প্রতীকী ছবি

পাখির ডিম ভাঙায় শিশুকে একঘরে

চড়ুই পাখির ডিম ভাঙলে সম্প্রদায়ের ওপর অশুভ প্রভাব পড়ে এবং ওই গ্রামে বৃষ্টি হয় না।

হাসান আদিল
সহ-সম্পাদক
প্রকাশিত: ১৩ জুলাই ২০১৮, ১৬:০২ আপডেট: ১৮ আগস্ট ২০১৮, ২১:৪৮
প্রকাশিত: ১৩ জুলাই ২০১৮, ১৬:০২ আপডেট: ১৮ আগস্ট ২০১৮, ২১:৪৮


প্রতীকী ছবি

(প্রিয়.কম) স্কুলে সবধানতা অবলম্বন না করায় পায়ের চাপে একটি চড়ুই পাখির ডিম ভেঙে যায়। আর তাতেই বাধে বিপত্তি। কুসংস্কার মানতে গিয়ে ওই শিশুকে ১১ দিন ধরে একঘরে করে রাখা হয়। ঢুকতে দেওয়া হয়নি বাড়িতে। এমনকি খাবার হিসেবে সামান্য পাউরুটি দেওয়া হয়েছিল এতদিন।

ঘটনাটি ঘটেছে রাজস্থানের বুন্দি জেলার হরিপুরা গ্রামে। দেশটির শিশু অধিকার রক্ষা বিভাগের প্রধান মনন চতুর্বেদী পুলিশকে বিষয়টি জানালে মেয়ে শিশুটিকে উদ্ধার করা হয়। 

মেয়েটিকে উদ্ধারের পর গ্রামের ১১ জনের বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৮৪, ৫০৮, ১২০ বি, শিশু অধিকার রক্ষা আইনের ৭৫ ধারা এবং অস্পৃশ্যতাবিরোধী আইনের ৬ নম্বর ধারায় মামলা করা হয় বলে জানিয়েছে দেশটির সংবাদমাধ্যম এবিপি আনন্দ।

নৃশংস এ ঘটনার বিষয়ে হিন্দোলি থানার কর্মকর্তা লক্ষ্মণ সিংহ জানান, স্থানীয় মানুষের বিশ্বাস, চড়ুই পাখির ডিম ভাঙলে সম্প্রদায়ের ওপর অশুভ প্রভাব পড়ে এবং ওই গ্রামে বৃষ্টি হয় না। সেই কারণেই মেয়েটিকে প্রথমে তিন দিন এবং পরে আট দিনের জন্য একঘরে করে রাখা হয়।

মেয়েটির বাবা গ্রামপ্রধানকে শাস্তি তুলে নিতে অনুরোধ করলে বিনিময়ে দামি মদ, বিভিন্ন খাবার, গোখাদ্যের দাবি করেন তিনি। মেয়ের বাবা পরে পুলিশের কাছে অভিযোগ জানালে গ্রামে গিয়ে পুলিশ মেয়েটির ওপর অত্যাচার বন্ধ করতে বলে। পুলিশকে ঘটনা কেন জানানো হলো এর শাস্তিস্বরূপ মেয়েটির পরিবারকেই এবার একঘরে করে দেন সম্প্রদায়ের মানুষরা।

১২ জুলাই, বৃহস্পতিবার দেশটির শিশু অধিকার রক্ষা বিভাগের প্রধান মনন চতুর্বেদী মেয়ে শিশুটিকে দেখতে যান। তার নির্দেশে মামলা করে পুলিশ। একই সঙ্গে পরিবারটিকে গ্যাসের সংযোগ ও দুই মাসের রেশন দেওয়ার ব্যবস্থাও করেন।

প্রিয় সংবাদ/আজাদ চৌধুরী

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

loading ...