মোহাম্মদ আশরাফুল। ছবি: সংগৃহীত

‘শুধু নান্নু ভাই না, এটা আমিও জানি’

‘ফিটনেস লেভেল নিয়ে যেটা বলেছে, আমি আজ ১১.৪ পেয়েছি। আমি মনে করি, আন্তর্জাতিক ক্রিকেটেও ফিটনেসের মান এমন হয়। আরও উন্নতি করতে পারব, এটা আমার বিশ্বাস।’

মুশাহিদ
সহ-সম্পাদক
প্রকাশিত: ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১৯:০৯ আপডেট: ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১৯:০৯


মোহাম্মদ আশরাফুল। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) মোহাম্মদ আশরাফুলের নিষেধাজ্ঞা শেষ হওয়ার একদিন আগে প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু জানান, এই মুহূর্তে জাতীয় দলে কোনো জায়গা নেই। নির্বাচকের এই বার্তায় অবশ্য ভড়কে যাননি আশরাফুল। বরং ঘরোয়া ক্রিকেটে পারফর্ম করে আবারও জাতীয় দলের জার্সিতে ফিরতে চান টেস্ট ক্রিকেটের সর্বকনিষ্ঠ এই সেঞ্চুরিয়ান। এজন্য কী কী করতে হবে, সেটাও জানা রয়েছে এই টপ অর্ডার ব্যাটসম্যানের।

গেল ১৩ আগস্ট শেষ হয়েছে আশরাফুলের পাঁচ বছরের নিষেধাজ্ঞা। কিন্তু শেষ হয়েও যেন হচ্ছে না শেষ। আরও এক বছর পরীক্ষা দিতে হবে তাকে। ঘরোয়া ক্রিকেটে ‘সবার চেয়ে’ ভালো পারফরমার হিসেবে প্রমাণ করে তাকে জাতীয় দলে জায়গা করে নিতে হবে। এমন তাগিদই দিয়েছিলেন প্রধান নির্বাচক। সেই চ্যালেঞ্জটাই লুফে নিতে প্রস্তুত আশরাফুল।

১২ সেপ্টেম্বর, বুধবার আসন্ন ন্যাশনাল ক্রিকেট লিগ (এনসিএল) সামনে রেখে ফিটনেস টেস্টে অংশ নিয়েছে ঢাকা মেট্রোর ক্রিকেটাররা। এদিন মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ফিটনেস টেস্টে অংশ নিতে এসে এমন লক্ষ্যের কথা জানান আশরাফুল। 

এ প্রসঙ্গে আশরাফুল বলেন, ‘শুধু নান্নু ভাই না, এটা আমিও জানি। আমাকে বাংলাদেশ দলে খেলতে হলে এক্সট্রা অর্ডিনারি পারফরম্যান্স করতে হবে। যেটা আমি ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে গেল বছর করেছিলাম। বাংলাদেশের ইতিহাসে এক লিগে পাঁচ সেঞ্চুরি, টানা তিনটি সেঞ্চুরি। অবশ্যই আমাকে বাংলাদেশ দলে খেলতে হলে এমন কিছুই করতে হবে।’

ঘরোয়া ক্রিকেটে ভালো করে জাতীয় দলে ফেরার জন্য আশরাফুলকে প্রেরণা যোগাচ্ছে তার অতীতের স্মৃতি। তিনি বলেন, ‘২০০৬ সালে জিম্বাবুয়ের সাথে বাদ পড়ার পর ২৬৩ রানের ইনিংস খেলে দলে ফিরেছিলাম। আমি সবসময় বিশ্বাস রেখেছি, আমি বাংলাদেশের হয়ে খেললে আলাদা কিছু করব, তারপর হয়তো আলোচনায় আসব। আমি আসন্ন জাতীয় ক্রিকেট লিগে (এনসিএল) সুযোগ পেলে ১০০ রান করলে সেটাকে ১৫০ রানে রূপান্তর করার চেষ্টা করব। শুরু পেলে বড় বড় ইনিংস খেলার লক্ষ্য থাকবে। তখনই আসলে বিবেচনায় আসা যাবে।’

নিষেধাজ্ঞা শেষ হওয়ার আড়াই মাস আগে থেকে শুরু হয়েছে আশরাফুলের নিজেকে ফিরে পাওয়ার লড়াই। সেই লড়াইয়ের প্রথম ধাপ ফিটনেস। সেখানে ইতোমধ্যে এসেছে কাঙ্ক্ষিত ফল। বিপ টেস্টে ১২ এর মধ্যে আশরাফুলের স্কোর ১১.৪। সুযোগ-সুবিধা পেলে ফিটনেস লেভেলে আরও উন্নতির করা সম্ভব বলেই মনে করেন বাংলাদেশের এই সাবেক অধিনায়ক।

‘ফিটনেস লেভেল নিয়ে যেটা বলেছে, আমি আজ ১১.৪ পেয়েছি। আমি মনে করি, আন্তর্জাতিক ক্রিকেটেও ফিটনেসের মান এমন হয়। আরও উন্নতি করতে পারব, এটা আমার বিশ্বাস। যদি আমি সে রকম সুযোগ-সুবিধা পাই। বাংলাদেশ দলে খেলতে হলে আমি সেই রকম পারফরম্যান্স করেই আসব। আমি শুধু দলে ফেরার জন্য ফিরতে চাই না। আমি প্রচুর রান করে লম্বা সময় ধরে খেলতে চাই’, বলেন আশরাফুল।

২০১৩ সালে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএল) ফিক্সিংয়ে জড়িয়ে আট বছরের জন্য নিষিদ্ধ হন আশরাফুল। আপিলের পর সেই সাজা কমে দাঁড়ায় পাঁচ বছর। দুই বছর আগে বিপিএল ছাড়া অন্যান্য ঘরোয়া আসরে খেলার ছাড়পত্র পান তিনি। কিন্তু পাঁচ বছরের নিষেধাজ্ঞা শেষ হওয়ায় এখন থেকে যেকোনো টুর্নামেন্ট ও আন্তর্জাতিক ক্রিকেটেও খেলার জন্য যোগ্য হিসেবে বিবেচিত হবেন বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের প্রথম পোস্টারবয়।

প্রিয় খেলা/শান্ত  

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন
‘ডাবল সেঞ্চুরি একা করা যায় না’
মুশাহিদ ১২ নভেম্বর ২০১৮
‘মিরাজ খুব মজার একটা চরিত্র’
শান্ত মাহমুদ ১২ নভেম্বর ২০১৮
যে তালিকায় সবার উপরে মুশফিক
মুশাহিদ ১২ নভেম্বর ২০১৮
নির্ভীক মুশফিকে বাংলাদেশের শাসন
শান্ত মাহমুদ ১২ নভেম্বর ২০১৮
অনবদ্য ডাবলে রেকর্ড চূড়ায় মুশফিক
সৌরভ মাহমুদ ১২ নভেম্বর ২০১৮
স্পন্সরড কনটেন্ট