বাঁ থেকে জয়নুল আবেদীন ও মাহবুব উদ্দিন খোকন। ছবি: সংগৃহীত

কেন্দ্রীয় কারাগারে নজির সৃষ্টি হচ্ছে: খালেদা জিয়ার আইনজীবী

মাহবুব উদ্দিন বলেন, ‘বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় কারাগারে নতুন নজির সৃষ্টি করতে চাচ্ছে সরকার। আমরা খালেদা জিয়ার অনুপস্থিতিতে নিন্ম আদালতে বিচার পাই নাই, হাইকোর্টে বিচার পাই নাই।’

আমিনুল ইসলাম মল্লিক
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ২৮ অক্টোবর ২০১৮, ১৬:০৩ আপডেট: ২৮ অক্টোবর ২০১৮, ১৬:০৩
প্রকাশিত: ২৮ অক্টোবর ২০১৮, ১৬:০৩ আপডেট: ২৮ অক্টোবর ২০১৮, ১৬:০৩


বাঁ থেকে জয়নুল আবেদীন ও মাহবুব উদ্দিন খোকন। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলায় বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার অনুপস্থিতিতে বিচার নিয়ে কেন্দ্রীয় কারাগারে নতুন নজির সৃষ্টি করা হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন মাহবুব উদ্দিন খোকন

২৮ অক্টোবর, রবিবার আপিল বিভাগ থেকে বের হয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এ অভিযোগ করেন খালেদা জিয়ার এই আইনজীবী।

মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেন, ‘পৃথিবীর ইতিহাসে নজির নেই, আসামিকে কারাগারে বিচার করার। পৃথিবীতে নজিরবিহীন, আসামি জেলে আছে, আসামি জেল কাস্টডিতে অথবা জেল কর্তৃপক্ষের নিকট আছে, এমন অবস্থায় বিচার করা। আসামি হাসপাতালে আছে, মামলার বিচার হবে, বিচারের রায় হবে, পৃথিবীর ইতিহাসে এমন কোনো নজির নেই। উদাহরণ নাই।’

তিনি আরও বলনে, ‘বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় কারাগারে নতুন নজির সৃষ্টি করতে চাচ্ছে সরকার। আমরা খালেদা জিয়ার অনুপস্থিতিতে নিন্ম আদালতে বিচার পাই নাই, হাইকোর্টে বিচার পাই নাই। আপিলে বিচারের জন্য গিয়েছি। আগামীকাল আদেশ হবে, আমরা আশা করি সর্বোচ্চ অদালতে ন্যায়বিচার পাব। খালেদা জিয়ার অনুপস্থিতিতে বিচারের বিষয়টি নিষ্পত্তি হবে।’

খালেদা জিয়ার অনুপস্থিতিতে বিচার চলবে কি না, বিষয়টি নিয়ে আপিল বিভাগে আদেশের জন্য দিন নির্ধারণ করা হলো, এমন অবস্থায় আগামীকাল রায় ঘোষণা করতে পারে কি না আদালত, এমন প্রশ্নের জবাবে খালেদা জিয়ার অপর আইনজীবী জয়নুল আবেদীন বলেন, ‘এটা আদালতের আদেশের ওপর নির্ভর করবে। বিষয়টি দেশের সর্বোচ্চ আদালতে বিচারাধীন। আপিল বিভাগ কী আদেশ দিবে, তার ওপর নির্ভর করবে, আগামীকালকে রায় ঘোষণা করা হবে কি না।’

‘খালেদা জিয়া চিকিৎসারত আছেন, এই অবস্থায় বিচারিক আদালত বিবেচনা না করে, মানুষের জীবনের কথা চিন্তা না করে, আগামী ২৯ অক্টোবর দিন নির্ধারণ করেছে রায়ের জন্য। বিষয়টি খুবই দুঃখজনক।’

জয়নুল আবেদীন বলেন, ‘আদালতের প্রতি খুবই শ্রদ্ধাশীল। আদেশের বিরুদ্ধে আমরা যুদ্ধ করতে পারি না। আমরা খালেদা জিয়াকে আইনগত সহায়তা দেওয়ার লক্ষ্যে দেশের সর্বোচ্চ আদালতে এসেছি। আজকে আপিল বিভাগে এ বিষয়টি শুনানির জন্য ছিল। একজন অসুস্থ ব্যক্তির অনুপস্থিতিতে তার বিরুদ্ধে বিচার ও রায় ঘোষণা করতে পারে কি না, এর ওপরে আজকে শুনানি হয়েছে।’

‘শুনানিতে আমরা আমাদের বক্তব্য রেখেছি। আদালতে বলেছি, আসামির অনুপস্থিতিতে বিচারের বিষয়টি আইনগত হয়নি। সমীচীন হয়নি। আমাদের বক্তব্য শুনে আগামীকাল আদেশের জন্য দিন নির্ধারণ রেখেছে। আমরা বিশ্বাস করি, আমরা দেশের সর্বোচ্চ আদালতে ন্যায়বিচার পাব। ন্যায়বিচারের স্বার্থে আমাদের আবেদন গ্রহণ করবে আপিল বিভাগ।’

প্রিয় সংবাদ/ইতি/শান্ত 

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

loading ...