তামাক পণ্য। ছবি: সংগৃহীত

আকিজের তামাক ব্যবসা ১২ হাজার ৩৯৮ কোটি টাকায় বিক্রি

বাংলাদেশের সিগারেট বাজার বিশ্বের মধ্যে ৮ম, যার পাঁচ ভাগের এক ভাগ আকিজ টোব্যাকোর দখলে রয়েছে।

জানিবুল হক হিরা
সহ-সম্পাদক
প্রকাশিত: ০৭ আগস্ট ২০১৮, ১৯:০১ আপডেট: ২০ আগস্ট ২০১৮, ২১:০০
প্রকাশিত: ০৭ আগস্ট ২০১৮, ১৯:০১ আপডেট: ২০ আগস্ট ২০১৮, ২১:০০


তামাক পণ্য। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) বাংলাদেশের অন্যতম ব্যবসা প্রতিষ্ঠান আকিজ গ্রুপের তামাকের ব্যবসা কিনে নিয়েছে বিশ্বের তৃতীয় শীর্ষস্থানীয় তামাক কোম্পানি জাপান টোব্যাকো ইনকরপোরেটেড (জেটিআই)। প্রায় ১২ হাজার ৩৯৮ কোটি টাকায় আকিজ গ্রুপের তামাকের ব্যবসা কিনে নিল তারা।

৬ আগস্ট, সোমবার রাজধানীর তেজগাঁওয়ে আকিজ গ্রুপের প্রধান কার্যালয়ে এ বিষয়ে দুপক্ষের মধ্যে চুক্তি সই হয়েছে বলে জেটিআইয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়।

চুক্তি অনুযায়ী, নিয়ন্ত্রক সংস্থার অনুমোদনসাপেক্ষে চলতি অর্থবছরের মধ্যেই আকিজ গ্রুপের তামাক বিভাগ (ইউনাইটেড ঢাকা টোব্যাকো কোম্পানি) অধিগ্রহণের কাজ শেষ করবে জেটিআই।

তামাক শিল্পে বাংলাদেশে দ্বিতীয় বৃহত্তম আকিজের তামাক বিভাগ অধিগ্রহণ করে ব্যবসা সম্প্রসারণের মাধ্যমে জেটিআই এশিয়ায় নিজের অবস্থান জোরদার করবে বলে বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, বাংলাদেশের সিগারেট বাজার বিশ্বের মধ্যে ৮ম, যার পাঁচ ভাগের এক ভাগ আকিজ টোব্যাকোর দখলে রয়েছে। বাংলাদেশে সিগারেটের বাজারে ৯০ শতাংশে তামাক উৎপাদনে দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম আকিজের উপস্থিতি রয়েছে। আকিজের ব্র্যান্ডগুলোর মধ্যে নেভি ও শেখ উল্লেখযোগ্য।

বাংলাদেশে সিগারেটের বাজারের বার্ষিক উৎপাদন ৮ হাজার ৬০০ কোটি ইউনিটের বেশি, যা প্রতি বছর ২ শতাংশ হারে বাড়ছে। এই চুক্তির ফলে জেটি গ্রুপের মোট উৎপাদনে আরও এক হাজার ৭০০ কোটি সিগারেট যুক্ত হবে।

জেটিআই প্রেসিডেন্ট এডি পিরার্ড বলেন, ‘দ্রুত বর্ধনশীল অর্থনীতি এবং ব্যবসাবান্ধব হওয়ায় বাংলাদেশে আমরা উপস্থিতি বাড়াতে আগ্রহী। আকিজ গ্রুপের লাভজনক তামাক বিভাগের রয়েছে সর্বাধুনিক প্রযুক্তির উৎপাদন ব্যবস্থা, শক্তিশালী সরবরাহ ব্যবস্থা ও বিশাল কর্মিবাহিনী।’

চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন আকিজ গ্রুপের চেয়ারম্যান এস কে নাসির উদ্দিন, আকিজ গ্রুপের ম্যানেজিং ডিরেক্টর এস কে বাশির উদ্দিন, আকিজ গ্রুপের সিএফও শামসুদ্দিন আহমেদ, জাপান টোব্যাকো ইন্টারন্যাশনালের প্রেসিডেন্ট ও সিইও এডি পিরার্ড, জাপান টোব্যাকো ইন্টারন্যাশনালের জেনারেল ম্যানেজার ম্যাক্স লোভাচেভ, বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (বিডা) চেয়ারম্যান এম আমিনুল ইসলাম ও স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংক বাংলাদেশের সিইও নাসের এজাজ বিজয়।

প্রিয় সংবাদ/হিরা/শান্ত