অর্জুনা রানাতুঙ্গা ও ভারতের বিমানকর্মীর পোস্টের স্ক্রিনশট। ছবি: সংগৃহীত

‘রানাতুঙ্গা আমার কোমর ধরে স্পর্শকাতর অংশে হাত দেন’

লঙ্কানদের বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়কের বিরুদ্ধে যৌন হেনস্তার অভিযোগ এনেছেন এক ভারতীয় বিমানকর্মী।

মুশাহিদ
সহ-সম্পাদক
প্রকাশিত: ১১ অক্টোবর ২০১৮, ১৫:২৯ আপডেট: ১১ অক্টোবর ২০১৮, ১৫:২৯


অর্জুনা রানাতুঙ্গা ও ভারতের বিমানকর্মীর পোস্টের স্ক্রিনশট। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) যৌন হয়রানির অভিযোগ নিয়ে বেশ কিছুদিন ধরে উত্তাল বিশ্বের ক্রীড়াঙ্গন। মূলত সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে হ্যাশট্যাগ ‘মি টু’র কারণে তারকাদের বিভিন্ন সময়ের কলঙ্ক উঠে আসছে আলোচনায়। তারই জেরে বিপাকে পড়েছেন শ্রীলঙ্কার বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়ক ও দেশটির বর্তমান মন্ত্রী অর্জুনা রানাতুঙ্গা।

লঙ্কানদের বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়কের বিরুদ্ধে যৌন হেনস্তার অভিযোগ এনেছেন ভারতীয় এক বিমানকর্মী।ফেসবুকে এক পোস্টে ভারতের ওই বিমানকর্মী দাবি করেছেন, ভারত-শ্রীলঙ্কা সিরিজ চলাকালীন তার শ্লীলতাহানির চেষ্টা করেছিলেন লঙ্কানদের সাবেক অধিনায়ক।

সেই পোস্টে রানাতুঙ্গা ছাড়াও একসময়ের জনপ্রিয় সংগীত তারকা অভিজিৎ ভট্টাচার্যের বিরুদ্ধেও যৌন হেনস্তার অভিযোগ তুলেছেন ওই বিমানকর্মী। এরপর টেনে এনেছেন রানাতুঙ্গার প্রসঙ্গ।

ঘটনা বর্ণনা করতে গিয়ে ওই বিমানকর্মী লিখেন, ‘মুম্বাইয়ের জুহু সেন্টার হোটেলের লিফটে আমার সহকর্মী ভারত ও শ্রীলঙ্কার ক্রিকেটারদের দেখে। সে আবার ক্রিকেট ও ক্রিকেটারদের অন্ধভক্ত। তাদের অটোগ্রাফ নেওয়ার জন্য খেলোয়াড়দের রুমে যেতে চায় সে। ওর নিরাপত্তা নিয়ে ভয়ে থাকায় আমিও ওর সঙ্গে যাই।’

সেটাই হয়তো কাল হয়ে দাঁড়িয়েছিল ওই নারীর জন্য। তিনি লিখেন, ‘আমাদের পানীয় (সম্ভবত কিছু মেশানো ছিল) নেওয়ার অনুরোধ করা হয়। আমি অস্বীকৃতি জানিয়ে সঙ্গে থাকা বোতলের পানিতেই আস্থা রাখি। ওরা ছিল সাতজন, আর আমরা দুজন। এমন অবস্থায় তারা দরজা লাগিয়ে দিলো। অস্বস্তি বাড়ায় আমি ওকে (সহকর্মী) রুমে ফিরে আসার জন্য জোর করলাম।’

‘কিন্তু সে তো ততক্ষণে মোহে পড়েছে (বড় তারকাদের দেখে)। এ কারণে পুলের চারপাশে হাঁটতে যেতে চাইল তাদের সঙ্গে। তখন সন্ধ্যা সাতটা বাজে। পুলের পথটা ছিল হোটেলের পেছনের দিকে, পুরোটাই অন্ধকার। আমি পেছনে ফিরে তাকালাম, কিন্তু আমার বন্ধু আর ভারতীয় ক্রিকেটারদের কাউকেই দেখতে পেলাম না।’

ওই বিমানকর্মী জানান, এমন পরিস্থিতিতে রানাতুঙ্গা তার শ্লীলতাহানির চেষ্টা করেন। কিন্তু যৌন হেনস্তার শিকার হওয়ার পরও কৌশলে খারাপ কিছুর হাত থেকে বেঁচে যান তিনি।

‘রানাতুঙ্গা আমার কোমর ধরে আমার ঊর্ধ্বাঙ্গের স্পর্শকাতর অংশে হাত দিয়েছিলেন। আমি ভয়ঙ্কর কিছু হতে যাচ্ছে, সেই ভয় পেয়ে চিৎকার শুরু করি। ওর হাত ও পায়ে লাথি মেরেছি। রানাতুঙ্গাকে ভয়ঙ্কর পরিণতির কথা বলে ভয়ও দেখিয়েছি। বলেছি পাসপোর্ট বাতিল করে দেবো, পুলিশের কাছে জানাব। তিনি একজন বিদেশি নাগরিক হয়ে ভারতে এসে একজন ভারতীয় নারীর সঙ্গে খারাপ আচরণ করছেন। অবস্থা ক্রমশ খারাপের দিকে যাচ্ছিল। সময় নষ্ট না করে চিৎকার করলাম, এরপর দৌড়ে গিয়ে হোটেলের অভ্যর্থনায় হাজির হলাম’, লিখেন ওই নারী।

প্রিয় খেলা/আজহার

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন
স্পন্সরড কনটেন্ট
সব অভিযোগ ভুয়া ও ভিত্তিহীন: এম জে আকবর
সব অভিযোগ ভুয়া ও ভিত্তিহীন: এম জে আকবর
আরটিভি - ৫ দিন, ৪ ঘণ্টা আগে
ট্রেন্ডিং