চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী অধ্যাপক মাইদুল ইসলাম। ছবি: সংগৃহীত

মাইদুলকে মুক্তি দিতে ৫০ শিক্ষকের বিবৃতি

এদিকে মঙ্গলবার বিশ্ববিদ্যালয়টির কর্তৃপক্ষ মাইদুলকে সাময়িক বহিষ্কার করেছে।

হাসান আদিল
সহ-সম্পাদক
প্রকাশিত: ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২০:১৩ আপডেট: ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২০:১৩
প্রকাশিত: ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২০:১৩ আপডেট: ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২০:১৩


চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী অধ্যাপক মাইদুল ইসলাম। ছবি: সংগৃহীত

(ইউএনবি) চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) শিক্ষক মাইদুল ইসলামের দ্রুত মুক্তির দাবি জানিয়েছেন দেশের বিভিন্ন সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ৫০ শিক্ষক।

২৬ সেপ্টেম্বর, বুধবার ওই শিক্ষকরা যৌথ বিবৃতিতে বলেন, ‘আমরা জানতে পেরেছি চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মাইদুল ইসলামকে সোমবার কারাগারে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় আমরা বিস্মিত ও মনোক্ষুণ্ন।’

ফেসবুকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ‘কটূক্তির’ অভিযোগে করা মামলায় আদালত সম্প্রতি ওই শিক্ষককে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ফাহমিদুল হক স্বাক্ষরিত বিবৃতিতে বলা হয়, ‘পত্রিকায় প্রকাশিত খবর অনুযায়ী, কোটা আন্দোলনের সময় ফেসবুকে পোস্ট দেওয়ার ঘটনায় মাইদুল ইসলাম এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের আরেক শিক্ষকের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছে ছাত্রলীগ। গত ১৭ জুলাই তাদেরকে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করা হয়। ছাত্রলীগের হুমকির কারণে মাইদুল ইসলাম ক্যাম্পাস ছাড়তে বাধ্য হন। নিরাপত্তা চেয়ে প্রক্টর বরাবর একটি আবেদনও জানান তিনি। পরে ৫৭ ধারায় মাইদুলের বিরুদ্ধে হাটহাজারী থানায় মামলা করেন ছাত্রলীগের সাবেক এক নেতা।’

বিবৃতিতে আরও বলা হয়, ‘গত ৬ আগস্ট আদালত থেকে আট সপ্তাহের অন্তর্বর্তীকালীন জামিন পান মাইদুল। জামিনের মেয়াদ শেষ হলে আদালতে আত্মসমর্পণ করলে সোমবার তাকে কারাগারে পাঠানো হয়।’

যত দ্রুত সম্ভব মাইদুল ইসলামকে সম্মানের সঙ্গে মুক্তির দাবি জানিয়েছেন শিক্ষকরা। পাশাপাশি তাকে হুমকি দেওয়া ব্যক্তিদের খুঁজে বের করে বিচারের আওতায় আনার দাবিও জানান তারা।

এদিকে মঙ্গলবার বিশ্ববিদ্যালয়টির কর্তৃপক্ষ মাইদুলকে সাময়িক বহিষ্কার করেছে।

শিক্ষক মাইদুল ইসলামের বিরুদ্ধে চলতি বছরের ২৪ জুলাই হাটহাজারী থানায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগের ১০-১১ সেশনের শিক্ষার্থী মো. ইফতেখার উদ্দিন আয়াজ বাদী হয়ে আইসিটি আইনে মামলা করেন।

কোটা আন্দোলনের পক্ষে এবং প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে কটূক্তি করে ফেসবুকে পোস্ট দেওয়ার অভিযোগে ছাত্রলীগের হুমকির মুখে এই বছরের ১৫ জুলাই পরিবার নিয়ে ক্যাম্পাস ছাড়েন মাইদুল ইসলাম।

প্রিয় সংবাদ/আজাদ চৌধুরী

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

loading ...