ব্যান্ডেজ বাধা গ্লাভস পরে অসীম সাহসিকতার সঙ্গে এক হাতে ব্যাট করেন তামিম ইকবাল। ছবি: সংগৃহীত

‘মাশরাফি ভাই আত্মবিশ্বাস জুগিয়েছিলেন’

এক হাতে তামিমের ব্যাট করার ওই দৃশ্য ক্রিকেটপ্রেমীদের হৃদয়ে গেঁথে থাকবে আজীবন।

সৌরভ মাহমুদ
সহ-সম্পাদক
প্রকাশিত: ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১৫:৩০
আপডেট: ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১৫:৩০


ব্যান্ডেজ বাধা গ্লাভস পরে অসীম সাহসিকতার সঙ্গে এক হাতে ব্যাট করেন তামিম ইকবাল। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারে চোট পেয়ে মাঠ ছাড়েন তামিম ইকবাল। ব্যাথায় কাতরাতে থাকা এই ওপেনারকে শেষ পর্যন্ত নিয়ে যেতে হয় হাসপাতালে। সেখানে জানা যায়, আঙুলে চিড় ধরেছে। ছিটকে যেতে হতে পারে এশিয়া কাপ থেকেই। হাসপাতাল থেকে ফিরে তামিম দেখলেন মুশফিক-মিথুনের ১৩১ রানের জুটি ভেঙে গেছে। এরপর একে একে সাজঘরে ফিরতে থাকেন মাহমুদউল্লাহ-মোসাদ্দেক-মিরাজরা।

তখন সিদ্ধান্ত হয়, নবম উইকেটের পতন ঘটলে মুশফিক স্ট্রাইকে থাকলে ব্যাট হাতে মাঠে নামবেন তামিম। অন্যথায় মাঠে নামবেন না তিনি। ৪৭তম ওভারে মুস্তাফিজ যখন বিদায় নেন, তখন নন স্ট্রাইকে ছিলেন মুশফিক। সিদ্ধান্ত অনুযায়ী নামার কথা ছিল না তামিমের। মুস্তাফিজ আউট হওয়ার পর সাজঘরের উদ্দেশ্যে পা বাড়ান মুশফিকুরও। কিন্তু হঠাৎ করে দেখলেন, মাঠে নামছেন তামিম। 

এক হাতে ব্যান্ডেজ বাধা গ্লাভস, আরেক হাতে ব্যাট। মুশফিকের মতোই চমকে গেল ক্রিকেট-বিশ্বও। রচিত হয়ে গেল এক বীরত্বগাঁথা। অদম্য সাহসিকতার পরিচয় দিয়ে মাঠে নামা তামিম যেন এক মুহূর্তেই বিশ্বের কোটি ক্রিকেটভক্তের মন জয় করে নিলেন। অবশ্য শুধু মাঠে নামাই নয়, ওই অবস্থায় খেললেন একটি বলও। মুশফিকও যেন তামিমকে পেয়ে পেলেন অনুপ্রেরণা। তুললেন মরুর বুকে ঝড়। সব মিলিয়ে বাংলাদেশের স্কোরকার্ডে ২৬১ রানের চ্যালেঞ্জিং সংগ্রহ।

শেষ পর্যন্ত মাশরাফি-সাকিব-মুস্তাফিজ-রুবেল-মিরাজদের দাপুটে বোলিংয়ে ১২৪ রানেই থামে শ্রীলঙ্কার ইনিংস। বাংলাদেশ পায় ১৩৭ রানের বড় জয়। কিন্তু জয় ছাপিয়ে আলোচনায় সেই দুঃসাহসিক তামিম। পুরো ক্রিকেট-বিশ্ব প্রশংসা ও শ্রদ্ধায় অবনত।

ম্যাচ শেষে বাংলাদেশ অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা জানান, সিদ্ধান্তটা তামিমেরই ছিল। আর তামিম জানালেন, সিদ্ধান্তটা তিনি নিলেও আত্মবিশ্বাসটুকু জুগিয়েছেন মাশরাফিই!

ম্যাচ শেষে একটি ইংরেজি দৈনিককে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তামিম বলেন, ‘মাশরাফি ভাই আমার আত্মবিশ্বাস জুগিয়েছিলেন। বারবার আমার সঙ্গে কথা বলছিলেন। গ্লাভস কেটে তিনিই প্লাস্টার করা হাতে পরিয়ে দেন। তবে যখন দেখলাম মুস্তাফিজ আউট হওয়ার পর মুশফিক ননস্ট্রাইকে রয়েছে, তখন সিদ্ধান্তটা আমার উপরে চলে আসে। আমি এক বল খেলতে চলে যাই, যাতে মুশফিক আরও ব্যাট করতে পারে।’

ব্যান্ডেজ করা হাতে এভাবেই গ্লাভস কেটে পরিয়ে দিয়েছিলেন মাশরাফি। ছবি: সংগৃহীত

প্লাস্টার করা হাতটাকে কোনোমতে গ্লাভসে আটকে রেখে তামিমের মাঠে নামা কিংবা একজন পেসারের ছোড়া বল এক হাতে ধরা ব্যাটে মোকাবিলা করার মানসিকতা মুগ্ধ করেছে ক্রিকেট-বিশ্বকেই। 

এক হাতে তামিমের ব্যাট করার ওই দৃশ্য ক্রিকেটপ্রেমীদের হৃদয়ে গেঁথে থাকবে আজীবন। তামিমের এমন সাহসিকতায় বিস্মিত প্রতিপক্ষ দলের খেলোয়াড়রাও। ম্যাচ শেষ হতে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমও ভরে গিয়েছিল তামিমের প্রশংসাবাণীতে।

প্রিয় খেলা/আজহার

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন
বাংলাদেশ ক্রিকেটের সঙ্গে ইউনিসেফ
সৌরভ মাহমুদ ১২ ডিসেম্বর ২০১৮
খরুচে রুবেলের পাশে মাশরাফি
সৌরভ মাহমুদ ১২ ডিসেম্বর ২০১৮
‘অপুর ফ্লাডলাইটে বল দেখতে সমস্যা হচ্ছিল’
সৌরভ মাহমুদ ১২ ডিসেম্বর ২০১৮
স্পন্সরড কনটেন্ট
খরুচে রুবেলের পাশে মাশরাফি
সৌরভ মাহমুদ ১২ ডিসেম্বর ২০১৮
‘অপুর ফ্লাডলাইটে বল দেখতে সমস্যা হচ্ছিল’
সৌরভ মাহমুদ ১২ ডিসেম্বর ২০১৮
যে কারণে শেষ ওভারে মাহমুদউল্লাহ
সৌরভ মাহমুদ ১২ ডিসেম্বর ২০১৮
মধুর হলো না অনেক উপলক্ষের ম্যাচ
শান্ত মাহমুদ ১১ ডিসেম্বর ২০১৮
সবাইকে ছাড়িয়ে তামিম-মুশফিক জুটি
মুশাহিদ ১১ ডিসেম্বর ২০১৮
বাংলাদেশ ক্রিকেটের সঙ্গে ইউনিসেফ
সৌরভ মাহমুদ ১২ ডিসেম্বর ২০১৮
খরুচে রুবেলের পাশে মাশরাফি
সৌরভ মাহমুদ ১২ ডিসেম্বর ২০১৮
‘অপুর ফ্লাডলাইটে বল দেখতে সমস্যা হচ্ছিল’
সৌরভ মাহমুদ ১২ ডিসেম্বর ২০১৮
যে কারণে শেষ ওভারে মাহমুদউল্লাহ
সৌরভ মাহমুদ ১২ ডিসেম্বর ২০১৮
মধুর হলো না অনেক উপলক্ষের ম্যাচ
শান্ত মাহমুদ ১১ ডিসেম্বর ২০১৮
ক্যাটস আইয়ের শুভেচ্ছাদূত হলেন তামিম ইকবাল
ক্যাটস আইয়ের শুভেচ্ছাদূত হলেন তামিম ইকবাল
বাংলা ট্রিবিউন - ২ সপ্তাহ, ২ দিন আগে
লন্ডনে গেলেন তামিম ইকবাল | খেলাধুলা
লন্ডনে গেলেন তামিম ইকবাল | খেলাধুলা
ইত্তেফাক - ২ মাস, ২ সপ্তাহ আগে