নির্বাচন কমিশনার কবিতা খানম। ফাইল ছবি

ভারত-মালয়েশিয়ার তুলনায় বাংলাদেশে ভালো নির্বাচন হয়: ইসি

কবিতা খানম বলেন, ‘ইন্ডিয়া অনেক বেশি বলে। ইন্ডিয়া মনে করে বা বোঝায়, আমরা অনেক ভালো বা অনেক কিছু।’

প্রদীপ দাস
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১৯ আগস্ট ২০১৮, ২০:২১ আপডেট: ২০ আগস্ট ২০১৮, ২৩:৩২


নির্বাচন কমিশনার কবিতা খানম। ফাইল ছবি

(প্রিয়.কম) ভারত, মালয়েশিয়া ও জিম্বাবুয়ের তুলনায় বাংলাদেশে অনেক ভালো নির্বাচন হয় বলে মন্তব্য করেছেন নির্বাচন কমিশনার (ইসি) কবিতা খানম

১৯ আগস্ট, রবিবার বিকেলে রাজধানীর আগারগাঁওয়ে অবস্থিত নির্বাচন কমিশনে নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপের সময় এমন মন্তব্য করেন এই কমিশনার।

কবিতা খানম বলেন, ‘বাংলাদেশে অনেক ভালো ভালো আইন আছে। বাংলাদেশে নির্বাচন অন্য অনেক জায়গার চেয়ে অনেক ভালো হয়। জিম্বাবুয়ে তো তাৎক্ষণিক ফল দেয় না। কয়েকদিন আগেই তো, মারা গেল না তিনজন? মালয়েশিয়া আমরা তো বলি উন্নত কান্ট্রি। মালয়শিয়ার নির্বাচন কমিশনার যেসব কথা বলে গেল, সে রকম ঘটনা আমাদের দেশে ঘটে না।’

ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের নির্বাচনের তুলনা করে কবিতা খানম বলেন, ‘ইন্ডিয়া অনেক বেশি বলে। ইন্ডিয়া মনে করে বা বোঝায় আমরা অনেক ভালো বা অনেক কিছু। কিন্তু আমরা কী জানি না, পঞ্চায়েত নির্বাচনে আটজন না কতজন মারা গেল। কর্নাটকে না কোথায়, নির্বাচন কমিশনার নিজেই বলল, তাদের সেখানে নির্বাচন করতে গিয়ে সমস্যা হয়েছে। কিন্তু আমরা সে তুলনায় অনেক ভালো আছি। রক্তপাত তো নাই। আছে? এই যে এতগুলা নির্বাচন গেল?’

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অনিয়ম হবে না, এই নিশ্চয়তা দেওয়ার সুযোগ নেই বলে জানান প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নুরুল হুদা। সিইসির এই বক্তব্যের সঙ্গে দ্বিমত প্রকাশ করেন চার নির্বাচন কমিশনার।

কমিশনারদের মধ্যে আরও বেশি বিভক্তি ও নির্বাচন কমিশনকে বিতর্কে ফেলার উদ্দেশ্য নিয়ে সাংবাদিকরা সিইসির বিষয়ে বক্তব্য নিয়েছে বলেও মন্তব্য করেন কবিতা খানম। তিনি মনে করেন, কমিশনারদের মধ্যে কোনো বিরোধ নেই।

‘শোনো, তোমাদেরকে একটা কথা বলি। আপিল বিভাগে প্রধান বিচারপতির সঙ্গে কয়েকজন বিচারপতি রাখা আছে। এই কয়েকজন বিচারপতি রাখা আছে ন্যায়বিচারটা প্রতিষ্ঠা করার জন্য। একইভাবে কমিশনেও তো একজন কমিশনার রাখলেই তো হতো। আরও চারজন কেন রাখা হয়েছে? কেন বলা হয়েছে, সংখ্যাগরিষ্ঠতার ভিত্তিতে সিদ্ধান্ত অনুমোদিত হবে? যেহেতু সংখ্যাগরিষ্ঠের ভিত্তিতে একটা সিদ্ধান্ত গ্রহণ করার বা গ্রহণ না করার বিষয়টা আছে, সুতরাং এখানে মতবিরোধ তো থাকতেই পারে। কিন্তু এখানে বিরোধ আছে, এটা তোমরা কোথায় পাচ্ছ খুঁজে?’, বলেন কবিতা।

আরপিও সংশোধনীর কাজ চলছে

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে গণপ্রতিনিধিত্ব অধ্যাদেশ (আরপিও) সংশোধনীর কাজ চলমান আছে বলেও জানান কমিশনার কবিতা খানম।

কিছুদিন পরই বসবে দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের শেষ অধিবেশন। আরপিও সংশোধন করতে হলে এই অধিবেশনেই প্রস্তাব তুলতে হবে। দশম জাতীয় সংসদের শেষ অধিবেশনেই আরপিও সংশোধনীর বিষয়টি তুলে ধরার চেষ্টা থাকবে বলেও জানান এই কমিশনার।

আরপিওতে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) সংযোজনের বিষয়টিতে গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে বলেও জানান কবিতা খানম। তার মতে, জাতীয় নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহার করতে হলে তা আরপিওতে সংযুক্ত করতে হবে। তারপরও কমিশন সিদ্ধান্ত নেবে জাতীয় নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহার করবে কি না। ব্যবহার করলেও তা কতটুকু পরিসরে ব্যবহার করা হবে, সেটাও কমিশন পরবর্তী সময়ে সিদ্ধান্ত নেবে।

ইসি সূত্রে জানা যায়, আরপিওতে ইভিএম যুক্ত ও এর ব্যবহার নিশ্চিত করতে বেশ কিছু ধারা, উপ-ধারা সংশোধন করা হচ্ছে। কিন্তু একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বাধ্যতামূলকভাবে ইভিএম ব্যবহার করতে হবে, এমন কথা কোথাও উল্লেখ নেই।

আরপিওর যেসব ধারা-উপধারা সংযোজন-সংশোধন করে ইভিএম ব্যবহারের কথা বলা হচ্ছে সেগুলো হলো ২৫-এর (বি), ২৬, ২৭ এর (৩)(৪)(৫), ২৮ এর (১), ২৮ এর (২), ২৮ এর (৩), ২৮ এর (৪) (এ), ২৮ এর (সি), ২৮ এর (ডি), ২৮ এর (৫), ২৮ এর (৬), ৩১ এর (১), ৩১ এর (৩), ৩১ এর (৮), ৩২ এর (১), ৩১ এর (১১), ৩৩ এর (১), ৩৪ এর (১), ৩৬ এর (৪), ৩৬ এর (৫), ৩৬ এর (৬), ৩৬ এর (৭), ৩৬ এর (৮), ৩৬ এর (৯), ৩৯ এর (১০), ৩৬ এর (১২), ৩৭ এর (২), ৩৭ এর (৬), ৪৪ এর (বি) (৬), ৪৪ এর (সি) (৪), ৪২ এর (এ) (বি) (সি) (ডি) (ই), ৪৪, ৮১ এর (১১) ও ৮১ এর (১)।

ঈদ পরবর্তী সময়ে জাতীয় নির্বাচনকে কেন্দ্র করেই নির্বাচন কমিশন কাজ করবে বলে জানান কবিতা খানম। ঈদের পর
নির্বাচনের আচরণ বিধিমালা নিয়েও আলোচনা হতে পারে বলেও জানান তিনি।

কবিতা খানমের মতে, সংসদ নির্বাচনের আগে কমিশনের নতুন করে কোনো দলকে নিবন্ধন দেওয়ারও কোনো চিন্তা-ভাবনা নেই।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ভোটকেন্দ্র বাছাইয়ের কাজ প্রাথমিকভাবে শেষ হয়েছে বলেও জানান কবিতা খানম। তিনি জানান, ভোটকেন্দ্র নিয়ে কারো কোনো আপত্তি থাকলে পরবর্তী সময়ে বিষয়গুলো নিয়ে শুনানি হবে।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে রিটার্নিং কর্মকর্তা হিসেবে প্রশাসনের লোকবলের পাশাপাশি নির্বাচন কমিশনের নিজস্ব কর্মকর্তাদের নিয়োগ করা হবে কি না, সেটা সম্পূর্ণ কমিশনের সিদ্ধান্তের বিষয় বলেও জানান কবিতা। তার ভাষ্য, ‘এসব বিষয় নিয়ে আমরা এখনো সক্রিয়ভাবে চিন্তা-ভাবনা করছি না। ঈদের পর কমিশন বৈঠক আছে, তখন আলোচনা করা হবে।’

প্রিয় সংবাদ/আজহার

পাঠকের মন্তব্য(১)

মন্তব্য করতে করুন


মুকুন্দ মজুমদার
মুকুন্দ মজুমদার

কবিতা খানমরা কিভাবে প্রজাতন্ত্রের কর্মকর্তাদের বক্তব্যে সম্বোধন কিভাবে করতে হয় সেই জ্ঞানই নেই, উনাদের পদ যে জনগণের সেবার জন্য বিন্দুমাত্র তা তারা বিশ্বাস করেন না। মনে করেন উনারা বস জনগণ উনাদের দাস ।

আরো পড়ুন
আমলনামার ভিত্তিতেই নির্বাচনে মনোনয়ন: ওবায়দুল
জানিবুল হক হিরা ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮
চাকরি স্থায়ী হচ্ছে কারিগরির ৩০০ শিক্ষকের
প্রিয় ডেস্ক ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮
১০ দিন বয়সী নবজাতকের লাশ পুকুরে
মো. ইমাম জাফর ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮
ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন পুনর্বিবেচনার দাবি টিআইবির
জানিবুল হক হিরা ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮
স্পন্সরড কনটেন্ট
ট্রেন্ডিং