মিষ্টি খাবারের লোভ সামলানো সহজ নয়! ছবি: সংগৃহীত

বেশি চিনি খেয়ে ফেলেছেন? এখন কী করবেন?

হুট করে একদিন প্রচুর চিনি খাওয়া হয়ে গেলো! এতে সুস্থ মানুষেরও শরীর খারাপ লাগতে পারে, আবার ডায়াবেটিস রোগীদের ব্লাড সুগার বেড়ে যেতে পারে।

কে এন দেয়া
সহ-সম্পাদক
প্রকাশিত: ১৩ নভেম্বর ২০১৮, ১৮:৩৪ আপডেট: ১৩ নভেম্বর ২০১৮, ১৮:৩৪
প্রকাশিত: ১৩ নভেম্বর ২০১৮, ১৮:৩৪ আপডেট: ১৩ নভেম্বর ২০১৮, ১৮:৩৪


মিষ্টি খাবারের লোভ সামলানো সহজ নয়! ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) ডায়েট করছিলেন বা চিনি খাওয়া বাদ দিয়েছিলেন। এর মাঝে হুট করে একদিন প্রচুর চিনি খাওয়া হয়ে গেলো! এতে সুস্থ মানুষেরও শরীর খারাপ লাগতে পারে, আবার ডায়াবেটিস রোগীদের ব্লাড সুগার বেড়ে যেতে পারে। অনেকেই এ পর্যায়ে হাল ছেড়ে দেন এবং বেশি বেশি চিনি খাওয়া শুরু করেন।  কিন্তু স্বাস্থ্য ঠিক রাখতে হলে আপনাকে চিনি খাওয়া নিয়ন্ত্রণে আনতে হবে বই কী!  জেনে নিন বেশি চিনি খাওয়ার পর শরীর ঠিক রাখার উপায়-

১) নিজের কাছে স্বীকার করুন

অনেকেই খাওয়ার সময় কী খাচ্ছেন খেয়াল করেন না। টিভি দেখা বা আড্ডা দেওয়ার মাঝে অনেক কিছুই খেয়ে ফেলেন। বেশি চিনি খেয়ে ফেলেছেন বোঝার উপায় হলো, অস্থির লাগতে থাকা, আবার কিছুক্ষণ পরেই শরীর একেবারে দুর্বল হয়ে পড়া।  একে ‘সুগার ক্র্যাশ’ বলা হয়।  চিনি খাওয়ার ১৫ মিনিট পর থেকে শুরু করে ২ ঘণ্টা পর এই ক্র্যাশ হতে পারে।  আপনি ভাবতে পারেন আরেকবার চিনি খেলে এই ক্লান্তি দূর হয়ে যাবে, কিন্তু তা করা যাবে না। নিজের কাছে স্বীকার করুন যে বেশি চিনি খাওয়া হয়ে গেছে, আর খাওয়া যাবে না।

২) বাদাম খান

চিনি বেশি খাওয়া হয়ে গেলে অনেকে ভাবেন এরপর আর কিছুই খাওয়া যাবে না। কিন্তু চিনির প্রভাব কমিয়ে আনার জন্য আপনি এক চা চামচ পিনাট বাটার বা এক মুঠো বাদাম খেতে পারেন।  এতে থাকা ফ্যাট ও প্রোটিন আপনার হজম প্রক্রিয়া ধীর করে দেবে। এছাড়া হামুস সস দিয়ে কাঁচা সবজির সালাদ খেতে পারেন।  এতে থাকা ফাইবার সুগার ক্র্যাশের প্রভাব কমাবে।

৩) সিঁড়ি ভাঙ্গুন

সুগার ক্র্যাশ হলে ক্লান্তিতে শুয়ে-বসে থাকতে ইচ্ছে করবে। কিন্তু তা করা যাবে না।  বরং শরীরচর্চা আপনার বেশি কাজে আসবে। ব্লাড সুগার ব্যবহার হয়ে যাবে ও আপনার শরীর ঝরঝরে অনুভব হবে। তারমানে এই নয় যে জিমে গিয়ে ঘাম ঝরাবেন আপনি। বরং খাওয়ার পর ১৫ মিনিট হাঁটা বা সিঁড়ি ভাঙা কাজে আসবে।

৪) লেবু চা পান করুন

গ্রিন টি পান করুন লেবু দিয়ে। চিনি যোগ করবেন না কিন্তু! এতে আপনার প্রস্রাবের বেগ আসবে দ্রুত, ফলে কিডনিতে রক্ত পরিশোধিত হবে ও শরীর থেকে অতিরিক্ত চিনি বের হয়ে আসবে। এর পাশাপাশি বেশি করে পানিও পান করতে হবে।

৫) আগামীকালের ব্রেকফাস্ট ঠিক করুন

আজ চিনি খেয়ে ফেলেছেন, তাই আগামীকালকের খাবারটা যেন স্বাস্থ্যকর হয় সেদিকে নজর রাখুন। সকালের নাশতায় থাকা উচিত বেশি করে প্রোটিন, কিছু পরিমাণ ফ্যাট এবং একদম কম পরিমাণে শর্করা। খেতে পারেন সবজি দিয়ে ডিম ভাজা, সাথে এক টুকরো হোল গ্রেইন টোস্ট, কয়েক টুকরো অ্যাভোকাডো। অতিরিক্ত কফি পান করা থেকে বিরত থাকুন।  মিষ্টি ফল কম পরিমাণে খান।

৬) সস খাওয়া কমিয়ে দিন

সালাদ ড্রেসিং, সস ও মেয়োনেজে লুকিয়ে থাকতে পারে চিনি। উদাহরণস্বরূপ, এক টেবিল চামচ টমেটো কেচাপে এক চা চামচ পরিমাণ চিনি থাকতে পারে। কিন্তু পণ্যের লেবেল দেখে তা বোঝার উপায় থাকে না, কারণ চিনির বদলে লেখা তাকে হাই ফ্রুক্টোজ কর্ন সিরাপ, ডেক্সট্রোজ, রাইস সিরাপ, মোলাসেজ ইত্যাদি। এ সবই আসলে চিনি।

৭) স্মুদি পান করুন

চিনি বেশি খাওয়া হয়ে গেলে পরদিন স্মুদি পান করুন। তবে তাতে ফল কম দিন, সবজি বেশি দিন। কারণ ফলে প্রাকৃতিক চিনি থাকে, অনেকেই তা খেয়াল করেন না।  ফল ও সবজির পাশাপাশি দিতে পারেন টক দই বা পিনাট বাটার। বেস হিসেবে ব্যবহার করতে পারেন গ্রিন টি, সয়া মিল্ক বা আমন্ড মিল্ক।

৮) অতিরিক্ত মিষ্টি বাসা থেকে দূর করুন

বাসায় থাকা মিষ্টি জিনিস যেমন কোক-পেপসি, চকলেট, ক্যান্ডি, কেক, মিষ্টি, সন্দেশ এগুলো আপনাকে আবারও আকর্ষণ করতে পারে।  এগুলো বাসায় না রেখে দিয়ে দিন, বন্ধুদের বিলিয়ে দিন বা অফিসে নিয়ে যান। কারণ যাদের বাসায় মিষ্টি জিনিস থাকে, তারা এগুলো খাওয়ার প্রতি বেশি প্রলুব্ধ হয় ও তাদের ওজন বাড়ে, এটা দেখা গেছে এক গবেষণায়।

সূত্র: রিডার্স ডাইজেস্ট

প্রিয় লাইফ/ আর বি 

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

loading ...