‘দহন’ ছবির পোস্টার; ফেসবুকে এর প্রদর্শনের বিরুদ্ধে স্ট্যাটাস। ছবি: সংগৃহীত

রাবিতে ‘দহন’ ছবির প্রদর্শন নিয়ে শিক্ষার্থীদের আপত্তি

ছবিটির প্রদর্শন নিয়ে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে মিশ্র প্রতিক্রিয়া তৈরি হয়েছে। বিশেষ করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে দায়ী করে স্ট্যাটাস দিচ্ছেন শিক্ষার্থীরা।

আকরাম হোসাইন
রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়
প্রকাশিত: ২৯ নভেম্বর ২০১৮, ১৯:০০ আপডেট: ২৯ নভেম্বর ২০১৮, ১৯:০৩
প্রকাশিত: ২৯ নভেম্বর ২০১৮, ১৯:০০ আপডেট: ২৯ নভেম্বর ২০১৮, ১৯:০৩


‘দহন’ ছবির পোস্টার; ফেসবুকে এর প্রদর্শনের বিরুদ্ধে স্ট্যাটাস। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) কেন্দ্রীয় কাজী নজরুল ইসলাম মিলনায়তনে ১ ডিসেম্বর জাজ মাল্টিমিডিয়ার ছবি ‘দহন’ প্রদর্শিত হবে। এ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে মিশ্র প্রতিক্রিয়া তৈরি হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে দায়ী করে স্ট্যাটাস দিচ্ছেন শিক্ষার্থীরা। অন্যদিকে নিয়ম মেনেই ছবিটি প্রদর্শনের ব্যবস্থা করা হচ্ছে বলে দাবি করেছে প্রশাসন।

২৮ নভেম্বর, বুধবার রাতে জাজ মাল্টিমিডিয়ার ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে বিশ্ববিদ্যালয়ের কাজী নজরুল ইসলাম মিলনায়তনে ‘দহন’ ছবিটি প্রদর্শিত হবে বলে জানানো  হয়।

এ ঘটনা শোনার পরই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মধ্যে এ নিয়ে ব্যাপক প্রতিক্রিয়া দেখা যায়। সাইদ মুন্না নামের একজন লিখেছেন, ‘শুধু ছবি চালালে হবে?? হলের দর্শক বাড়াতে সরকারিভাবে স্কুল-কলেজ-ভার্সিটির ক্লাস-পরীক্ষা বন্ধ রাখতে হবে। এই ছবিতে নিশ্চিত কোনো নির্বাচনি দলের বিপক্ষে মেসেজ আছে। ও! হা! তাহলে কারো না কারো পক্ষেও থাকবে। নির্বাচনের আগে সকলকে সচেতন হতে হবে। #সরকারিভাবে এটা ফ্রি করে দিলে দেখাটা সহজ হতো। গুড জব রা'বি, সাওতাল থেকে রমনীর পথে।’

এম মইন উদ্দিন লিখেছেন, ‘স্বায়ত্তশাসিত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বাণিজ্যিক ধরনের সিনেমা প্রদর্শন করা সুস্থ সাংস্কৃতিক মননশীলতার বিকাশে বাধা। রাবি প্রশাসন কোন দৃষ্টিতে অনুমোদন দিলো, তা বোধগম্য নয়। এটা কোনোভাবেই মানব না।’

আকাশ পাল নামের এক শিক্ষার্থী লিখেন, ‘রাবি প্রশাসনের উচিত হয়নি কাজী নজরুল ইসলাম অডিটরিয়ামে সিনেমা দেখার জন্য অনুমতি দেওয়া। কারণ এটা বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল ডিপার্টমেন্টের অনুষ্ঠানের জন্য; সিনেমা হল বা পাবলিক প্লেস নয়।’

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা যায়, আগামী ১ থেকে ৬ ডিসেম্বর পর্যন্ত প্রতিদিন দুপুর ১২টা, বিকেল ৩টা ও সন্ধ্যা ৬টায় ছবিটির প্রদর্শন হবে।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের (টিএসসিসি) পরিচালক ড. হাসিবুল আলম প্রধান বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেটের যে নীতিমালা আছে, সেখানে বাইরের মানুষের ব্যবহারের জন্য নিষেধাজ্ঞা নেই। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলে ও নিয়ম মেনেই সিদ্ধান্ত দেওয়া হয়েছে। অনেকে প্রদর্শনীর বিপক্ষে আছেন, আবার অনেকেই সিনেমাটি দেখতে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন।’

প্রদর্শনী নিয়ে কোনো অনাকাঙ্ক্ষিত পরিবেশ সৃষ্টি হওয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টর অধ্যাপক ড. লুৎফর রহমান বলেন, ‘টিএসসিসি পরিচালক যেহেতু অনুমোদন দিয়েছেন, সেহেতু নিয়ম মেনেই দিবেন। তবে সে রকম কিছু হলে অবশ্যই নজরে থাকবে। আমি বিষয়টি কথা বলে দেখছি।’

প্রিয় সংবাদ/নোমান/আজহার