ব্যারিস্টার মইনুল হোসেন। ছবি: সংগৃহীত

মইনুল হোসেনের খবর ৭ দিন বর্জনের আহ্বান

নারী সাংবাদিকদের দেওয়া ওই বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনের এই বক্তব্য শুধু নারীর জন্য নয়, সব নাগরিকের জন্য অবমাননাকর, আপত্তিকর ও চরম অসহনশীলতার পরিচায়ক।

ইতি আফরোজ
সহ-সম্পাদক
প্রকাশিত: ২০ অক্টোবর ২০১৮, ১৫:৪৪
আপডেট: ২০ অক্টোবর ২০১৮, ১৫:৫৮


ব্যারিস্টার মইনুল হোসেন। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) নারী সাংবাদিক মাসুদা ভাট্টিকে ‘চরিত্রহীন’ বলায় ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনের সব ধরনের সংবাদ সাত দিনের জন্য বর্জনের আহ্বান জানিয়েছেন নারী সাংবাদিকেরা।

২০ অক্টোবর, শনিবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ আহ্বান জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ১৬ অক্টোবর মধ্যরাতে একাত্তর টেলিভিশনের নিয়মিত আয়োজন একাত্তর জার্নালে রাজনৈতিক সংবাদের বিশ্লেষণ চলছিল। এ সময় ব্যারিস্টার মইনুলের কাছে মাসুদা ভাট্টির প্রশ্ন ছিল, ‘সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে একটি আলোচনা চলছে যে, সদ্য গঠিত জাতীয় ঐক্যফ্রন্টে জামায়াতের প্রতিনিধিত্ব আপনি করছেন কি না?’ এর জবাবে ব্যারিস্টার মইনুল বলেন, ‘আপনার দুঃসাহসের জন্য আপনাকে ধন্যবাদ দিচ্ছি। আপনি “চরিত্রহীন” বলে আমি মনে করতে চাই।’

নারী সাংবাদিকদের দেওয়া ওই বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনের এই বক্তব্য শুধু নারীর জন্য নয়, সব নাগরিকের জন্য অবমাননাকর, আপত্তিকর ও চরম অসহনশীলতার পরিচায়ক। তার মতো যারা রাজনৈতিক সহনশীলতার কথা বলেন, তাদের কাছ থেকে এ ধরনের শব্দচয়ন উদ্বেগজনক এবং ভবিষ্যতে স্বাধীন সাংবাদিকতা ও গণমাধ্যমের জন্য বিপজ্জনকও বটে। 

ওই বক্তব্য প্রত্যাহার করে প্রকাশ্যে ক্ষমা চাওয়ার কথাও বলা হয়েছে বিজ্ঞপ্তিতে। এতে বলা হয়, এখনো ব্যারিস্টার মইনুলের কাছ থেকে সে রকম কোনো পদক্ষেপ (প্রকাশ্যে ক্ষমা চাওয়া) লক্ষ্য করা যাচ্ছে না। উপরন্তু সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে নারী সাংবাদিকদের প্রতি চরম অবমাননাকর প্রচারণা শুরু হয়েছে। বিশেষ করে মাসুদা ভাট্টিকে লক্ষ্য করে চালানো অপপ্রচার সব সীমা অতিক্রম করছে। এমতাবস্থায়, তার নিরাপত্তা সংকটও তৈরি হয়েছে।

নারী সাংবাদিকরা বিজ্ঞপ্তিতে বলেন, ‘আমরা মনে করি যে, এই অবস্থায় মইনুল হোসেন এই আপত্তিকর বক্তব্য দেওয়ায় এবং এখনো জনসম্মুখে ক্ষমা না চাওয়ায় তাকে সব ধরনের সংবাদ, অনুষ্ঠান এবং টক শো থেকে বয়কট করার জোর আহ্বান জানাচ্ছি। আমাদের সংবাদমাধ্যমের স্বাধীনতা ও সম্মান রক্ষার্থেই এই দাবি সংগত বলেও আমরা মনে করি।’

প্রিয় সংবাদ/রিমন

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন
স্পন্সরড কনটেন্ট