(প্রিয়.কম)  প্রিয় পাঠক, আপনাদের জন্য রয়েছে আমাদের এই নতুন আয়োজন। এখানে ‘দ্য সিল্ক রোড পার্টনারশিপ’ এর সহ-প্রতিষ্ঠাতা নাইজেল কাম্বারল্যান্ড লিখিত একটি বইয়ের সাথে আপনাদের পরিচয় করানো হবে। বইটির শিরোনাম, ‘হান্ড্রেড থিংস সাকসেসফুল পিপল ডু: লিটল এক্সারসাইজেস ফর সাকসেসফুল লিভিং’। এবং আমরা বইটি অনুবাদ করছি "সফল ব্যক্তিদের ১০০ জীবনচর্চা" শিরোনামে। সপ্তাহব্যাপী এই আয়োজনে প্রতিদিন এই বই থেকে একটি করে বিষয় আলোচনা করা হবে। আজকের আয়োজনে জেনে নিন সফল ব্যক্তিদের করা ২৮ নম্বর বিষয়টি সম্পর্কে। বইটি অনুবাদ করেছেন বুশরা আমিন তুবা।

আপনার শান্ত থাকা এবং সেই মুহূর্তে অবস্থান করা খুব জরুরী, প্রতীকী ছবি 

অনুশীলন ৩০- 'ভালোভাবে বাঁচুন' 

ব্রিটেনে ভয়ংকর কারাবন্দীদের ভয়াবহতা কমানোর জন্যে এক প্রকার অনুশীলন করানো হয়। কর্পোরেট দুনিয়াতে কর্মীদের বিভিন্ন কোর্স ও প্রশিক্ষণ দেওয়া হয় ভালোমত বাঁচা এবং কাজ করা নিয়ে। 

একাগ্রতা বলতে একদম সাধারণভাবে বোঝানো হয় সেই মূহূর্তের মধ্যে বসবাস করা এবং তখন অতীত ও ভবিষ্যতের যাবতীয় দুশ্চিন্তা বাদ দিয়ে দেওয়া। আপনার সাথে এখন কী হচ্ছে, সেদিকে পরিপূর্ণভাবে মনোযোগ দেওয়া। 

আপনার শান্ত থাকা এবং সেই মুহূর্তে অবস্থান করা খুব জরুরী। কোন ব্যাপারটা অনুপস্থিত কিংবা বদলানো দরকার সেদিকে পুরোদস্তুর খেয়াল না করলেও চলবে। আমরা দুশ্চিন্তা করে নিজেদের বর্তমান সুখ ও আনন্দ উড়িয়ে দিতে বেশ পারদর্শী। ধরুন, আপনি আপনার গাড়ি নিয়ে বের হলেন কিন্তু গন্তব্য ঠিক করা নেই এবং আপনি একটু পরেই চলে গেলেন যেকোন জায়গায়, একটু ভাবুন তো কেমন হবে ব্যাপারটা? 

একাগ্র থাকার মানেই হলো অতীতে যা হয়ে গিয়েছে সেটাকে ভুলে যাওয়া এবং ভবিষ্যতে যা ঘটবে সেটা নিয়ে আগাম চিন্তা না করা। আপনি একদম বর্তমান মুহূর্তে অবস্থান করবেন কোন অযথা দুশ্চিন্তা ছাড়াই। 

অতএব, আপনাকে নীচের অভ্যাসগুলো বাদ দিতে হবে:

*অতীত নিয়ে ভাবা এবং অপরাধী বোধ না করা,

*কাল কিংবা আগামী সপ্তাহে কি ঘটবে সেটি নিয়ে দুশ্চিন্তা করা,

*আজকের কাজ আপনাকে কতোটুকু ফল প্রদান করবে সেটি নিয়ে অতিরিক্ত ভাবা।

আপনার সকল চিন্তাকে অগ্রাধিকার দেওয়ার দরকার নেই, প্রতীকী ছবি 

নিজের চিন্তাধারার বন্ধু হন

আপনি হয়তো কখনোই নিশ্চুপ হতে পারবেন না এবং আপনার মাথায় হাজারো চিন্তাভাবনা কাজ করবে। কিন্তু একটু চেষ্টা করলেই আপনি নিজেকে শান্ত ও সুশীল রাখতে পারবেন। এক্ষেত্রে আপনার উদ্দেশ্য হবে-

*আপনার সকল চিন্তাকে অগ্রাধিকার দেওয়ার দরকার নেই,

*আপনার মনে ঘটে যাওয়া সকল চিন্তাধারা বাদ দিয়ে দিন। 

মেডিটেশন শিখুন এবং নীরবতা পালন করার প্রক্রিয়া জেনে নিন। মেডিটেশন কিংবা ধ্যান করার অসংখ্য উপায় আছে। আপনার পছন্দমত যেকোন একটা বেছে নিয়ে কাজ করা শুরু করুন। 

ধ্যান করার সময় আপনার চিন্তাধারাগুলোকে নিজের মতন বয়ে যেতে দিন। চিন্তাগুলোর সাথে আপন খেয়াল মিশিয়ে দিন। একটু নীরব থাকুন, আবার চিন্তায় মগ্ন হয়ে যান। শান্ত যে মুহুর্তগুলো আছে সেখানে চেনার চেষ্টা করুন। প্রতিদিন ধ্যানের মাধ্যমে আপনি নিজেকে পুরোপুরিভাবে চিনতে ও জানতে পারবেন। অতীত ও ভবিষ্যত নিয়ে দুশ্চিন্তা করা বন্ধ করবেন। 

ছোটখাটো মুহূর্তগুলো উপভোগ করা শিখুন

একটু থামুন এবং চারপাশে চোখ বুলান। কি হচ্ছে খেয়াল করার চেষ্টা করুন। কোথায় কি হচ্ছে, আপনি কি ভাবছেন এসব ব্যাপারে ভাবতে আপনার মনকে প্রশিক্ষণ দিন। গতকাল কি হয়েছে এবং আগামীকাল কি হবে এসব ভেবে চিন্তায় মগ্ন হয়ে যাবেন না। রেস্তোরাঁ কিংবা ঘরে খাবার খাওয়ার সময় শুধু সেদিকেই মন দিন, সোশ্যাল মিডিয়াকে একটু দূরে রাখুন। খাবারের দাম কত সেটা চিন্তা না করে স্বাদের ব্যাপারে ভাবুন। দেখবেন আপনার সময়গুলোই অন্যরকম ভাবে কাটবে।