উড়োজাহাজটিতে থাকা ১৮৯ আরোহীর সবার মৃত্যু হয়। ছবি: সংগৃহীত

উড়ার উপযোগী ছিল না লায়ন এয়ারের বিধ্বস্ত বিমানটি

উড্ডয়নের ১৩ মিনিটের মাথায় ১৮৯ যাত্রী নিয়ে ইন্দোনেশিয়ার জাভা সাগরে গত মাসে বিধ্বস্ত হয় লায়ন এয়ারের বোয়িং ৭৩৭ ম্যাক্স ৮ মডেলের বিমানটি।

প্রিয় ডেস্ক
ডেস্ক রিপোর্ট
প্রকাশিত: ২৯ নভেম্বর ২০১৮, ১২:১১ আপডেট: ২৯ নভেম্বর ২০১৮, ১২:১২
প্রকাশিত: ২৯ নভেম্বর ২০১৮, ১২:১১ আপডেট: ২৯ নভেম্বর ২০১৮, ১২:১২


উড়োজাহাজটিতে থাকা ১৮৯ আরোহীর সবার মৃত্যু হয়। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) উড্ডয়নের ১৩ মিনিটের মাথায় ১৮৯ যাত্রী নিয়ে ইন্দোনেশিয়ার জাভা সাগরে গত মাসে বিধ্বস্ত হয় লায়ন এয়ারের বোয়িং ৭৩৭ ম্যাক্স ৮ মডেলের বিমানটি। ঘটনার এক মাস পর  ইন্দোনেশিয়ার তদন্তকারীরা জানালেন, লায়ন এয়ারের ওই উড়োজাহাজটি উড়ার উপযোগী ছিল না। সিএনএন এ খবর জানিয়েছে।

২৯ অক্টোবর স্থানীয় সময় সকাল ৬টা ২০ মিনিটের দিকে দেশটির পাংকাল পেনাং শহরের উদ্দেশে নিয়মিত শিডিউলের জেটি৬১০ ফ্লাইটটি জাকার্তা থেকে ছেড়েছিল। কিন্তু উড্ডয়নের ১৩ মিনিটের মাথায় নিয়ন্ত্রণ কক্ষের সঙ্গে বিমানটির যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে। ওই এলাকার আশপাশের লোকজন বিমানটিকে সাগড়ে পড়তে দেখেছেন। উড়োজাহাজটিতে থাকা ১৮৯ জন আরোহীর সবার মৃত্যু হয়।

২৮ নভেম্বর, বুধবার ইন্দোনেশিয়ার বিমান দুর্ঘটনার তদন্ত শেষে দেশটির জাতীয় পরিবহন নিরাপত্তা কমিটি (কেএনকেটি) এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে।

কেএনকেটির প্রধান নুরচায়ো উটোমো বলছেন, ২৮ অক্টোবরে বালি থেকে জাকার্তা যাওয়ার সময়ও বিমানটিতে কারিগরি ত্রুটি দেখা দিয়েছিল। পরের দিনের ফ্লাইটেই বিমানটি বিধ্বস্ত হয়। 

উটোমো বলেন, ২৮ অক্টোবর ফ্লাইট চলাকলে বিমানটির এন্টি-স্টল ব্যবস্থা বন্ধ হয়ে যাওয়ার পর পাইলট জাকার্তায় নেমে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন।

উটোমো আরও বলেন, ‘আমাদের মতে, উড়োজাহাজটি উড়ার উপযোগী ছিল না। তাই এটি নিয়ে ফ্লাইটে যাওয়া উচিত হয়নি।’

যাত্রী নিরাপত্তার ক্ষেত্রে লায়ন এয়ারের গা-ছাড়া মনোভাব নিয়ে আগেই আঙুল তুলেছিল জাতীয় পরিবহন নিরাপত্তা কমিটি।প্রশাসনের দাবি, যান্ত্রিক ত্রুটি আছে জেনেও চালক সে দিন উড়ান অব্যাহত রাখেন। এদিকে আগামী বছরের আগে পূর্ণাঙ্গ তদন্ত রিপোর্ট পাওয়া যাবে না। তাই এখনই কাউকে কাঠগড়ায় তুলছেন না তদন্তকারীরা। এ ছাড়া, ‘ককপিট ভয়েস-রেকর্ডার’ পাওয়া যায়নি। 

প্রিয় সংবাদ/আশরাফ/রুহুল

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

বলুন তো ইনি কে!

প্রিয় ১০ ঘণ্টা, ৫৩ মিনিট আগে

loading ...