এক হাতে চোট, অন্য হাতে ব্যাট। অসাধারণ সাহস দেখিয়েছেন তামিম ইকবাল। ছবি: সংগৃহীত

সিদ্ধান্ত তামিমের, গ্লাভস কেটে হাতে পরিয়ে দেন মাশরাফি

তামিম নিজ থেকেই বলেন, ‘আমি গিয়ে এক বল খেলব, আমি যাব।’

সৌরভ মাহমুদ
সহ-সম্পাদক
প্রকাশিত: ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১২:০২ আপডেট: ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১২:০২


এক হাতে চোট, অন্য হাতে ব্যাট। অসাধারণ সাহস দেখিয়েছেন তামিম ইকবাল। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) দ্বিতীয় ওভারেই হাতে চোট পান তামিম ইকবাল। মাঠ থেকে সরাসরি যেতে হয় হাসপাতালে। স্ক্যান রিপোর্টে জানা যায়, বাঁহাতি এই ওপেনারের বাম হাতের কব্জিতে চিড় ধরেছে। এমন অবস্থায় টিম ম্যানেজমেন্টের পক্ষ থেকে জানানো হয় মাঠে নামছেন না তামিম। ৪৭ তম ওভারে মুস্তাফিজুর রহমান রান আউটের শিকার হন। এ সময় সাহসী এক সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেন তামিম।

এক হাতে ব্যান্ডেজ, আরেক হাতে ব্যাট নিয়ে নেমে যান মাঠে। তৈরি হয় নতুন এক বীরত্ব গাঁথা। তামিম মাঠে নামতেই যেন আগ্রাসীরূপে আবির্ভূত হন মুশফিক। তিন চার ও সমান সংখ্যক ছক্কায় করেন ৩২ রান। ফলাফল, বাংলাদেশের স্কোরকার্ডে দাঁড়িয়ে যায় ২৬১ রানের চ্যালেঞ্জিং সংগ্রহ। শেষ পর্যন্ত বাংলাদেশ ম্যাচ জিতে নেয় ১৩৭ রানে। তবে সব ছাপিয়ে তামিমের ওই কীর্তি। যার জেরে বিশ্বের কোটি ভক্তের হৃদয়ে জায়গা করে নিয়েছেন দেশসেরা এই ওপেনার।

ম্যাচ শেষে মাশরাফি বিন মুর্তজা জানালেন, সিদ্ধান্তটা তামিমেরই ছিল। তামিমের মাঠে নামার সিদ্ধান্ত নিয়ে বাংলাদেশ অধিনায়কের ভাষ্য, ‘এটা ওই (তামিম) বলুক। ওই ভালো বলতে পারবে। কারণ সিদ্ধান্তটা দিন শেষে ওই নিয়েছে। তামিমকে মনে রাখা উচিত এ ম্যাচের জন্য। তবে শুধু এ ম্যাচের জন্য না। মনে রাখতে হবে এখানে যেকোনো কিছু ঘটতে পারত। অবশ্যই ওর ক্যারিয়ারের ব্যাপার ছিল।’

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, বিশেষ পরিস্থিতিতে তামিমকে ব্যাট করতে পাঠানোর সিদ্ধান্তটা আসলে নিয়েছিলেন অধিনায়ক মাশরাফি নিজেই। অষ্টম উইকেট পতনের পর সিদ্ধান্ত হয় আরেক উইকেট পড়লে, যদি মুশফিক স্ট্রাইকে থাকেন তবেই ব্যাট হাতে মাঠে নামবেন তামিম। অন্যথায় মাঠে নামবেন না তিনি। ৪৭তম ওভারে মুস্তাফিজ যখন বিদায় নেন, তখন নন স্ট্রাইকে ছিলেন মুশফিক। সিদ্ধান্ত অনুযায়ী নামার কথা ছিল না তামিমের।

কিন্তু তখনই সাহসী সিদ্ধান্তটা নেন তামিম। নিজ থেকেই বলেন, ‘আমি গিয়ে এক বল খেলব, আমি যাব।’

দুই আঙুলে ব্যান্ডেজ থাকায় অবশ্য গ্লাভস পরা সম্ভব হচ্ছিল না তামিমের। তখন অধিনায়ক মাশরাফি নিজে গ্লাভস কেটে তামিমের হাতে পরিয়ে দেন। এরপরের ঘটনা তো সবারই জানা। ব্যাট করতে নেমে এক হাতে লাকমালের শেষ বলটা কোনোমতে ঠেকিয়ে দেন তামিম। যা তামিমের বিরল সাহসের নজির হিসেবে স্মরণীয় হয়েই থাকবে। এক হাতে তামিমের ব্যাট করার ছবি ইতোমধ্যে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমগুলোতে ছড়িয়ে পড়েছে।

বাংলাদেশ অধিনায়ক মাশরাফির মতে, তামিমের সাহসী ওই সিদ্ধান্তের কারণে মুশফিক আরও আগ্রাসী হয়ে ওঠে। এ জন্য তামিমকে টুপি খোলা অভিনন্দনও জানিয়েছেন তিনি। এ নিয়ে মাশরাফির ভাষ্য, ‘আমার মনে হয় এতে মুশফিকও তেতে গিয়েছিল। এই অবস্থায় তামিম যখন নেমেছে তা মুশফিককেই সাহায্য করেছে ওই ৩০/৩২টা রান করার। আসলে ছোট করে বলতে পারছি না। তামিমকে টুপি খোলা অভিনন্দন।’

প্রিয় খেলা/রুহুল

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন
চোখের জলে বিদায়
প্রিয় ডেস্ক ১৬ নভেম্বর ২০১৮
বিয়ের পিঁড়িতে বসছেন রোনালদো-জর্জিনা!
সৌরভ মাহমুদ ১৬ নভেম্বর ২০১৮
লন্ডনে সেমিফাইনালে ফেদেরার
প্রিয় ডেস্ক ১৬ নভেম্বর ২০১৮
৩-২ গোলের ‘রোমাঞ্চ’ জয় ক্রোয়েশিয়ার
প্রিয় ডেস্ক ১৬ নভেম্বর ২০১৮
টেলিভিশনে আজকের খেলা
প্রিয় ডেস্ক ১৬ নভেম্বর ২০১৮
‘আমাদের চোখের পানি কেউ দেখে না’
শান্ত মাহমুদ ১৫ নভেম্বর ২০১৮
স্পন্সরড কনটেন্ট
ট্রেন্ডিং