ইডেনে বেল বাজাচ্ছেন মোহাম্মদ আজহারউদ্দিন। ছবি: সংগৃহীত

‘ঘণ্টা বাজছে, আশা করি ক্ষমতাবানরা শুনছেন’

ইডেনে আজহারউদ্দিনের ঘণ্টা বাজানো নিয়ে তীব্র কটাক্ষই করেছেন গৌতম গম্ভীর।

সৌরভ মাহমুদ
সহ-সম্পাদক
প্রকাশিত: ০৬ নভেম্বর ২০১৮, ১০:০২ আপডেট: ০৬ নভেম্বর ২০১৮, ১০:০২
প্রকাশিত: ০৬ নভেম্বর ২০১৮, ১০:০২ আপডেট: ০৬ নভেম্বর ২০১৮, ১০:০২


ইডেনে বেল বাজাচ্ছেন মোহাম্মদ আজহারউদ্দিন। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) মোহাম্মদ আজহারউদ্দিন—ভারতের সাবেক এই অধিনায়ক কলকাতারই ছেলে। কলকাতার ইডেন গার্ডেনের সঙ্গে রয়েছে তার অবিচ্ছেদ্য সম্পর্ক। অনেক কিছুই পেয়েছেন এই ইডেন থেকে। বলা হয়ে থাকে, ইডেন আজহারউদ্দিনের পয়া মাঠও। সেই মাঠেই ভারত-উইন্ডিজ টি-টোয়েন্টি লড়াইয়ে ইডেন বেল বাজিয়ে ম্যাচের সূচনা করেন আজহার।

এ নিয়ে শুরু হয়েছে বিতর্ক। এই বিতর্ক মূলত উসকে দিয়েছেন ভারতের আরেক সাবেক অধিনায়ক গৌতম গম্ভীর। আজহারকে দিয়ে ইডেন বেল বাজানোর ওই সিদ্ধান্ত মেনে নিতে পারেননি তিনি। রীতিমতো ক্ষোভ উগড়ে দিয়েছেন গম্ভীর। আজহারকে কটাক্ষের পাশাপাশি বিসিসিআই, সিওএ ও সিএবি কর্মকর্তাদের ধুয়ে দিয়েছেন গম্ভীর।

শুধু তা-ই নয়, আজহারউদ্দিনের ম্যাচ ফিক্সিং নিয়েও খোঁচা দিয়েছেন গম্ভীর। তার মতে, ইডেনে ওয়েস্ট ইন্ডিজের সঙ্গে প্রথম টি-টোয়েন্টি ম্যাচে ভারত জিতে গেলেও, হেরে গিয়েছে সিএবি, বিসিসিআই ও ক্রিকেট প্রশাসকদের কমিটি। আর সেদিন দুর্নীতিবাজদের কোনোভাবেই সহ্য না করার নীতি ছুটিতে গিয়েছিল বলেও কটাক্ষ করেন ভারতের সাবেক এই অধিনায়ক।

সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম টুইটারে গম্ভীর লিখেছেন, ‘ইডেনে ভারত জিতলেও, আমি দুঃখিত যে বিসিসিআই, কমিটি অব ক্রিকেট অ্যাডমিনিস্ট্রেটরস ও সিএবি হেরে গিয়েছে। দুর্নীতিবাজদের কোনোভাবেই সহ্য না করার নীতি রবিবার ছুটিতে গিয়েছিল। আমি জানি তাকে হায়দরাবাদ ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের নির্বাচন লড়তে দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু এটি খুবই বিস্ময়কর যে ঘণ্টা বাজছে। আশা করি ক্ষমতাবানরা শুনছেন।’

গৌতম গম্ভীরের টুইট

২০০০ সালে ম্যাচ গড়াপেটায় যুক্ত থাকার অভিযোগে বিসিসিআই আজহারকে নির্বাসিত করেছিল। ১২ বছর পর অন্ধ্রপ্রদেশ হাইকোর্ট সেই নির্বাসন তুলে নেয়। ২০১৭ সালে হায়দরাবাদ ক্রিকেট সংস্থার নির্বাচনে আজহারকে দাঁড়াতে দেওয়া হয়নি। ২০১৮ সালের শুরুতে বিসিসিআই অবশ্য তাকে নির্বাচনে লড়ার অনুমতি দেয়। বলা হয়, বিসিসিআই, আইসিসি বা অন্য কোনো অনুমোদিত সংস্থায় পদ পেতে তার রাস্তায় আর কোনো বাধা নেই।

নির্বাসন থেকে মুক্তি পাওয়ায় পর একাধিকবার ক্রিকেট প্রশাসনে আসার চেষ্টা করলেও দেশের জার্সিতে ৯৯টি টেস্ট ও ৩৩৪টি ওয়ানডে খেলা আজহারের সেই ইচ্ছে বারবার ধাক্কা খেয়েছে৷ গম্ভীর ঘুরিয়ে সেই গড়াপেটা দুর্নীতির দিকেই ইঙ্গিত করে টুইটটি করেছেন। গম্ভীরের এমন অভিযোগ নিয়ে এখনো অবশ্য সিএবি বা সংস্থাটির প্রধান সৌরভ গাঙ্গুলির পক্ষ থেকে কোনো প্রতিক্রিয়া মেলেনি।

প্রিয় খেলা/আজাদ চৌধুরী

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

loading ...