বিশ্ব ওজোন দিবস। ছবি: সংগৃহীত

‘মেনে চলি মন্ট্রিল প্রটোকল’

এবারের প্রতিপাদ্য ‘শীতল থাকার পরিবেশবান্ধব কৌশল, মেনে চলি মন্ট্রিল প্রটোকল’।

আয়েশা সিদ্দিকা শিরিন
সহ-সম্পাদক
প্রকাশিত: ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০৯:১৯ আপডেট: ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০৯:১৯


বিশ্ব ওজোন দিবস। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) বিশ্ব ওজোন দিবস আজ। জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ১৯৯৪ সনের ১৯ ডিসেম্বর গৃহীত সিদ্ধান্ত অনুযায়ী বিশ্বব্যাপী দিবসটি পালন করা হয়।

১৬ সেপ্টেম্বর, রবিবার জাতিসংঘের সদস্য দেশ হিসেবে বাংলাদেশেও বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্য দিয়ে দিবসটি পালিত হচ্ছে।

দিবসটির এবারের প্রতিপাদ্য ‘শীতল থাকার পরিবেশবান্ধব কৌশল, মেনে চলি মন্ট্রিল প্রটোকল’। ওজোন দিবস উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পৃথক বাণী দিয়েছেন।

রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ তার দেওয়া বাণীতে বলেন, ‘আগামী প্রজন্মের জন্য বাসযোগ্য একটি পৃথিবী গড়তে হবে। আন্তর্জাতিক ওজোন দিবস পালনের মাধ্যমে জনগণের মধ্যে ওজোনস্তর ক্ষয় এবং এর পার্শ্ব-প্রতিক্রিয়ায় সৃষ্ট জলবায়ু পরিবর্তনের ক্ষতিকর প্রভাব সম্পর্কে সচেতনতা বৃদ্ধি পাবে।’

‘পৃথিবীর বায়ুমন্ডলে ওজোনস্তর সূর্যের ক্ষতিকর অতি বেগুনি রশ্মি থেকে জীব বৈচিত্র্যকে সুরক্ষা দিয়ে থাকে। আর ওজোনস্তর ধ্বংসের ক্ষেত্রে বিভিন্ন শিল্পে বিশেষ করে শীতলীকরণ শিল্পে ব্যবহৃত ক্লোরো ফ্লোরো কার্বন বা সিএফসি গ্যাস বড় ভূমিকা রাখে।’

রাষ্ট্রপতি আরও বলেন, ‘বাংলাদেশসহ বিশ্বের সকল দেশ মন্ট্রিল প্রটোকলের আওতায় বৈশ্বিক উষ্ণায়নের ক্ষেত্রে উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন হাইড্রোফ্লোরোকার্বন ব্যবহার রোধে সোচ্চার হয়েছে। বিশ্বের সকল দেশের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় মন্ট্রিল প্রটোকল বাস্তবায়নের মাধ্যমে শুধু যে ওজোনস্তরই রক্ষা পাচ্ছে তা নয় বরং জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায়ও তা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে।’

এদিকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার দেওয়া বাণীতে বলেন, ‘জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় জ্বালানি সাশ্রয়ী পরিবেশবান্ধব শীতলীকরণ বিকল্প গ্যাস ও যন্ত্র ব্যবহারে সকলে আরও সচেতন হবে। ওজোনস্তর রক্ষায় ১৯৮৭ সাল থেকে বিশ্ববাসী একযোগে কাজ করে যাচ্ছে। ফলে ওজোনস্তর ক্রমান্বয়ে পূর্বের অবস্থায় ফিরে যাচ্ছে।’

‘বাংলাদেশও এ কার্যক্রমের গর্বিত অংশীদার। মন্ট্রিল প্রটোকল সফলভাবে বাস্তবায়নের জন্য ‘‘জাতিসংঘ পরিবেশ কর্মসূচি’’ ২০১৭ সালে বাংলাদেশ সরকারকে প্রশংসাসূচক সনদপত্র প্রদান করেছে। ওজোনস্তর রক্ষায় গৃহীত মন্ট্রিল প্রটোকল এক যুগান্তকারী পদক্ষেপ। মন্ট্রিল প্রটোকল ওজোনস্তর রক্ষার পাশাপাশি জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায়ও উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখছে।’

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, ‘মন্ট্রিল প্রটোকল বাস্তবায়নের প্রথম দিকে সিএফসি ও এইচসিএফসির পরিবেশবান্ধব বিকল্প না থাকায় হাইড্রোফ্লোরোকার্বন ব্যবহার অনুমোদন করা হয়, যা উচ্চ মাত্রায় উষ্ণায়ন ক্ষমতাসম্পন্ন রাসায়নিক। সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় পরিবেশবান্ধব বিকল্প ব্যবহারের মাধ্যমে পরিবেশ রক্ষায় মন্ট্রিল প্রটোকল উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখবে এবং আন্তর্জাতিক ওজোন দিবস পালনের মাধ্যমে এ ব্যাপারে জনসচেতনতা সৃষ্টি হবে।’

উল্লেখ্য, ১৯৮৭ সালের ১৬ সেপ্টেম্বর বায়ুমণ্ডলের ওজোনস্তর ক্ষয়ের জন্য দায়ী দ্রব্যগুলোর ব্যবহার নিষিদ্ধ বা সীমিত করার জন্য ভিয়েনা কনভেনশনের আওতায় ওজোনস্তর ধ্বংসকারী পদার্থের ওপর মন্ট্রিল প্রটোকল গৃহীত হয়। বাংলাদেশ ১৯৯০ সালে এই মণ্ট্রিল প্রটোকল স্বাক্ষর করে।

প্রটোকল অনুযায়ী সদস্যদেশগুলো একে একে ওজোন ধ্বংসকারী রাসায়নিক ক্লোরোফ্লোরোকার্বন, হ্যালন, কার্বন টেট্রাক্লোরাইড, মিথাইল ক্লোরোফর্ম, মিথাইল ব্রোমাইড, হাইড্রোব্রোমোফ্লোরোকার্বন, হাইড্রোফ্লোরোকার্বন ইত্যাদির উৎপাদন ও ব্যবহার সীমিত ও নিষিদ্ধ করতে সম্মত হয়। ২০৪০ সাল নাগাদ প্রটোকলে অন্তর্ভুক্ত সব গ্যাসের ব্যবহার বন্ধ হওয়ার কথা।

সূত্র: বাসস

প্রিয় সংবাদ/রুহুল

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন
২৯ সেপ্টেম্বরের পর জাতীয় ঐক্যের কমিটি
মোক্তাদির হোসেন প্রান্তিক ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮
নারায়ণগঞ্জে ‘মাদক ব্যবসায়ী’ সাজুসহ গ্রেফতার ৪
ইমামুল হাসান স্বপন ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮
খুলনার নবনির্বাচিত মেয়রের দায়িত্ব গ্রহণ
শেখ নোমান ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮
প্রাথমিকের প্রধান শিক্ষকদের ১০ দফা দাবি
প্রিয় ডেস্ক ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮
৬ মাসে ৭৭ হাজার কোটি টাকা এসএমই ঋণ বিতরণ
প্রিয় ডেস্ক ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮
জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়া: কী ভাবছে জামায়াত
মোক্তাদির হোসেন প্রান্তিক ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮
স্পন্সরড কনটেন্ট
ট্রাম্পের অভ্যর্থনায় শেখ হাসিনা
ট্রাম্পের অভ্যর্থনায় শেখ হাসিনা
যুগান্তর - ১২ ঘণ্টা আগে
'শেখ হাসিনা একজন আদর্শ রাষ্ট্রনায়ক'
'শেখ হাসিনা একজন আদর্শ রাষ্ট্রনায়ক'
https://www.banglanews24.com/ - ১ দিন, ৩ ঘণ্টা আগে
ট্রেন্ডিং