প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু। ছবি: প্রিয়.কম

‘যখন যাকে দরকার হবে তখনই খেলানো হবে’

সন্তুষ্টির মাঝে মধুর সমস্যাও আছে। একই পজিশনে কয়েকজন ভালো পারফর্ম করে ফেলায় নতুন করে হিসাব-নিকাশ করতে হবে নির্বাচকদের।

শান্ত মাহমুদ
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৬ ডিসেম্বর ২০১৮, ১৮:৩০ আপডেট: ০৬ ডিসেম্বর ২০১৮, ১৮:৩০
প্রকাশিত: ০৬ ডিসেম্বর ২০১৮, ১৮:৩০ আপডেট: ০৬ ডিসেম্বর ২০১৮, ১৮:৩০


প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু। ছবি: প্রিয়.কম

(প্রিয়.কম) দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজে বাংলাদেশের বিপক্ষে পাত্তাই পায়নি উইন্ডিজ। স্পিন বিষে ক্যারিবীয়দের নীল করে ২-০ ব্যবধানে সিরিজ জিতে নিয়েছে সাকিব আল হাসানের দল। ঠিক এমন লড়াই-ই এবার ওয়ানডেতে ধরে রাখার পালা। এর আগে নিজেদের ঝালিয়ে নিতে বিকেএসপিতে মাঠে নেমেছিল বিসিবি একাদশ। মাশরাফি বিন মুর্তজা থেকে শুরু করে ইনজুরি থেকে ফেরা তামিম ইকবাল, সৌম্য সরকার, ইমরুল কায়েস, মোহাম্মদ মিঠুন, রুবেল হোসেনরা সবাই খেলেছেন ম্যাচটি।

প্রস্তুতিটাও দারুণ হয়েছে। ৩৩২ রানের বড় লক্ষ্য পেয়েও ডাক ওয়ার্থ লুইস পদ্ধতিতে ৫১ রানের জয় তুলে নিয়েছে বিসিবি একাদশ। ইনজুরি থেকে ফিরেই ৭৩ বলে ১০৭ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলেছেন তামিম। ছক্কা হাঁকিয়ে সেঞ্চুরি পূর্ণ করা সৌম্য সরকার ৮৩ বলে ১০৩ রানের হার না মানা ইনিংস খেলেছেন।

বিকেএসপির তিন নম্বর মাঠের ফ্ল্যাট উইকেটে বল হাতেও একেবারে খারাপ অনুশীলন হয়নি। প্রতিপক্ষ বড় সংগ্রহ গড়লেও খরচের দিক থেকে হিসেবীই ছিলেন ওয়ানডে দলের নিয়মিত সদস্যরা। দুটি করে উইকেটও নেন রুবেল হোসেন ও নাজমুল অপু। ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা নেন একটি। সব মিলিয়ে প্রস্তুতি ম্যাচ নিয়ে সন্তুষ্ট জাতীয় দলের প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু। তার সবচেয়ে বড় সন্তুষ্টির জায়গা, বিকল্প ক্রিকেটারদের ভালো অবস্থায় থাকার ব্যাপারটি।

সন্তুষ্টির মাঝে অবশ্য মধুর সমস্যাও আছে। একই পজিশনে কয়েকজন ভালো পারফর্ম করে ফেলায় নতুন করে হিসাব-নিকাশ করতে হবে নির্বাচকদের। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজে তামিমকে ছাড়াই দারুণ খেলেছে বাংলাদেশ। ওপেনার হিসেবে সুযোগ পাওয়া ইমরুল তিন ম্যাচের দুটিতে করেছেন সেঞ্চুরি। বাকি ম্যাচেও খেলেন ৯০ রানের ইনিংস। লিটনও খারাপ করেননি। প্রস্তুতি ম্যাচে ভালো করে জিম্বাবুয়ে সিরিজে দলে ফেরা সৌম্য করেছিলেন সেঞ্চুরি। ৯ ডিসেম্বর থেকে শুরু হতে যাওয়া ওয়ানডে সিরিজে ফিরছেন তামিমও।

সব মিলিয়ে নতুন করেই হিসাব মেলাতে হবে। এমন অবস্থা তৈরি হওয়ায় প্রধান নির্বাচক বলছেন, প্রয়োজনের কথা মাথায় রেখে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। নান্নু বলেন, ‘এটি দলের জন্য অনেক ভালো একটি সাইন। ব্যাকআপ ক্রিকেটাররাও যথেষ্ট ভালো অবস্থানে আছে। আর একটি প্রতিযোগিতার মধ্যে থাকলে দল সব সময় ভালো অবস্থানে থাকে। অবশ্যই আমি মনে করি যে একটি প্রতিযোগিতা থাকা ভালো। আর যখন যাকে দরকার হবে তখনই খেলানো হবে।’

মূলত সমস্যাটা উদ্বোধনী জুটি নিয়ে। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজে ইনিংস উদ্বোধন করেছেন ইমরুল ও লিটন। তামিম ফিরে আসায় যে কোনো একজনকে জায়গাটা ছাড়তে হবে। পারফরম্যান্সের হিসাবে তামিমের সঙ্গী হওয়ার কথা ইমরুলের। কিন্তু নির্বাচক বা টিম ম্যানেজম্যান্ট কী ভাবছে? মিনহাজুল আবেদীন নান্নু বলেন, ‘এই বিষয়ে আলোচনা হচ্ছে। এখনও ঠিক করা হয়নি তামিমের সাথে কে ওপেন করবে। এটা আগামীকাল (৭ ডিসেম্বর) ঠিক করা হবে।’

প্রস্তুতি ম্যাচ নিয়ে জাতীয় দলের প্রধান নির্বাচক বলেন, ‘প্রস্তুতি ম্যাচে প্রত্যাশা থাকে যে সবার ব্যাটিং, বোলিং এবং ফিল্ডিং সবদিক থেকে যেন উন্নতি হয়। সেদিক থেকে আমার মনে হয় আমাদের প্রস্তুতি ভালোই হয়েছে। উইন্ডিজ কিন্তু ওয়ানডেতে ভালো দল। শর্টার ফরম্যাটে ওদের সব পরীক্ষিত পারফরমার আছে। সেই হিসেবে আমাদের জন্য এটি অনেক চ্যালেঞ্জিং একটি সিরিজ। প্রস্তুতি ম্যাচটি ভালো হওয়ায় আমরা সন্তুষ্ট। তামিম অনেক দিন পরে খেলছে, শতক করেছে। সৌম্যও শতক পেয়েছে। সবকিছু মিলিয়ে দল পুরোপুরি প্রস্তুত আছে।’

প্রিয় খেলা/শান্ত মাহমুদ

 

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

loading ...