উড়িষ্যায় তিতলির আঘাত। ছবি : সংগৃহীত

ভোরে উড়িষ্যায় আঘাত হেনেছে ঘূর্ণিঝড় ‘তিতলি’

তিতলি প্রবল ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নিয়ে ভারতের উড়িষ্যা রাজ্যে আঘাত হেনেছে।

আশরাফ ইসলাম
সহ-সম্পাদক
প্রকাশিত: ১১ অক্টোবর ২০১৮, ০৯:৪০
আপডেট: ১১ অক্টোবর ২০১৮, ১৪:১৭


উড়িষ্যায় তিতলির আঘাত। ছবি : সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট তীব্রতা সম্পন্ন প্রবল ঘূর্ণিঝড় ‘তিতলি’ ভারতের উড়িষ্যা রাজ্যে আঘাত হেনেছে। সঙ্গে প্রবল জলোচ্ছ্বাস ও বৃষ্টিপাতও দেখা যায়।

১১ অক্টোবর, বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৬টার দিকে ঘণ্টায় ১৫০ কিলোমিটার বেগে উড়িষ্যা উপকূলে আছড়ে পড়েছে ঘূর্ণিঝড়টি।

দেশটির আবহাওয়া অধিদফতরের তথ্য অনুযায়ী, উড়িষ্যার গোপালপুরে বাতাসের গতিবেগ ঘণ্টাপ্রতি ১২৬ কিলোমিটার। কলিঙ্গপট্টানামে বাতাসের গতিবেগ ঘণ্টায় প্রায় ৫৬ কিলোমিটার। ঘূর্ণিঝড়ের জেরে ইতোমধ্যেই ব্যাহত হয়েছে বিদ্যুৎ সরবরাহ। তবে এখন পর্যন্ত বড় ধরনের কোনো ক্ষয়ক্ষতির খবর পাওয়া যায়নি।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম জিনিউজের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, উপকূলের পাঁচটি জেলা থেকে প্রায় তিন লাখ মানুষকে নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। উদ্ধারকাজের জন্য ইতোমধ্যেই ৩০০টি মোটর বোটের ব্যবস্থা করেছে উড়িষ্যা প্রশাসন।

আবহাওয়া অধিদফতর আরও জানিয়েছে, গঞ্জাম, গজপতি, পুরি ও খুরদা জেলায় সর্বাধিক বৃষ্টিপাতের আশঙ্কা রয়েছে।

এদিকে ভারি বৃষ্টিতে বন্যার আশঙ্কায় উড়িষ্যার প্রতিটি জেলায় সতর্কতা জারি করেছে প্রশাসন। এর আগে ঘূর্ণিঝড় তিতলি বাংলাদেশ উপকূলে ১১ অক্টোবর মধ্যরাতে আঘাত হানতে পারে বলে বলা হয়েছিল।

এ ছাড়া চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মোংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দরগুলোকে ২ নম্বর দূরবর্তী হুশিয়ারি সংকেত নামিয়ে তার পরিবর্তে ৪ নম্বর স্থানীয় হুশিয়ারি সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

উত্তর বঙ্গোপসাগর ও গভীর সাগরে অবস্থানরত মাছ ধরার সব নৌকা ও ট্রলারকে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত নিরাপদ আশ্রয়ে থাকতে বলা হয়েছে। 

প্রিয় সংবাদ/রুহুল

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন
স্পন্সরড কনটেন্ট