২১ সেপ্টেম্বর হৃদয় সরকারকে কোলে করে পরীক্ষার হলে নিয়ে যান মা সীমা রানি সরকার। ছবি: সংগৃহীত

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির সুযোগ পাচ্ছেন সেই হৃদয়

প্রতিবন্ধী কোটায় ভর্তির আবেদন করেছিলেন হৃদয়। কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিবন্ধী কোটার বিধিমালা অনুযায়ী শুধু দৃষ্টি, শ্রবণ ও বাক-প্রতিবন্ধীদের জন্য প্রতিবন্ধী কোটা প্রযোজ্য ছিল।

প্রিয় ডেস্ক
ডেস্ক রিপোর্ট
প্রকাশিত: ০৮ নভেম্বর ২০১৮, ২২:১২ আপডেট: ০৮ নভেম্বর ২০১৮, ২২:১২
প্রকাশিত: ০৮ নভেম্বর ২০১৮, ২২:১২ আপডেট: ০৮ নভেম্বর ২০১৮, ২২:১২


২১ সেপ্টেম্বর হৃদয় সরকারকে কোলে করে পরীক্ষার হলে নিয়ে যান মা সীমা রানি সরকার। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) শারীরিক প্রতিবন্ধী কোটায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে (ঢাবি) ভর্তির সুযোগ পাচ্ছেন সেই হৃদয় সরকার। ২০১৮-২০১৯ শিক্ষাবর্ষের কলা অনুষদভুক্ত ‘খ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় ৩ হাজার ৭৪০তম স্থান লাভ করেন হৃদয়।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতির সভাপতি এ এস এম মাকসুদ কামাল বলেন, ‘হৃদয় সরকার ভর্তি হওয়ার সুযোগ পাবেন। ডিনস কমিটির পক্ষ থেকে আমরা শারীরিক প্রতিবন্ধীদের কথা সুপারিশ করেছি, যার সুবাদে হৃদয় সরকারকে ভর্তির জন্য সুপারিশ করা হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের নিয়মে এর আগে শুধু বাক, শ্রবণ ও দৃষ্টি প্রতিবন্ধীদের কোটার মাধ্যমে ভর্তির সুযোগ ছিল। কিন্তু আমরা দেখেছি, এদের সঙ্গে শারীরিক প্রতিবন্ধীদেরও এই সুযোগ দেওয়া উচিত। কারণ তারাও সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয় থেকে প্রতিবন্ধীর স্বীকৃতি পেয়েছে।’

গত ২১ সেপ্টেম্বর ‘খ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার দিন বিজয় একাত্তর হল থেকে পরীক্ষার হলে হৃদয়কে কোলে করে নিয়ে যান তার মা। এমন একটি ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে ব্যাপক আলোচনার সৃষ্টি হয়। ভর্তি পরীক্ষায় হৃদয় সরকার মোট ১২০ দশমিক ৯৬ নম্বর পেয়ে ৩ হাজার ৭৪০তম হন ৷

প্রতিবন্ধী কোটায় ভর্তির আবেদন করেছিলেন হৃদয়। কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিবন্ধী কোটার বিধিমালা অনুযায়ী শুধু দৃষ্টি, শ্রবণ ও বাক-প্রতিবন্ধীদের জন্য প্রতিবন্ধী কোটা প্রযোজ্য ছিল। ফলে হৃদয় সরকারের ভর্তি নিয়ে তৈরি হয়েছিল অনিশ্চয়তা।

প্রিয় সংবাদ/নোমান/শান্ত 

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


loading ...