প্রতীকী ছবি

নাক ঝাড়তে গিয়ে ভাঙল হাড়!

সাধারণ এই কাজটি করতে গিয়েই হাড় ভেঙে ফেলেন ৩৬ বছর বয়সী এক ব্রিটিশ নারী।

কে এন দেয়া
সহ-সম্পাদক
প্রকাশিত: ১০ জুলাই ২০১৮, ১৬:০১
আপডেট: ২০ আগস্ট ২০১৮, ১৩:৪৮


প্রতীকী ছবি

(প্রিয়.কম) ঠান্ডা লেগে সর্দি হলে নাক ঝাড়া খুবই সাধারণ একটি কাজ। কিন্তু সাধারণ এই কাজটি করতে গিয়েই হাড় ভেঙে ফেলেন ৩৬ বছর বয়সী এক ব্রিটিশ নারী। বেশি জোর দিয়ে নাক ঝাড়ার কারণে তার চোখের কোটরের একটি হাড় ভেঙে যায়। খবর লাইভসায়েন্স।

২৮ জুন বিএমজে কেস রিপোর্টস জার্নালে প্রকাশিত হয় এ ঘটনার একটি প্রতিবেদন। এতে বলা হয়, জোরে নাক ঝাড়ার পর কিছুক্ষণের জন্য ওই নারী দুই চোখে কিছু দেখতে পারছিলেন না। তার দৃষ্টি ফিরে আসে দ্রুতই। কিন্তু ঘণ্টা দুই পর তার নাকের বাম ছিদ্র দিয়ে রক্তপাত হতে থাকে এবং বাম চোখের আশপাশে ফুলে যায়। তার দৃষ্টিতে সমস্যা দেখা দেয়, মাথা এবং ঘাড়ের বাম পাশে ছুরিকাঘাতের মতো ব্যথা হতে থাকে। এ পর্যায়ে তিনি হাসপাতালের জরুরি বিভাগে ভর্তি হন।

মুখমণ্ডলের এক সিটি স্ক্যানের পর দেখা যায়, তার বাম চোখের কোটরের একটি হাড় ভেঙে গেছে। হাড়টি হলো ল্যামিনা পাপাইরাসি—চোখকে ঘিরে থাকা একটি হাড়।

চোখের কোটরের হাড় ভেঙে যাওয়া নতুন কিছু নয়। কিন্তু সাধারণত তা আঘাত থেকে হয়, যেমন চোখে ঘুষি মারলে বা খেলার সময়ে চোখে বল আঘাত করলে এমন হতে পারে, জানিয়েছেন এ প্রতিবেদনের লেখক ড. স্যাম মায়ার্স। লন্ডনের নর্থ মিডলসেক্স ইউনিভার্সিটি হসপিটালে কর্মরত এই ডাক্তারই ওই নারীকে চিকিৎসা দিয়েছিলেন।

ড. মায়ার্স জানান, চোখের ওই হাড় পাতলা এবং তা ভাঙা সহজ। কিন্তু নাক ঝাড়ার সময়ে তা ভাঙার কথা নয়।  তিনি এই প্রথম এমন ঘটনা দেখলেন।  কিন্তু এই নারীর ক্ষেত্রে তা হয়েছে। এর পেছনে কিছু কারণ থাকতে পারে।

একটি কারণ হলো, ওই নারীর সপ্তাহখানেক ধরে ঠান্ডা লেগে ছিল। তিনি ঘন ঘন নাক ঝাড়ছিলেন। এ ছাড়া তিনি নাক ঝাড়ার সময় নাকের এক ছিদ্র বন্ধ করে অন্য ছিদ্র দিয়ে জোরে নাক ঝাড়তেন। এতে সাইনাসের ওপর অতিরিক্ত চাপ পড়ে।

আরেকটি কারণ হলো, ওই নারী প্রচুর ধূমপান করতেন। ধূমপানের ফলে সাইনাসে পরিবর্তন আসে। চোখের কোটরের পাশেই থাকে সাইনার। ফলে হাড় ভাঙার পেছনে ধূমপানেরও ভূমিকা থাকতে পারে।

এ ছাড়া হয়তো জন্মগতভাবেই ওই নারীর চোখ ও নাকের আশপাশের হাড় দুর্বল ছিল।  এসব কারণ মিলে নাক ঝাড়ার কারণে হাড়টি ভাঙে।

হাসপাতালে এক রাত কাটানোর পর ওই নারীকে পেইনকিলার এবং অ্যান্টিবায়োটিক দেওয়া হয়। কিছুদিনের মাঝেই তার ব্যথা কমে আসে। তার চোখেও স্থায়ী কোনো ক্ষতি হয়নি। তবে তিনি সাবধানতাবশত ধূমপান ছেড়ে দিয়েছেন।

প্রিয় জটিল/আজাদ চৌধুরী

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন
স্পন্সরড কনটেন্ট
দুর্ঘটনার কবলে | কালের কণ্ঠ
দুর্ঘটনার কবলে | কালের কণ্ঠ
কালের কণ্ঠ - ৩ দিন, ১ ঘণ্টা আগে
তুরস্কে ট্রেন দুর্ঘটনায় নিহত ৯ | কালের কণ্ঠ
তুরস্কে ট্রেন দুর্ঘটনায় নিহত ৯ | কালের কণ্ঠ
কালের কণ্ঠ - ৩ দিন, ১ ঘণ্টা আগে
সড়ক  দুর্ঘটনায়  নিহত ৯
সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৯
মানবজমিন - ৩ দিন, ৪ ঘণ্টা আগে
টাঙ্গাইলে সড়ক দুর্ঘটনায় সেনা সদস্য নিহত
টাঙ্গাইলে সড়ক দুর্ঘটনায় সেনা সদস্য নিহত
জাগো নিউজ ২৪ - ৩ দিন, ৭ ঘণ্টা আগে
টাঙ্গাইলে সড়ক দুর্ঘটনায় সেনা সদস্য নিহত
টাঙ্গাইলে সড়ক দুর্ঘটনায় সেনা সদস্য নিহত
বাংলা ট্রিবিউন - ৩ দিন, ৭ ঘণ্টা আগে