অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। ফাইল ছবি

রায় পর্যালোচনার পর তারেকের দণ্ড বৃদ্ধির আপিল: অ্যাটর্নি জেনারেল

‘২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলায় তারেক রহমানের তো যাবজ্জীবন সাজা হয়েছে। তাই তাকে দেশে ফিরিয়ে আনতে কষ্ট হবে না।’

জানিবুল হক হিরা
সহ-সম্পাদক
প্রকাশিত: ১১ অক্টোবর ২০১৮, ১৯:২২ আপডেট: ১১ অক্টোবর ২০১৮, ১৯:২২


অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। ফাইল ছবি

(ইউএনবি) আলোচিত ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার রায় পর্যালোচনা করে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের দণ্ড বৃদ্ধির আপিল করা হবে বলে জানিয়েছেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম

১১ অক্টোবর, বৃহস্পতিবার নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে মাহবুবে আলম এ কথা জানান।

রাজধানীতে ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট আওয়ামী লীগের সমাবেশে গ্রেনেড হামলার দুই মামলায় বুধবার রায় দেয় আদালত। রায়ে তৎকালীন বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী লুৎফুজ্জামান বাবরসহ ১৯ জনকে মৃত্যুদণ্ড, তারেক রহমানসহ ১৯ জনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড এবং অন্য ১১ জনকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

মাহবুবে আলম বলেন, ‘এ মামলায় তারেক রহমানকে যদি নাটের গুরু বলা হয়ে থাকে, তবে সেটা রায় পর্যালোচনা করে দেখব। রায় পড়ে যদি দেখি তারও মৃত্যুদণ্ড হওয়া উচিত ছিল, তবে তার দণ্ড বাড়াতে রাষ্ট্রপক্ষ থেকে আপিল করব। সবটাই নির্ভর করবে রায়টি পড়ার পর।’

মৃত্যুদণ্ড হলে অনেক দেশ দণ্ডিত ব্যক্তিকে রাজনৈতিক আশ্রয় দেয় জানিয়ে মাহবুবে আলম বলেন, ‘আন্তর্জাতিক আইন অপরাধীকে আশ্রয় দেওয়া সমর্থন করে না। ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলায় তারেক রহমানের তো যাবজ্জীবন সাজা হয়েছে। তাই তাকে দেশে ফিরিয়ে আনতে কষ্ট হবে না।’

মামলার ডেথ রেফারেন্স হাইকোর্টে এলে দ্রুত শুনানির মাধ্যমে নিষ্পত্তির উদ্যোগ নেওয়া হবে বলেও জানান অ্যাটর্নি জেনারেল।

তিনি বলেন, ‘রায়ে যাদের মৃত্যুদণ্ড হয়েছে, তারা যদি আপিল করেন, তবে সেটাও ডেথ রেফারেন্সের সাথে শুনানি হবে। সে ক্ষেত্রে আমরা রাষ্ট্রপক্ষ যত দ্রুত সম্ভব শুনানির জন্য পদপেক্ষ নেব। তবে পেপারবুক তৈরি করার বিষয় রয়েছে, সেগুলো আদালতের বিষয়। কিন্তু মামলার আপিল শুনানিতে আমাদের পদক্ষেপগুলো আমরা নেব।’

মামলায় একজন পাকিস্তানি নাগরিকের সাজা হয়েছে উল্লেখ করে অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, ‘এখানে আমরা অনুমান করছি, বাংলাদেশের ক্ষতি করার জন্য, বাংলাদেশকে নেতৃত্বশূন্য করার জন্য পাকিস্তান এখনো নিবৃত্ত হয়নি। পাকিস্তান এরই মধ্যে সন্ত্রাসবাদে জড়িয়ে পড়েছে। আমরা সে ক্ষেত্রে জেএমবিসহ জঙ্গিদের দমন করতে সফল হয়েছি। সাজাপ্রাপ্ত ওই পাকিস্তানি নাগরিককে নিয়ে যথেষ্ট সন্দেহ রয়েছে। দেশকে অস্থিতিশীল করতে পাকিস্তানের ইন্ধন থাকতে পারে।’

পাকিস্তানের সাবেক রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী জুলফিকার আলী ভুট্টোর প্রসঙ্গ টেনে মাহবুবে আলম বলেন, ‘তিনি নিজে খুন করেননি। কিন্তু খুন করিয়েছেন বলে তাকেও মৃত্যুদণ্ড পেতে হয়েছে। তাই আমার মনে হয়, তারেকের অন্যদের মতো ফাঁসি হওয়া উচিত ছিল। আজ বিভিন্ন পত্র-পত্রিকায় এসেছে যে রাষ্ট্রীয় সমর্থন, প্ররোচনা ও অর্থায়নে এই হামলা হয়েছিল।’

প্রিয় সংবাদ/হিরা/আজহার

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন
ফেরত আসা শ্রমিকদের দায় নিচ্ছে না দুই এজেন্সি
মোস্তফা ইমরুল কায়েস ১৬ অক্টোবর ২০১৮
যুক্তরাষ্ট্রে যাচ্ছেন মাহবুব তালুদার
প্রদীপ দাস ১৫ অক্টোবর ২০১৮
ফোন করলেই চা হাজির
আবু আজাদ ১৫ অক্টোবর ২০১৮
স্পন্সরড কনটেন্ট
ইয়েমেনে ফের বাসে বিমান হামলা
ইয়েমেনে ফের বাসে বিমান হামলা
সমকাল - ১ দিন, ৩ ঘণ্টা আগে
পাবনায় সাংবাদিকের ওপর হামলা
পাবনায় সাংবাদিকের ওপর হামলা
মানবজমিন - ১ দিন, ৬ ঘণ্টা আগে
ট্রেন্ডিং