টস করছেন বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক নুরুল হাসান সোহান ও আমিরাতের অধিনায়ক রোহান মোস্তফা। ছবি: সংগৃহীত

পেসারদের দাপটের পরও সোহান-মোসাদ্দেকদের সামনে বড় লক্ষ্য

বাংলাদেশি পেসারদের দাপটের পরও লাগাম টানা যায়নি আমিরাতের রানের চাকায়।

মুশাহিদ
সহ-সম্পাদক
প্রকাশিত: ০৬ ডিসেম্বর ২০১৮, ১৫:১০ আপডেট: ০৬ ডিসেম্বর ২০১৮, ১৬:৫৬
প্রকাশিত: ০৬ ডিসেম্বর ২০১৮, ১৫:১০ আপডেট: ০৬ ডিসেম্বর ২০১৮, ১৬:৫৬


টস করছেন বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক নুরুল হাসান সোহান ও আমিরাতের অধিনায়ক রোহান মোস্তফা। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) ইমার্জিং এশিয়া কাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচেই বল হাতে দাপট দেখিয়েছেন বাংলাদেশি পেসাররা। পেসারদের দাপটে দুই বল বাকি থাকতে গুটিয়ে যায় সংযুক্ত আরব আমিরাতের ইনিংস। ১০ উইকেটের মধ্যে ৮টিই নিয়েছেন পেসাররা। কিন্তু তাদের দাপটের পরও লাগাম টানা যায়নি আমিরাতের রানের চাকায়।

৪৯.৪ ওভারে গুটিয়ে যাওয়ার আগে ওপেনার আশফাক আহমেদের ৯৮ রানের উপর ভর করে ২৬৭ রানের বড় সংগ্রহই পায় আমিরাত।

৬ ডিসেম্বর, বৃহস্পতিবার পাকিস্তানের করাচিতে টসে জিতে আগে ব্যাট করতে নামা আমিরাতকে ম্যাচের শুরুতে চাপে ফেলতে পারেনি বাংলাদেশ। এই সুযোগ কাজে লাগিয়ে কোনো উইকেট না হারিয়ে স্কোরকার্ডে ১০০ রান তুলে ফেলেন দুই ওপেনার আশফাক আহমেদ ও অধিনায়ক রোহান মোস্তফা। ইনিংসে ২২তম ওভারে ১০২ রানের উদ্বোধনী জুটি ভাঙেন মোসাদ্দেক হোসেন। ওই ওভারের শেষ বলে নাজমুল হোসেন শান্তর হাতে ক্যাচ তুলে দিয়ে সাজঘরে ফেরেন রোহান মোস্তফা।

এরপর তিন নম্বরে নামা গুলাম সাব্বিরকে সঙ্গে নিয়ে রানের চাকা সচল রাখেন আশফাক। এগোচ্ছিলেন সেঞ্চুরির দিকেও। তবে তাকে সেঞ্চুরির স্বাদ পেতে দেননি খালেদ আহমেদ। ব্যক্তিগত ৯৮ রানে এলবিডব্লিউর ফাঁদে পড়েন আশফাক। আউট হওয়ার আগে ৯৩ বলে ১৬ চার ও ১ ছক্কায় ৯৮ রান করেন আমিরাতের এই ওপেনার।

পরের ওভারেই মিজ শেহজাদকে এলবিডব্লিউর ফাঁদে ফেলেন তানভির ইসলাম। তবে স্কোরকার্ডে এর প্রভাব পড়তে দেননি গুলাম সাব্বির। হাফ সেঞ্চুরি তুলে নিয়ে রানের চাকা সচল রাখেন এই উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান। ব্যক্তিগত ৫২ রানে তাকে থামান শরিফুল ইসলাম।

নিজের পরবর্তী ওভারের প্রথম বলে মোহাম্মাদ উসমানকেও সাজঘরে পাঠান শরিফুল। দুজনই উইকেটের পেছনে নুরুল হাসান সোহানের তালুবন্দী হন। এরপরই পেসারদের হাত ধরে ম্যাচে ফেরে বাংলাদেশ। খালেদ ও শরিফুলের বোলিং তোপে নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারাতে থাকে আমিরাত। শেষ পর্যন্ত ৪৯.৪ বলে ২৬৭ রান তুলতেই গুটিয়ে যায় আমিরাতে ইনিংস।

বাংলাদেশের হয়ে সর্বোচ্চ চারটি উইকেট নেন শরিফুল ইসলাম। ১০ ওভারে ৫৫ রানে চার উইকেট দখল করেন বাঁহাতি এই পেসার। এ ছাড়া খালেদ আহমেদ ৩টি এবং শফিউল ইসলাম, তানভীর ইসলাম ও মোসাদ্দেক হোসেন নিয়েছেন একটি করে উইকেট।

প্রিয় খেলা/রিমন

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

মেসির কেন মাথায় হাত!

প্রিয় ৩ ঘণ্টা, ২৩ মিনিট আগে

loading ...