পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক বর্তমানে জাতীয় দলের প্রধান নির্বাচক ইনজামাম উল হক (ইনসেটে ছেলে ইবতাসাম উল হক)। ছবি: সংগৃহীত

ফোন করে ছেলেকে দলে ঢুকিয়েছেন ইনজামাম উল হক!

আবারও স্বজনপ্রীতি বিতর্কে ইনজামাম উল হক।

সৌরভ মাহমুদ
সহ-সম্পাদক
প্রকাশিত: ১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১০:২৯ আপডেট: ১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১০:২৯


পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক বর্তমানে জাতীয় দলের প্রধান নির্বাচক ইনজামাম উল হক (ইনসেটে ছেলে ইবতাসাম উল হক)। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) ইনজামাম উল হক, পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক ও জাতীয় দলের বর্তমান প্রধান নির্বাচক।  গত বছরের অক্টোবরে ভাতিজা ইমাম উল হক জাতীয় দলে ডাক পেতেই চাচা ইনজামামের বিরুদ্ধে স্বজনপ্রীতির অভিযোগ ওঠে। পারফরম্যান্স নয়, প্রভাবশালীর আত্মীয় হওয়াতেই সুযোগ মিলেছে ইমামের, এমন অভিযোগে সে সময় তুমুল সমালোচনার মুখে পড়েছিলেন ইনজামাম।

অবশ্য পারফরম্যান্স দিয়ে ভাতিজা ইমাম মুখরক্ষা করেছিলেন চাচা ইনজামামের। ইতিহাসের তৃতীয় কনিষ্ঠ ক্রিকেটার হিসেবে অভিষেক ম্যাচে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সেঞ্চুরি হাঁকিয়ে ইমাম দেখিয়ে দিলেছিলেন চাচা ইনজামাম এতটুকু ভুল করেননি। সেই ভাতিজার পর এবার আবারও স্বজনপ্রীতি বিতর্কে ইনজামাম। তবে এবার ভাতিজা নয়, বরং নিজের ছেলের পক্ষে সুপারিশের অভিযোগ উঠেছে ইনজামামের বিরুদ্ধে।

ইনজামামের বিরুদ্ধে অভিযোগের আঙুলটা তুলেছেন পাকিস্তানেরি কিংবদন্তি স্পিনার আবদুল কাদির। তার দাবি, অনূর্ধ্ব-১৯ দলের প্রধান নির্বাচক বাসিত আলীকে স্বয়ং ফোন করেছিলেন ইনজামাম। আর সেই ফোন কলেই নাকি দলে জায়গা মিলেছে তার ছেলে ইবতাসাম উল হকের। এ খবর প্রকাশ পেতেই আবারও সমালচনার মুখে ইনজামাম। অবশ্য কাদিরের ওই অভিযোগ অস্বীকার করেছেন ইনজামাম-বাসিত দুজনেই।

ইনজামাম উল হকের টুইট।

ইনজামামের মতে, এমন অভিযোগ সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন ও বিদ্বেষপূর্ণ। এমন অভিযোগের প্রমাণ মিললে পদত্যাগের ঘোষণাও দিয়েছেন জাতীয় দলের প্রধান এই নির্বাচক। টুইটারে এক ভিডিও বার্তায় এ নিয়ে ইনজামামের ভাষ্য, ‘আমি এই মিথ্যা এবং বিদ্বেষপরায়ণ দাবি দৃঢ়ভাবে প্রত্যাখ্যান করছি। রেকর্ড অনুযায়ী এই বিষয় নিয়ে জুনিয়র নির্বাচন কমিটির কাছে কেউই যায়নি এবং এর মধ্যে কোনো সত্যতা নেই। এ বিষয়ে একটি খোলা তদন্তের জন্য পিসিবি সভাপতিকে অনুরোধ করছি।’

ইতোমধ্যে এ নিয়ে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের (পিসিবি) নতুন সভাপতি এহসান মানির সঙ্গে সাক্ষাত করেছেন ইনজামাম। পাকিস্তানি সংবাদমাধ্যমের বরাত দিয়ে জানা গেছে, পিসিবি চেয়ারম্যানের সঙ্গে সাক্ষাতের পর সৃষ্ট ঘোলাটে পরিস্থিতির অবসান হয়েছে। পিসিবি তার ওপর পূর্ণ আস্থা রাখার কথাই বলেছে। পিসিবি মুখপাত্রের ভাষ্য, দুই নির্বাচকের বিরুদ্ধে জল্পনা ছড়ানোয় হতাশ মানি। তবে দুই নির্বাচকের ওপর পূর্ণ আস্থা রয়েছে তাদের।

সূত্র: প্রো পাকিস্তানি/ডেইলি পাকিস্তান

প্রিয় খেলা/রুহুল

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন
‘ডাবল সেঞ্চুরি একা করা যায় না’
মুশাহিদ ১২ নভেম্বর ২০১৮
‘মিরাজ খুব মজার একটা চরিত্র’
শান্ত মাহমুদ ১২ নভেম্বর ২০১৮
যে তালিকায় সবার উপরে মুশফিক
মুশাহিদ ১২ নভেম্বর ২০১৮
নির্ভীক মুশফিকে বাংলাদেশের শাসন
শান্ত মাহমুদ ১২ নভেম্বর ২০১৮
অনবদ্য ডাবলে রেকর্ড চূড়ায় মুশফিক
সৌরভ মাহমুদ ১২ নভেম্বর ২০১৮
স্পন্সরড কনটেন্ট