তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। ফাইল ছবি

বিনিয়োগকারীদের প্রয়োজনে নিজের দফতর ‘ব্যবহার করতে দেবেন’ পলক

প্রতিমন্ত্রী জানান, জনতা টাওয়ার সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্কে আর কোনো জায়গা খালি নেই। প্রয়োজনে তার (প্রতিমন্ত্রী) দফতরটিকে জেডইটিআরও ও জাপানি প্রতিষ্ঠানগুলো ব্যবহার করতে পারে।

রাকিবুল হাসান
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১৫:৪৫ আপডেট: ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১৫:৪৫


তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। ফাইল ছবি

(প্রিয়.কম) দেশের হাই-টেক ইন্ডাস্ট্রিতে বিনিয়োগ করতে আগ্রহ দেখিয়েছে জাপানি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান। এমন আগ্রহের পরিপ্রেক্ষিতে প্রয়োজনে নিজের দফতরকে ব্যবহারের আহ্বান জানিয়েছেন তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি (আইসিটি) প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক

১৫ সেপ্টেম্বর, শনিবার বাংলাদেশ হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষের সভাকক্ষে এক অনানুষ্ঠানিক সভায় জাপান এক্সটার্নাল ট্রেড অর্গানাইজেশন (জেডইটিআরও) প্রতিনিধিরা বিনিয়োগের আগ্রহ প্রকাশ করেন।

সভায় জেডইটিআরওর প্রতিনিধিরা বাংলাদেশ থেকে তথ্য-প্রযুক্তি (আইটি) খাতে দক্ষ কর্মী নিতে প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষণ দেওয়ার বিষয়ে আগ্রহ প্রকাশ করেন। এ জন্য প্রয়োজনীয় জায়গা চাইলে প্রতিমন্ত্রী জানান, জনতা টাওয়ার সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্কে আর কোনো জায়গা খালি নেই। প্রয়োজনে তার (প্রতিমন্ত্রী) দফতরটিকে জেডইটিআরও ও জাপানি প্রতিষ্ঠানগুলো ব্যবহার করতে পারে।

প্রতিমন্ত্রীর এই আন্তরিকতা ও সহযোগিতার বিষয়গুলো জাপান সরকারের কাছে উপস্থাপন করবেন মর্মে নিশ্চিত করেন জাপানের প্রতিনিধিরা।

আলোচনা সভায় বাংলাদেশ হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (সচিব) হোসনে আরা বেগম বাংলাদেশে সরাসরি বিনিয়োগের ক্ষেত্রগুলো নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেন।

বাংলাদেশ হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষের সভাকক্ষে এক অনানুষ্ঠানিক সভায় জাপান এক্সটার্নাল ট্রেড অর্গানাইজেশনের (জেডইটিআরও) প্রতিনিধিরা। ছবি: সংগৃহীত

হোসনে আরা বাংলাদেশের হাই-টেক ইন্ডাস্ট্রিতে বিনিয়োগের সম্ভাবনার বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন। বাংলাদেশে সরাসরি বৈদেশিক বিনিয়োগ যে ক্রমবর্ধমান হারে বেড়ে চলেছে, তার পরিসংখ্যান দেখিয়ে তিনি বলেন, বাংলাদেশে এখন বিনিয়োগবান্ধব পরিবেশ বিরাজ করছে। জাপানি কোম্পানিগুলো এই সুযোগ কাজে লাগাতে পারে।

অলোচনা সভায় সিলেট ইলেকট্রনিক সিটি প্রকল্পের পরিচালক ব্যরিস্টার মো. গোলাম সরওয়ার ভূঁইয়া বলেন, সিলেটে বাস্তবায়নাধীন প্রকল্পেও বিনিয়োগের সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে। জাপানি প্রতিষ্ঠানগুলো এখানে বিনিয়োগ করলে সব ধরনের সহযোগিতা করতে তিনি প্রস্তুত।

বাংলাদেশ হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষের পরিচালক ড. খন্দকার আজিজুল ইসলাম বলেন, দুই দেশের আলোচনা ও সহযোগিতার ধারা অব্যাহত রাখতে ফোকাল পয়েন্ট থাকা জরুরি, যারা উভয় পক্ষের মধ্যে যোগাযোগ রক্ষা করবে।

প্রিয় প্রযুক্তি/আজহার

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন
ইন্স্যুরেন্স সেবা চালু করল পাঠাও
রাকিবুল হাসান ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮
রবির হাত ধরে দেশের বাজারে মোটোরোলা
প্রিয় ডেস্ক ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮
স্পন্সরড কনটেন্ট
ট্রেন্ডিং