১১জনকে আটক করে পুলিশ । ছবি: সংগৃহীত

৯৯৯-এ গ্রামবাসীর ফোন, ১১ ‘ডাকাত’ ধরা

গ্রামবাসী বিষয়টি টের পেয়ে পুলিশের জরুরি সেবাদানকারী ৯৯৯ নম্বরে ফোন দেয়।

হাসান আদিল
সহ-সম্পাদক
১৬ এপ্রিল ২০১৮, সময় - ২১:৩৫


১১জনকে আটক করে পুলিশ । ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) জরুরি সেবাদানকারী ৯৯৯ নম্বরে ফোন পাওয়ার পর সুনামগঞ্জের বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার সলুকাবাদ ইউনিয়নের ডলুরা গ্রামে ডাকাতির অভিযোগে ১১ জনকে দেশীয় অস্ত্রসহ আটক করেছে পুলিশ। 

১৬ এপ্রিল, সোমবার ভোরে উপজেলার সলুকাবাদ ইউনিয়নের ডলুরা গ্রামের অদুদ মিয়া ও জুলহাস মিয়ার বাড়িতে ডাকাতির সময় তাদের আটক করা হয়।

পুলিশ জানায়, সোমবার ভোরে ডলুরা গ্রামের অদুদ মিয়া ও জুলহাস মিয়ার বাড়িতে হানা দেয় ডাকাত দল। এ সময় গ্রামবাসী বিষয়টি টের পেয়ে পুলিশের জরুরি সেবাদানকারী ৯৯৯ নম্বরে কল দিলে এলাকাবাসীর সহযোগিতায় বিশ্বম্ভরপুর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে ডাকাতদের আটক করে।

এ সময় ডাকাতদের কাছ থেকে নগদ ৩৯০০ টাকা, একটি সোনার চেইন, দুটি মোবাইল সেট, একটি রামদা, একটি চাকু, একটি চাইনিজ কুড়াল ও একটি স্ক্রু-ড্রাইভারসহ বিভিন্ন দেশীয় অস্ত্র জব্দ করা হয়।

আটককৃতরা হলেন- সুনামগঞ্জ পৌরসভার ষোলঘর এলাকার রুবেল মিয়া (৩০), শায়েস্তাগঞ্জ বাজারের এনাম মিয়া (৪০), জসিম উদ্দিন (৩০) ও সাদিকুর রহমান (২০), বাহাদুরপুর গ্রামের কামাল মিয়া (৩৫), সিলেটের মানসি নগর গ্রামের আমিন মিয়া (২৮), হেংলাকান্দি গ্রামের মিজনুর রহমান (৪৫), সদর উপজেলার কাপনা গ্রামের বাচ্চু মিয়া (৩৫), নোয়াগাঁও গ্রামের আশরাফ আলী (৩৫), হবিগঞ্জের শিবপাশা গ্রামের সুমন মিয়া (২৫) ও দেবিপুর গ্রামের রাসেল মিয়া (৩০)।

বিশ্বম্ভরপুর থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক প্রদীপ কুমার চক্রবর্তী জানান, সোমবার জরুরি সেবার কল পেয়ে এলাকাবাসীয় সহযোগিতায় ডলুরা গ্রাম থেকে ডাকাতদের আটক করা হয়। তাদের বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

প্রিয় সংবাদ/রুহুল

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন
‘কেন শিক্ষকরা লাঞ্ছিত হলো’
ইতি আফরোজ ১৬ জুলাই ২০১৮
মোবাইল ‘চুরি’র ঘটনায় নাকে খত, জরিমানা আড়াই লাখ টাকা
আয়েশা সিদ্দিকা শিরিন ১৬ জুলাই ২০১৮