জামিনে মুক্তি লাভের পর ড. শহিদুল আলমকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান শুভাকাঙ্ক্ষীরা। ছবি: সংগৃহীত

অবশেষে কারামুক্ত শহিদুল আলম

শহিদুল আলমের মুক্তির বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কেরানীগঞ্জে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের জেল সুপার মাহবুবুল ইসলাম।

আবু আজাদ
সহ-সম্পাদক
প্রকাশিত: ২০ নভেম্বর ২০১৮, ২০:৫৯
আপডেট: ২০ নভেম্বর ২০১৮, ২২:১৮


জামিনে মুক্তি লাভের পর ড. শহিদুল আলমকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান শুভাকাঙ্ক্ষীরা। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) ১০৭ দিন বন্দী থাকার পর অবশেষে কারামুক্তি পেয়েছেন তথ্যপ্রযুক্তি আইনের মামলায় গ্রেফতার আলোকচিত্রী ড. শহিদুল আলম। 

২০ নভেম্বর, মঙ্গলবার রাত ৮টা ২৫ মিনিটে শহিদুল আলম মুক্তি পান।

শহিদুল আলমের মুক্তির বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কেরানীগঞ্জে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের জেল সুপার মাহবুবুল ইসলাম। 

মাহবুবুল ইসলাম বলেন, ‘হাইকোর্টের দেওয়া জামিনাদেশের কাগজে কিছু ভুল থাকায় তা সংশোধনের জন্য আবারও আদালতে পাঠানো হয়। পরে সংশোধনী হাতে পেয়ে রাতে তাকে মুক্তি দেওয়া হয়েছে।’

এর আগে ১৫ নভেম্বর তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইনের মামলায় আলোকচিত্রী শহিদুল আলমকে জামিন দেয় হাইকোর্ট

সহপাঠী নিহতের ঘটনায় বিচার দাবি ও নিরাপদ সড়ক চেয়ে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের বিষয়ে কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরায় বক্তব্য দিয়েছিলেন শহিদুল আলম। সেই বক্তব্যকে কেন্দ্র করে গত ৫ আগস্ট রাতে রাজধানীর ধানমন্ডির বাসা থেকে শহিদুলকে আটক করে গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ

পরে ফেসবুক ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ায় সরকারের বিরুদ্ধে ‘অপপ্রচার ও শিক্ষার্থীদের আন্দোলন নিয়ে মিথ্যা তথ্য’ দিয়ে জনগণকে বিভ্রান্ত করার অভিযোগে তার বিরুদ্ধে আইসিটি আইনে মামলা করা হয়

এ মামলায় একটি জামিন আবেদন নিম্ন আদালতে বিচারাধীন থাকাবস্থায় ২৮ আগস্ট হাইকোর্টে প্রথম দফায় জামিন আবেদন করেন শহিদুল আলম। গত ১০ সেপ্টেম্বর হাইকোর্ট এই আবেদনের শুনানি করে ১১ সেপ্টেম্বরের মধ্যে বিচারিক আদালতকে শহিদুল আলমের আবেদন নিষ্পত্তির আদেশ দেয়।

পরে ১১ সেপ্টেম্বর ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালত তার জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে। ১৭ সেপ্টেম্বর দ্বিতীয় দফায় হাইকোর্টে তিনি জামিনের আবেদন করেন। সেই আবেদনের প্রাথমিক শুনানি নিয়ে আলোকচিত্রী শহিদুল আলমকে কেন জামিন দেওয়া হবে না, তা জানতে চেয়ে গত ৭ অক্টোবর রুল জারি করে হাইকোর্ট। তবে গত ৬ নভেম্বর হাইকোর্টে সম্পূরক জামিন আবেদন করেন শহিদুল ইসলাম।

প্রিয় সংবাদ/আজাদ/শান্ত 

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন
স্পন্সরড কনটেন্ট