ছবি সংগৃহীত

‘গণতন্ত্র’ শব্দটাই আর ব্যবহার করা উচিত নয়: মাহফুজ আনাম (ভিডিও)

দেশে ‘গণতন্ত্র’ শব্দটাই আর ব্যবহার করা উচিত নয় বলে মন্তব্য করেছেন ডেইল স্টার সম্পাদক মাহফুজ আনাম।

priyo.com
লেখক
প্রকাশিত: ২৭ ডিসেম্বর ২০১৩, ১৩:৫০ আপডেট: ১৮ এপ্রিল ২০১৮, ০৪:০১
প্রকাশিত: ২৭ ডিসেম্বর ২০১৩, ১৩:৫০ আপডেট: ১৮ এপ্রিল ২০১৮, ০৪:০১


ছবি সংগৃহীত
দেশে ‘গণতন্ত্র’ শব্দটাই আর ব্যবহার করা উচিত নয় বলে মন্তব্য করেছেন ডেইল স্টার সম্পাদক মাহফুজ আনাম। চলমান রাজনৈতিক সংকট নিয়ে চ্যানেল আই আয়োজিত এবং জিল্লুর রহমান উপস্থাপিত টকশো ‘তৃতীয় মাত্রা’য় তিনি এ মন্তব্য করেন। মাহফুজ আনাম আরও বলেন, এখন দেশে চলছে নগ্ন ক্ষমতার লড়াই। মূল্যহীন, অর্থহীন, আদর্শহীন, দেশপ্রেমহীন ক্ষমতার লড়াই। তিনি বলেন, একজন মুক্তিযোদ্ধা হিসাবে গণতন্ত্রের এই অবস্থা আমি কোনোক্রমেই আশা করিনি। পাকিস্তানিদের বিরুদ্ধে আমাদের প্রধান অভিযোগই ছিল, তারা আমাদের গণতান্ত্রিক অধিকার দেয়নি। চলমান অস্থিরতা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আমার দূঃখ লাগে যখন দেখি রাস্তাঘাটে সহিংসতার শিকার হচ্ছে সাধারণ মানুষ। আগুনে পুড়ে মরছে শিশুরা। তত্ত্বাবধায়ক প্রেসঙ্গে তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ ১৯৯৪ থেকে ১৯৯৬ সাল পর্যন্ত দু’বছর আন্দোলন করলো, দেশে তোলপাড় সৃষ্টি করলো তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবিতে। তিনটা নির্বাচন না যেতেই শেখ হাসিনা এবং তার সরকার বলে বসল, জনগন আর তত্ত্বাবধায়ক চায় না। কে তাঁকে বলল এই কথা? যতগুলো জরীপ হয়েছে, সবগুলোতেই সিংহভাগ মানুষ বলেছে, তত্ত্বাবধায়কের অধীনেই নির্বাচন হতে পারে। যুদ্ধাপরাধের বিচার প্রসঙ্গে মাহফুজ আনাম বলেন, যুদ্ধাপরাধের বিচার নিয়ে কন্ট্রোভার্সি কেন হবে? আমরা ওই সময় যারা ছিলা, তারা কেন আমাদের উত্তরসূরীদের বোঝাতে পারি না, আসলেই একটা গণগত্যা হয়েছিল, আসলেই বাঙালিদের নিশ্চিহ্ন করে দিতে একটা উদ্যোগ হয়েছিল? যুদ্ধাপরাধের বিচার প্রসঙ্গে বিএনপির ভূমিকা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, বিএনপি’র মতো বড় একটা দল যখন বলে, আমরা আসল যুদ্ধাপরাধীর বিচার করবো, তখন একটা বিতর্ক সৃষ্টি হয়, তাহলে নিজামী-গোলাম আযমরা আসল না! কাদের মোল্লার ফাঁসির ঘটনায় ইউরোপয়িান ইউনিয়নসহ আন্তর্জাতিক সংগঠনগুলোর ভূমিকা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, তারা মৃত্যুদন্ড সমর্থন করে না। অপরাধ যাই হোক না কেন, মৃত্যুদর্ড দেয়া যাবে না- এটাই তাদের মত। তারা তাদের অবস্থানে ঠিক আছে। পাকিস্তান পার্লামেন্টে নিন্দা প্রস্তাব ও বাংলাদেশে তার প্রতিক্রিয়া প্রসঙ্গে তিনি বলেন, পাকিস্তান সরকার কিন্তু নিন্দা জানায়নি। তাদের দেশের কয়েকজন রাজনীতিবিদ এই প্রস্তাব পার্লামেন্টে উত্থাপন করেছে। অতএব সে প্রেক্ষিতে বাংলাদেশে সৃষ্ট প্রতিক্রিয়া যৌক্তিক। এখানে কূটনৈতিক তৎপরতা মূখ্য হতে পারে না। তিনি আরও বলেন, পাকিস্তান পার্লামেন্টে নিন্দা প্রস্তাব ওঠার পর অনেকদিন বিএনপি নিরব ছিল। শেষে বিরোধীদলীয় নেত্রী তাঁর প্রেস কনফারেনন্সে অত্যন্ত সাদামাটাভাবে জানালেন, তাঁরাও মর্মাহত। অত্যন্ত নিন্দা জানিয়ে আমি বলতে চাই, পাকিস্তানের সাথে সম্পর্কটাই তাঁর কাছে বেশি গুরুত্ব পেয়েছে। [video:http://www.youtube.com/watch?v=yQZ2KjpR5Wc]

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

‘দেশে কোনো মানবতা নেই’

প্রিয় ১৮ ঘণ্টা, ১২ মিনিট আগে

loading ...