জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে নন-এমপিও শিক্ষকদের অনশন ভাঙান জাতীয় অধ্যাপক আনিসুজ্জামান। ছবি: প্রিয়.কম

‘প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষকের কথায় আমরণ অনশন প্রত্যাহার করেছি’

‘আনিসুজ্জামান জাতীয় অধ্যাপক, জাতির বিবেক, প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষক। তার কথার ওপর আস্থা রেখে আমরা অনশন ও অবস্থান কর্মসূচি প্রত্যাহার করেছি।’

প্রদীপ দাস
নিজস্ব প্রতিবেদক
১১ জুলাই ২০১৮, সময় - ১৭:৪৫


জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে নন-এমপিও শিক্ষকদের অনশন ভাঙান জাতীয় অধ্যাপক আনিসুজ্জামান। ছবি: প্রিয়.কম

(প্রিয়.কম) নন-এমপিওভুক্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার শিক্ষক জাতীয় অধ্যাপক আনিসুজ্জামানের আশ্বাসের পরিপ্রেক্ষিতে ১৭ দিনের মাথায় আমরণ অনশন ভাঙলেন আন্দোলনরত শিক্ষক-কর্মচারীরা।

১১ জুলাই, বুধবার দুপুর ৩টার দিকে আন্দোলনকারীদের আমরণ অনশন ভাঙান জাতীয় অধ্যাপক আনিসুজ্জামান, তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা রাশেদা কে চৌধুরী ও বিশিষ্ট নাগরিক জিয়াউদ্দিন।

নন-এমপিও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান শিক্ষক কর্মচারী ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক ড. বিনয় ভুষণ রায় এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, ‘আমরা আমাদের আমরণ অনশন এবং অবস্থান কর্মসূচি ভেঙেছি।’

অনশন ভাঙার আগে আন্দোলনকারীদের পাঁচ সদস্যের এক প্রতিনিধি দল শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদের সঙ্গে বৈঠক করেন।

এ বিষয়ে বিনয় ভুষণ রায় প্রিয়.কমকে বলেন, ‘আমরা শিক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করেছি এবং ফলপ্রসূ বৈঠক করেছি। তার সঙ্গে আলোচনার পর বুঝতে পেরেছি, আমাদের দাবি বাস্তবায়নের পথে কোনো অন্তরায় নেই। শিক্ষামন্ত্রী জানিয়েছেন, আমাদের দাবি পূরণ করার জন্য উনি সর্বোচ্চ চেষ্টা করবেন। উনি অনশন ভাঙার অনুরোধ করেছেন।

তারপর জাতীয় অধ্যাপক আনিসুজ্জামান, তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা রাশেদা কে চৌধুরী এবং বিশিষ্ট নাগরিক জিয়াউদ্দিন এসে আমাদের দাবির সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ করেন। আনিসুজ্জামান জাতীয় অধ্যাপক, জাতির বিবেক, প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষক। তার কথার ওপর আস্থা রেখে আমরা অনশন ও অবস্থান কর্মসূচি প্রত্যাহার করেছি।’

এর আগেও তো সরকারের পক্ষ থেকে দাবি মেনে নেওয়ার আশ্বাস দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু তা বাস্তবায়ন করা হয়নি। এবার কীভাবে আশ্বস্ত হলেন জানতে চাইলে বিনয় ভুষণ রায় বলেন, ‘এবারে শিক্ষামন্ত্রীর আন্তরিকতার কোনো অভাব নেই বলে আমি মনে করছি। আমরা তার আশ্বাসের সাথে বিশ্বাস স্থাপন করেছি।’

নন-এমপিও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান শিক্ষক কর্মচারী ফেডারেশনের সভাপতি অধ্যক্ষ গোলাম মাহমুদুন্নবী ডলার বলেন, ‘শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদের সঙ্গে আমাদের কথা হয়েছে। উনি বলেছেন, আমাদের বিষয়ে কাজ চলছে এবং সর্বোচ্চসংখ্যক নিবন্ধিত নন-এমপিওভুক্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানকে এমপিওভুক্তি করা হবে।’

আন্দোলনকারীদের দেওয়া তথ্য মতে, ৫ হাজারের বেশি নিবন্ধিত নন-এমপিও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে প্রায় ৮০ হাজার শিক্ষক-কর্মচারী প্রতিষ্ঠার পর ১৫ থেকে ২০ বছর ধরে কোনো ধরনের বেতন-ভাতা পান না। এসব প্রতিষ্ঠানে ২০ লাখের বেশি শিক্ষার্থী পড়াশোনা করছে।

এমপিওভুক্তির দাবিতে এসব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-কর্মচারীরা বিভিন্ন সময় আন্দোলন করেছেন। চলতি বছরের শুরুতে নন-এমপিওভুক্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষকরা এমপিওভুক্তির দাবিতে আন্দোলন করেন।

সরকারের পক্ষ থেকে এমপিওভুক্তির প্রতিশ্রুতি দেওয়া হলে শিক্ষক-কর্মচারীরা আন্দোলন থেকে সরে দাঁড়ান। কিন্তু ২০১৮-১৯ অর্থবছরের বাজেটে এমপিওভুক্তির জন্য কোনো বরাদ্দ রাখা হয়নি। ফলে ১০ জুন আন্দোলন শুরু করে নন-এমপিও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান শিক্ষক-কর্মচারীরা।  পরে দাবি আদায় না হওয়ায় গত ২৫ জুন থেকে তারা আমরণ অনশন কর্মসূচি শুরু করেছেন।

এরপরও দাবি মানা না হলে ১ জুলাই আন্দোলনকারীরা সরকারকে দুটি শর্ত দেন। এর একটি হলো, বরাদ্দকৃত অর্থ অপর্যাপ্ত হলে সব নন-এমপিও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওর আওতায় এনে আংশিক বেতন চালু করা। দ্বিতীয় দাবিতে তারা বলেন, দীর্ঘদিন এমপিওভুক্তি না থাকায় কিছু প্রতিষ্ঠান দুর্বল হয়ে পড়েছে। এসব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সক্ষমতা যাচাই করতে ৩ বছর সময় দেওয়া। এর মধ্যে তারা সক্ষমতা অর্জনে ব্যর্থ হলে বিকল্প ব্যবস্থা নেওয়া।

প্রিয় সংবাদ/হাসান/আজহার

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন
কুমিল্লায় বাস উল্টে ২ যাত্রী নিহত
আয়েশা সিদ্দিকা শিরিন ২১ জুলাই ২০১৮
রাজধানীতে প্রতি মাসে বেড়েছে ১৫০০ ব্যক্তিগত গাড়ি
আয়েশা সিদ্দিকা শিরিন ২১ জুলাই ২০১৮
‘নারীদের জন্য নিরাপদ নয় ভারত’
সৌরভ মাহমুদ ২১ জুলাই ২০১৮
নারায়ণগঞ্জে দুই নৈশ প্রহরীকে হত্যা করে ডাকাতি
ইমামুল হাসান স্বপন ২১ জুলাই ২০১৮
রঙতুলির আঁচড়ে শেখ হাসিনা
রঙতুলির আঁচড়ে শেখ হাসিনা
বাংলা নিউজ ২৪ - ১৭ ঘণ্টা আগে
ট্রেন্ডিং