ধ্বংসস্তূপের মধ্যে এখনো শত শত লোক আটকা পড়ে আছে বলে ধারণা করছেন উদ্ধারকর্মীরা। ছবি: সংগৃহীত

ইন্দোনেশিয়ায় ভূমিকম্পে পরিবার হারাল বহু শিশু

এ ভূমিকম্প ও সুনামির ঘটনায় এখনো শতাধিক লোক নিখোঁজ।

আবু আজাদ
সহ-সম্পাদক
প্রকাশিত: ০৪ অক্টোবর ২০১৮, ১৮:৪৫ আপডেট: ০৪ অক্টোবর ২০১৮, ১৮:৪৫
প্রকাশিত: ০৪ অক্টোবর ২০১৮, ১৮:৪৫ আপডেট: ০৪ অক্টোবর ২০১৮, ১৮:৪৫


ধ্বংসস্তূপের মধ্যে এখনো শত শত লোক আটকা পড়ে আছে বলে ধারণা করছেন উদ্ধারকর্মীরা। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) ইন্দোনেশিয়ায় শক্তিশালী ভূমিকম্প ও সুনামির পর বহু শিশু-কিশোর তাদের পরিবার থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে ভীত-সন্ত্রস্ত অবস্থায় দিনাতিপাত করছে।

৪ অক্টোবর, বৃহস্পতিবার ত্রাণকর্মীরা এ কথা জানিয়েছেন।

ত্রাণকর্মীরা আরও জানান, প্রাকৃতিক দুর্যোগ কবলিত এলাকার বাসিন্দাদের জন্য প্রচুর সাহায্য প্রয়োজন।

শুক্রবারের ভয়াবহ ভূমিকম্প ও জলোচ্ছ্বাসের আঘাতে সুলাওয়েসি দ্বীপে এ পর্যন্ত এক হাজার ৪১১ জনের মৃত্যুর ও আড়াই হাজারের বেশি আহত হওয়ার খবর নিশ্চিত করা হয়েছে।

এ প্রাকৃতিক দুর্যোগে সমুদ্র উপকূলবর্তী পালু নগরীতে বহু ভবন ধসে পরিবহন ব্যবস্থা মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। দুর্যোগ কবলিত এলাকায় দ্রুত ত্রাণ পৌঁছানো যাচ্ছে না। এ ছাড়া সেখানে অহরহ লুটপাটের ঘটনা ঘটছে।

সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ জানায়, এ ভূমিকম্প ও সুনামির ঘটনায় এখনো শতাধিক লোক নিখোঁজ। এ ছাড়া ধ্বংসস্তূপের মধ্য থেকে জীবিত কাউকে উদ্ধার করার সম্ভাবনা একেবারে ক্ষীণ হয়ে আসছে। 

জীবিতদের মৌলিক চাহিদা পূরণে কর্মরত কর্মকর্তা ও বিদেশি ত্রাণ গ্রুপের সদস্যরা দুর্যোগ কবলিত এলাকায় পৌঁছেছে। সেখানে তারা পরিবার থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়া ব্যাপকসংখ্যক শিশুর দিকে বেশি গুরুত্ব দিচ্ছে।

সেভ দ্য চিলড্রেন জানায়, পালুতে অনেক শিশু-কিশোর রাস্তার ওপর ধ্বংসস্তূপের মধ্যে ঘুমাচ্ছে। এসব শিশুর পরিচয় জেনে তাদের পরিবারের সঙ্গে একত্রিত করা জরুরি হয়ে পড়েছে।

সংস্থাটির শিশু রক্ষাবিষয়ক উপদেষ্টা জুবেদি কোতেং বলেন, ‘শিশু-কিশোরদের জন্য আরও ভীতিকর পরিস্থিতির কথা চিন্তা করা যায় না।’

‘উদ্ভূত পরিস্থিতিতে বহু শিশু ভীত-সন্ত্রস্ত হয়ে পড়েছে। এসব শিশু তাদের ভয়ঙ্কর অভিজ্ঞতার মধ্য দিয়ে তাদের নিকটাত্মীয়দের খোঁজ করছে।’

প্রিয় সংবাদ/আজহার

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

loading ...