সুপ্রিম কোর্ট। ফাইল ছবি

সিইসি-কমিশনারদের নিয়োগের রিট উত্থাপিত হয়নি মর্মে খারিজ

সোমবার বিচারপতি মইনুল ইসলাম চৌধুরী ও বিচারপতি মো. আশরাফুল কামালের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ রিটটি উত্থাপিত হয়নি বলে খারিজ করে দেন।

প্রিয় ডেস্ক
ডেস্ক রিপোর্ট
প্রকাশিত: ০৩ ডিসেম্বর ২০১৮, ১৪:৫৪ আপডেট: ০৩ ডিসেম্বর ২০১৮, ১৪:৫৪
প্রকাশিত: ০৩ ডিসেম্বর ২০১৮, ১৪:৫৪ আপডেট: ০৩ ডিসেম্বর ২০১৮, ১৪:৫৪


সুপ্রিম কোর্ট। ফাইল ছবি

(প্রিয়.কম) প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) ও চার কমিশনার নিয়োগের বৈধতা নিয়ে করা রিট উত্থাপিত হয়নি বলে খারিজ করেছেন হাইকোর্ট।

৩ ডিসেম্বর, সোমবার বিচারপতি মইনুল ইসলাম চৌধুরী ও বিচারপতি মো. আশরাফুল কামালের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ রিটটি খারিজ করে দেন।

এর আগে গত ২৫ নভেম্বর সংবিধানের ১১৮(১) অনুচ্ছেদ অনুসারে আইন প্রণয়ন না করে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) ও অন্য কমিশনারদের নিয়োগের বৈধতা নিয়ে রিটটি করা হয়। 

গত নভেম্বরের শেষ সপ্তাহে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী মো. দেলোয়ার হোসেন ওই রিটটি করেন।

আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী ইউসুফ আলী। রাষ্ট্রপক্ষে শুনানি করেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল একরামুল হক টুটুল।

পরে একরামুল হক টুটুল সাংবাদিকদের বলেন, ‘রিট আবেদনটি উত্থাপিত হয়নি বলে খারিজ করে দিয়েছেন হাইকোর্ট। এতে স্বাভাবিক নিয়মেই সিইসিসহ অন্য নির্বাচন কমিশনাররা দায়িত্ব পালন করবেন ও কাজ চালিয়ে যাবেন।’

রিট আবেদনে প্রধান নির্বাচন কমিশনার, চার নির্বাচন কমিশনার, আইন সচিব, নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের সচিবকে বিবাদী করা হয়েছিলো।

তখন রিটকারীর আইনজীবী ইউসুফ আলী জানান, সংবিধানের ১১৮ (১) অনুচ্ছেদ অনুসারে আইন প্রণয়ন করে এর বিধান সাপেক্ষে সিইসিসহ চারজন নির্বাচন কমিশনার নিয়োগ দিতে হবে। অথচ এখনো কোনো আইন ও বিধান হয়নি। এসব ব্যতিরেখে সিইসিসহ অপর নির্বাচন কমিশনারদের নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।

সংবিধানের ১১৮(৪) অনুচ্ছেদে বলা আছে, নির্বাচন কমিশন দায়িত্ব পালনের ক্ষেত্রে স্বাধীন থাকবে এবং এই সংবিধান ও আইনের অধীনে হবে। স্বাধীন দায়িত্ব পালনের পূর্বাভিজ্ঞতা ব্যতিরেখে সিইসি হিসেবে কেএম নূরুল হুদাকে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। এসব যুক্তিতে রিটটি করা হয়েছিল।

প্রিয় সংবাদ/কামরুল

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

loading ...