প্রেস বিফ্রিংয়ে সিঅাইডির বিশেষ পুলিশ সুপার (অর্গানাইজড) মোল্যা নজরুল ইসলাম (মাঝে)। ফাইল ছবি

ডিজিটাল নিরাপত্তা অাইনে পুলিশের প্রথম মামলা

পল্টন থানায় এ মামলা করা হয়েছে।

মোস্তফা ইমরুল কায়েস
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১১ অক্টোবর ২০১৮, ১৮:৫৪
আপডেট: ১১ অক্টোবর ২০১৮, ১৮:৫৬


প্রেস বিফ্রিংয়ে সিঅাইডির বিশেষ পুলিশ সুপার (অর্গানাইজড) মোল্যা নজরুল ইসলাম (মাঝে)। ফাইল ছবি

(প্রিয়.কম) মেডিকেলে ভর্তি পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁসের ঘটনায় প্রথমবারের মতো ডিজিটাল নিরাপত্তা অাইনে মামলা করেছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)।

১১ অক্টোবর, বৃহস্পতিবার দুপুর সাড়ে ১২টায় মালিবাগে সিআইডি প্রধান কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান সিআইডির অর্গানাইজড ক্রাইমের বিশেষ পুলিশ সুপার মোল্যা নজরুল ইসলাম

মামলায় অাসামিরা হলেন- নওগাঁ পত্নীতলার আলমের ছেলে রুবাইয়াত তানভির (আদিত্য), টাঙ্গাইল কালিহাতীর আনসার আলীর ছেলে মাসুদুর রহমান ইমন, পিরোজপুর ভান্ডারিয়ার কালাম গাজীর ছেলে কাউসার গাজী (১৯), চাঁদপুর মতলবের জাকির হোসেনের ছেলে সোহেল মিয়া (২১), মাদারীপুর কালকিনির হাসানুর রশীদের ছেলে তারিকুল ইসলাম শোভন (১৯)।

প্রতারণার শিকার হওয়া ব্যক্তিদের অভিযোগের ভিত্তিতে বুধবার পাঁচজনকে গ্রেফতার করে সিআইডি। পরে পল্টন থানায় তাদের বিরুদ্ধে একটি ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলা করা হয়।

মোল্যা নজরুল ইসলাম জানান, প্রশ্ন ফাঁসকারী প্রতারণা চক্রের মাস্টারমাইন্ড কাউসার গাজীকে গ্রেফতার হয়। মাস্টারমাইন্ড কাউসার গাজীকে এ কাজে সহযোগিতা করতো তার বন্ধু সোহেল মিয়া। সে অন্যের জাতীয় পরিচয়পত্র ব্যবহার করে ভুয়া বিকাশ একাউন্ট খোলার মাধ্যমে টাকা লেনদেন করত। পরে গাজীকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সে জানায়, বর্তমানে তারা প্রশ্ন ফাঁস করতে পারছে না বলে নিজেদের মতো করে প্রশ্ন তৈরি করে এবং সেগুলো ফেসবুকে ছেড়ে দিয়ে গ্যারান্টিসহ প্রচারণা চালিয়ে শিক্ষার্থীদের কাছে প্রশ্ন বিক্রি করেছে।

পুলিশের ভাষ্য, গ্রেফতারকৃতরা প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানায়, দীর্ঘদিন ধরে এই প্রশ্নপত্র ফাঁসের কাজ করে আসছে তারা। কিন্তু এবার প্রশাসনের তৎপরতার কারণে তারা প্রশ্নপত্র ফাঁস করতে পারেনি। কিন্তু ভুয়া প্রশ্নপত্র তৈরি করে ১০টি ফেসবুকের ভুয়া আইডির মাধ্যমে মেডিকেলের প্রশ্ন পাওয়া যাচ্ছে এমন প্রচারণা চালায়।

বিশেষ পুলিশ সুপার মোল্যা নজরুল ইসলাম বলেন, ‘এই মামলাটিই হচ্ছে ডিজিটাল নিরাপত্তা অাইনের প্রথম মামলা। যা তদন্তধীন। আমরা আশা করি তদন্তে আরও বেশকিছু এই প্রতারক চক্রের সদস্যকে গ্রেফতার করতে পারব।’

প্রিয় সংবাদ/শিরিন/কামরুল

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন
স্পন্সরড কনটেন্ট

loading ...