চীনের আরেকটি উইকেটের পতন; নেপালি স্পিনার সন্দ্বীপ লামিচানের উদযাপন। ছবি: সংগৃহীত

‘দেশের আকার ও শক্তি ক্রিকেটে কাজে আসে না’

এত বড় দেশকে ক্রিকেটের ২২ গজে রীতিমতো নাকাল করতে পেরে বেজায় খুশি নেপালের অধিনায়ক বিনোদ দাস।

মুশাহিদ
সহ-সম্পাদক
প্রকাশিত: ১৩ অক্টোবর ২০১৮, ১৪:৪৬
আপডেট: ১৩ অক্টোবর ২০১৮, ১৪:৪৬


চীনের আরেকটি উইকেটের পতন; নেপালি স্পিনার সন্দ্বীপ লামিচানের উদযাপন। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) অদ্ভুত সব স্কোরকার্ডের জন্ম দিচ্ছে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের এশিয়া অঞ্চলের বাছাইপর্ব। এই তালিকার সর্বশেষ সংযোজন নেপাল ও চীনের মধ্যকার ম্যাচটি। মালয়েশিয়ার কুয়ালালামপুরের অনুষ্ঠিত এই ম্যাচে ১৩ ওভারে মাত্র ২৬ রানেই গুটিয়ে যায় চীনের ইনিংস। জবাবে কোনো উইকেট না হারিয়ে মাত্র ১১ বলে জয় তুলে নেয় নেপাল।

এদিন চীনের ব্যাটসম্যানদের মধ্যে একজনই দুই অঙ্কের রান ছুঁয়েছেন। ২৬ রানের মধ্যে ১১ রান করেন ওপেনিং ব্যাটসম্যান ইয়ান জংজিয়াং। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৯ রান এসেছে অতিরিক্ত থেকে। বাকিদের মধ্যে আটজনই সাজঘরে ফিরে যান রানের খাতা খোলার আগে। আর তাতে ৬ ওভার শেষে ১ উইকেট হারিয়ে ২১ রান তোলা চীন আরও ৫ উইকেট হারায় একই রানে।

মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান দেংজি মা ৫ রান করলে চীনের সংগ্রহ ২৬ রানে পৌঁছে। এরপর ফের ধস নামে নেপালের ব্যাটিং লাইনআপে। স্কোরবোর্ডে কোনো রান যোগ না করেই শেষ তিন উইকেট হারায় দলটি।

চীনের এই লজ্জার দিনে নেপালের সবচেয়ে সফল বোলার সন্দ্বীপ লামিচান। ৪ ওভার বল করে ৪ রানের বিনিময়ে ৩ উইকেট তুলে নেন দলটির তারকা এই লেগস্পিনার। টুর্নামেন্টের ৫ ম্যাচ মিলিয়ে লামিচানের সংগ্রহ ২০ উইকেট।

২৬ রান পুঁজি নিয়ে বল হাতেও লড়াই করতে পারেনি চীন। প্রথম ওভারে বোলিং করতে এসে ২১ রান দেন কান তিয়ানসেন। আর তাতে দ্বিতীয় ওভারেই জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় নেপাল। ১.৫ ওভারে বিনা উইকেটে ২৯ রান তুলে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে তারা। এর মধ্যে ওপেনার বিনোদ ভান্ডারি একাই করেন ২৪ রান।

আয়তন ও আর্থিকভাবে যথেষ্ট শক্তিশালী হলেও ক্রিকেটে এখনো সেভাবে সাফল্যের দেখা পায়নি চীন। নেপালের বিপক্ষে হেরেই ২০২০ সালের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে খেলার আশা কার্যত শেষ হয়ে গেছে তাদের। চলমান টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে এ নিয়ে টানা পঞ্চম হারের মুখ দেখল দলটি।

অথচ আয়তনে নেপালের চেয়ে ৯৫ গুণের বেশি বড় চীন। নেপালের আয়তন যেখানে ১ লাখ ৪৭ হাজার ১৮১ বর্গকিলোমিটার, সেখানে চীনের আয়তন ৯৫ লাখ ৯৬ হাজার ৯৬১ বর্গকিলোমিটার। এত বড় দেশকে ক্রিকেটের ২২ গজে রীতিমতো নাকাল করতে পেরে বেজায় খুশি নেপালের অধিনায়ক বিনোদ দাস। তাই তো ম্যাচ শেষে খোঁচা মারতেও ভুল করেননি তিনি।

বিনোদ বলেন, ‘দেশের আকার আর শক্তি ক্রিকেটে কোনো কাজে আসে না।’

প্রিয় খেলা/আজহার

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন
স্পন্সরড কনটেন্ট
প্রথমবারের মতো সেরা পাঁচে মুস্তাফিজ
সৌরভ মাহমুদ ১৭ ডিসেম্বর ২০১৮
টি-২০তে দ্রুত জয়ের রেকর্ড উইন্ডিজের
টি-২০তে দ্রুত জয়ের রেকর্ড উইন্ডিজের
নয়া দিগন্ত - ২৩ ঘণ্টা আগে
টি-টোয়েন্টিতেও এগিয়ে বাংলাদেশ! | কালের কণ্ঠ
টি-টোয়েন্টিতেও এগিয়ে বাংলাদেশ! | কালের কণ্ঠ
কালের কণ্ঠ - ১ দিন, ৮ ঘণ্টা আগে
প্রথম টি-২০ ম্যাচের সময় পরিবর্তন
প্রথম টি-২০ ম্যাচের সময় পরিবর্তন
নয়া দিগন্ত - ১ দিন, ৮ ঘণ্টা আগে
টি-২০ মিশন শুরু আজ
টি-২০ মিশন শুরু আজ
নয়া দিগন্ত - ১ দিন, ৮ ঘণ্টা আগে
‘টি-টোয়েন্টি সিরিজ চ্যালেঞ্জিং হবে’
‘টি-টোয়েন্টি সিরিজ চ্যালেঞ্জিং হবে’
বাংলা ট্রিবিউন - ১ দিন, ৯ ঘণ্টা আগে

loading ...