নতুন এক ফিচার আসছে ফেসবুক মেসেঞ্জারে। ছবি: সংগৃহীত

অনেকের মনেই স্বস্তি এনে দেবে ফেসবুকের এই নতুন ফিচার

ফেসবুক মেসেঞ্জারে বিব্রতকর মেসেজ পাঠিয়েছেন কখনো?

কে এন দেয়া
সহ-সম্পাদক
প্রকাশিত: ১৭ নভেম্বর ২০১৮, ১৭:২২ আপডেট: ১৭ নভেম্বর ২০১৮, ১৭:২৩
প্রকাশিত: ১৭ নভেম্বর ২০১৮, ১৭:২২ আপডেট: ১৭ নভেম্বর ২০১৮, ১৭:২৩


নতুন এক ফিচার আসছে ফেসবুক মেসেঞ্জারে। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) ফেসবুক মেসেঞ্জার ব্যবহার করতে গিয়ে উটকো ঝামেলার মুখোমুখি হতে হয়নি, এমন মানুষ হয়তো পাওয়া যাবে কমই।  হয়তো ভুল টাইপ করার কারণে এক কথা বলতে গিয়ে আরেক কথা বলে ফেলেছেন, বান্ধবীকে পাঠানোর মেসেজ পাঠিয়ে দিয়েছেন মায়ের ইনবক্সে, আবার হয়তো বেফাঁস কোনো গোপন কথা বলে মাথা চাপড়েছেন। এমন সমস্যার সমাধান নিয়ে আসছে ফেসবুক। ফেসবুক মেসেঞ্জারে পাঠানো মেসেজ ‘আনসেন্ড’ করার ফিচার আসছে শীঘ্রই।

প্রযুক্তি বিষয়ক সংবাদমাধ্যম টেকক্রাঞ্চের সাথে এক সাক্ষাৎকারে ফেসবুকের হেড অব মেসেঞ্জার স্ট্যান চাডনভস্কি জানিয়েছেন আনসেন্ড ফিচারের কথা। তিনি জানান, একটি অবাঞ্ছিত মেসেজ পাঠানোর ১০ মিনিটের মাঝে তা ডিলিট করার সুযোগ পাবেন ব্যবহারকারীরা। ইতোমধ্যেই এই ফিচারটি প্রকাশ করা হয়েছে বলিভিয়া, কলম্বিয়া, লিথুনিয়া ও পোল্যান্ডে।  বিশ্বের অন্যান্য দেশে কবে এই ফিচারটি আসবে তা অবশ্য এখনো পরিষ্কার করে বলা হয়নি।

চাডনভস্কি বলেন, ‘আপনি ভুল করলে তা ঠিক করার সুযোগ পাবেন’।  এই ফিচারটির মাধ্যমে যেন কেউ খারাপ মেসেজ পাঠিয়ে আবার তা ডিলিট করার সুযোগ না পায়, তার দিকে কর্তৃপক্ষ নজর রাখবে বলে দাবি করেন তিনি।

আনসেন্ড ফিচারটির ব্যাপারে প্রথম ইঙ্গিত দেওয়া হয় গত মাসে।  এই ফিচারটি কীভাবে কাজ করে তার কিছু স্ক্রিনশট লিক করা হয়েছিল। মার্ক জাকারবার্গের পাঠানো কিছু মেসেজ ডিলিট করা হয় বলে জানায় ফেসবুক।

কীভাবে কাজ করবে এই ফিচারটি? আপনি গ্রুপ চ্যাট থেকেও মেসেজ ডিলিট করতে পারেন চাইলে। তবে আপনি শুধু নিজের মেসেজ ডিলিট করতে পারবেন। অন্য কারও মেসেজ নয়। মেসেজটির ওপর চাপ দিয়ে ধরে রাখলে রিমুভ বাটনটি আসবে। এরপর তা ডিলিট করতে পারেন আপনি।

তবে মেসেজ ডিলিট করেই আপনি পার পেয়ে যাবেন না। আপনি যে মেসেজ ডিলিট করেছেন, তা দেখতে পাবে গ্রুপ চ্যাটের সবাই।  আপনি আসলে কী মেসেজ ডিলিট করেছেন, তা নিয়ে আপনি প্রশ্নের মুখোমুখি হতেই পারেন।

সূত্র: আইএফএলসায়েন্স

প্রিয় লাইফ/ আর বি 

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

loading ...