্বাস্থ্য ভালো রাখতে হবে, সংশ্লিষ্ট পেশা নিয়ে প্রশিক্ষণ দিতে হবে এবং কারো বিরুদ্ধে ফৌজদারি অভিযোগ থাকা যাবে না বলে চুক্তিতে উল্লেখ করা হয়েছে।

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

loading ...